রাজ্য

চারটি হাসপাতালে ঘুরেও ঠাঁই হলনা কোথাও, ১২ ঘন্টা ছটফট করে মৃ’ত্যু বছর আঠারোর যুবকের

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: ইছাপুরের নেতাজী পল্লির বাসিন্দা বছর ১৮র ফুটফুটে ছেলে, সবে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে। এই অল্প বয়সে সে পৃথিবীর নৃশংস ভয়াবহ রুপ সহ্য করতে না পেরে অবশেষে নিভে গেল তার জীবনের বাতি। শহরজোড়া মানুষ দেখল স্বাহ্যব্যবস্থার এক নিন্দিত দৃশ্য। স্বাহ্যভবনে দশ বারো বার ফোন করেছেন বাবা, উত্তর মেলেনি কোনো।

ছেলে হারিয়ে, মেডিক্যাল কলেজের সামনে দাঁড়িয়ে চিৎকার করে সন্তানহারা মা বলছে ‘আমি ডাক্তারদের বলছি ডাক্তার তো ভগবানের রুপ, আপনাদের কী এতটুকু মায়া হচ্ছেনা কেন বিনা চিকিৎসায় আমার ছেলেটাকে ফেলে রেখেছেন এভাবে, ওতো ছটফট করছে শ্বাসকষ্টে’ নাহ্! তারপরও সাড়া মেলেনি কোনো ঈশ্বররুপী ডাক্তারদের থেকে। রাজ্যের উন্নয়ন চুপ! সরকারি স্বাহ্য ব্যবস্থায় তাবড় তাবড় ডাক্তাররা আজ চুপ! দেখে মেলেনি কোনো নেতা মন্ত্রীর, কারণ আজ অসুবিধায় সাধারণ মানুষ।

সরকারি-বেসরকারি ৪ হাসপাতাল ফিরিয়ে দিয়েছে। ফাঁকা বেড থাকা সত্ত্বেও বলা হয়েছে বেড নেই। মা কাকুতি মিনতি করেছেন, ঈশ্বররুপী ডাক্তারদের পায়ে পরেছেন ফল হয়নি কোনো। শুক্রবার দিনভর যন্ত্রণায় ছটফট করেছে ছেলে। মা আত্মহত্যার হুমকি দেওয়ায় ভর্তি নেন মেডিকেল কলেজ। তবে শেষরক্ষা আর করা গেলনা। অবশেষে গতকাল থেমে গেল সেই প্রাণ। ছেলের দেহ দেওয়া হবেনা পরিবারকে, হাসপাতাল তরফে জানানো হয়েছে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close