দেশ

অমর বালক! মৃত্যুর পর নিজের অঙ্গদান করে চার ব্যক্তির জীবন বাঁচালেন ১৫ বছরের খুদে

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: পথ দুর্ঘটনার শিকার হয়েছিল বছর পনেরোর ছোট্ট ছেলেটা। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, তার ব্রেন ডেথ হয়ে গিয়েছে। অর্থাৎ মৃত্যু না হলেও বেঁচে ফেরার আর কোনো আশা ছিল না তার। অথচ সেই মৃতপ্রায় ছেলেটাই প্রাণ বাঁচিয়ে দিয়ে গেল আরো প্রায় চারজন মানুষের! সেই সঙ্গে অতিমারী পরিস্থিতিতেই চিকিৎসা বিজ্ঞানের এক অনবদ্য সাফল্যের সাক্ষী থাকল রাজস্থান।

জানা গেছে, গত ৩রা নভেম্বর এক পথ দুর্ঘটনার কবলে পড়ে রাজস্থানের জয়পুরের এসএমএস হাসপাতালে ভর্তি হয় ১৫ বছর বয়সী এক কিশোর। চিকিৎসকদের প্রাণপণ চেষ্টা সত্ত্বেও তাঁকে বাঁচানো যায় নি আর। সংবাদমাধ্যমকে ডক্টর মনীষ শর্মা জানান, ৭ই নভেম্বর এসএমএস-এর তরফ থেকে ওই কিশোরকে ব্রেন ডেথ বলে ঘোষণা করা হয়। ওই কিশোর রাজস্থানের টঙ্ক জেলার বাসিন্দা বলে জানা গেছে সূত্রের খবরে।

ব্রেন ডেথ হয়ে যাওয়ার পর হাসপাতালের চিকিৎসকরা কিশোরের পরিবারের লোকজনকে অনুরোধ করেন, অন্যান্য রোগীদের চিকিৎসার্থে কিশোরের অঙ্গ দান করার জন্য। বুধবার কিশোরের পরিবার অঙ্গ দানে রাজি হয়। এরপরই শুরু হয় অঙ্গ প্রতিস্থাপনের কাজ। হাসপাতাল সূত্রের খবরে জানা গেছে, কিশোরের লিভার, কিডনি এমনকি হার্টও অন্য রোগীদের দেহে সুষ্ঠুভাবে প্রতিস্থাপন করা সম্ভব হয়েছে।

কিডনি এবং লিভার ওই হাসপাতালেরই রোগীদের দান করা হয়। কিন্তু হার্ট পাঠিয়ে দেওয়া হয় দিল্লিরএকটি বেসরকারি হাসপাতালে। জয়পুরে ওই হার্ট প্রতিস্থাপন যোগ্য দেহ পাওয়া যায় নি বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তাঁরা আরো জানিয়েছেন এইভাবে সফল অঙ্গ প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে মোট চারজন মানুষের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়েছে। বস্তুত, করোনা পরিস্থিতিতে এই নিয়ে রাজস্থান থেকে মোট ৩৮টি অঙ্গ দানের ঘটনা সামনে এল। এই সাফল্যে যারপরনাই আনন্দিত রাজস্থানের চিকিৎসক মহল।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close