fff
টেকনলজি

5G নিলামে এক নম্বরে জিও! ৮৮ হাজার কোটি টাকার স্পেকট্রাম কিনে চমক সংস্থার

নিলাম শেষ, এবার দেশে ৫জি (5g) পরিষেবা শুরু হওয়ার অপেক্ষা। ৫জি (5g) স্পেকট্রামের মহানিলাম শেষের পরই কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রক জানিয়ে দিয়েছে চলতি বছরের অক্টোবর মাস থেকেই দেশে চালু হয়ে যাবে ৫জি পরিষেবা (5g Network)। অর্থাৎ আর বড়জোর দুমাস, তারপরই আরো দ্রুত ৫জি নেটওয়ার্ক ব্যবহারের সুযোগ এসে যাবে দেশবাসীর সামনে।

তবে ফাইভ-জি (5g) পরিষেবার জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ৫জি স্পেকট্রামের (5g Spectrum) নিলামে প্রত্যাশিতভাবেই বাকিদের টেক্কা দিল মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও (Jio)। বাকিদের শুধু পিছনে ফেলা নয়, বরং অনেকটা পিছনে ফেলে দেশের ২২ টা সার্কেলেই তারা ৫জি (5g) স্পেকট্রাম কিনে নিয়েছে। গত ২৬ জুলাই থেকে শুরু হয়েছিল ৫জি (5g) স্পেকট্রাম এই নিলাম। চলেছে ১ আগস্ট পর্যন্ত। আর তাতে অভাবনীয় অর্থ এসেছে কেন্দ্রীয় কোষাগারে।

কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রক মোট ৭২ হাজার ৯৮ মেগাহার্টজ ৫জি (5g) স্পেকট্রাম নিলামে তুলেছিল। তার ৭১ শতাংশ বিক্রি হয়েছে। আর তাতেই কেন্দ্রের কোষাগারে ঢুকেছে ১.৫ লক্ষ কোটি টাকা! এর আগে স্পেকট্রাম বেচে এত বিপুল পরিমাণ অর্থ পায়নি কেন্দ্রীয় সরকার। এই নিলাম চলেছিল মোট ৪০ রাউন্ড।

এর মধ্যে রিলায়েন্স জিও একাই ৮৮ হাজার ৭৮ কোটি টাকার স্পেকট্রাম কিনেছে। অর্থাৎ নিলামে মোট যত টাকার স্পেকট্রাম বিক্রি হয়েছে তার ৫৮ শতাংশ অর্থই এসেছে আম্বানির জিও’র কাছ থেকে। তাদের কেনা মোট স্পেকট্রামের পরিমাণ ২৪,৭৪০ মেগাহার্টজ। দেশের প্রতিটি লাভজনক ও জনপ্রিয় মোবাইল নেটওয়ার্ক সার্কেলেই নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখার জন্য জিও চড়া দাম দিয়েছে।

তাদের তুলনায় অনেকটাই পিছনে আছে এয়ারটেল ও ভি। সুনীল মিত্তালের ভারতী এয়ারটেল মোট ৫জি স্পেকট্রাম কিনেছে ৪৩ হাজার ৮৪ কোটি টাকার। অপরদিকে আইডিয়া ও ভোডাফোনের যৌথ সংস্থা ভি মাত্র ১৮ হাজার ৭৮৪ কোটি টাকার স্পেকট্রাম কিনে প্রতিযোগিতার শুরুতেই পিছিয়ে পড়েছে। এয়ারটেল ও ভি সব নেটওয়ার্কের স্পেকট্রাম কিনতে পারেনি।

বর্তমানে দেশের সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি গৌতম আদানির সংস্থাও এই নিলামে অংশ নিয়েছিল। তবে তারা মাত্র ২১২ কোটি টাকার স্পেকট্রাম কিনেছে। তাদের কেনা স্পেকট্রামের পরিমাণ ২৬ গিগাহার্টজ। আসলে আদানিরা কোন‌ও পাবলিক নেটওয়ার্কের জন্য স্পেকট্রাম কেনেনি। তারা দেশের পাঁচটি মহানগরের জন্য প্রাইভেট নেটওয়ার্ক স্পেকট্রাম কিনেছে। স্পেশাল প্রাইভেট ৫জি পরিষেবা দেওয়াই আপাতত আমদানির লক্ষ্য। হতে পারে ভবিষ্যতে হয়তো তারাও পাবলিক মোবাইল কানেকশন পরিষেবাতেও প্রবেশ করবে, এটা তারই সলতে পাকানো পর্ব।

রিলায়েন্স জিও যে পরিমাণ ৫জি (5g) স্পেকট্রাম কিনেছে তা দেখে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগামী দিনে জিও নেটওয়ার্কের ৪জি গ্রাহকরা আরও ১০ গুন দ্রুতগতির পরিষেবা পাবেন।

তবে ৫জি (5g) স্পেকট্রাম কেনার দৌড়ে এয়ারটেল ও ভি যেভাবে রিলায়েন্স জিওর কাছে পিছনে পড়ে গেল তাতে আরও উন্নত মানের পরিষেবা পাওয়ার আশায় ওই দুই সংস্থার গ্রাহক সংখ্যা আগামী দিনে আরও। অনেকটা কমতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা যদিও এয়ারটেলের স্ট্র্যাটেজির প্রশংসা করেছেন অনেকে। টেলিকম বিশেষজ্ঞের মতে এয়ারটেল নিজের আর্থিক সীমাবদ্ধতা বুঝে সমস্ত সার্কেলের জন্য না ঝাঁপিয়ে যেখানে যেখানে তাদের স্ট্রং-হোল্ড আছে সেখানেই সবচেয়ে বেশি করে স্পেকট্রাম কিনেছে। ফলে দেশের নির্দিষ্ট বেশ কিছু সার্কেলে গ্রাহকরা এয়ারটেলের থেকেই সবচেয়ে ভালো পরিষেবা পেতে পারে।

এই টেলিকম বিশেষজ্ঞদের মতে, আগামী দিনে রিলায়েন্স জিও দেশের টেলিকমিউনিকেশন পরিষেবাকে যে ডমিনেট করবে তা একরকম পরিষ্কার। তবে তাদের সঙ্গে এয়ারটেলের একটা সুস্থ প্রতিযোগিতা দেখা যেতে পারে। কিন্তু আর্থিক দুরবস্থার কারণে ভি যেভাবে নামকে ওয়াস্তে ৫জি স্পেকট্রামের নিলামে অংশ নিয়েছিল তাতে তাদের ঘুরে দাঁড়ানো আরও কঠিন হয়ে গেল। বিশেষ করে ৫জি পরিষেবাকে কেন্দ্র করে রিলায়েন্স জিও ও এয়ারটেলের মধ্যে প্রতিযোগিতা শুরু হলে ভি মার্কেট থেকে আরও পিছু হটবে বলে মনে করছেন তাঁরা।

এদিকে কেন্দ্রীয় টেলিকম মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব স্পষ্ট জানিয়েছেন, অক্টোবর মাস থেকেই সারা দেশে ৫জি পরিষেবা শুরু করে দিতে পারবে সংস্থাগুলি। নিলামে বিক্রি হওয়া স্পেকট্রাম আগামী ১০ আগস্টের মধ্যেই সংস্থাগুলিকে বন্টন করে দেওয়া হবে বলেও তিনি জানান। ফলে চলতি বছরের মধ্যেই দেশে ৫জি কানেকশনের সিম বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা আরও উজ্জ্বল হল। এতে ৫জি (5g) মোবাইল হ্যান্ডসেটের বিক্রি (5g mobile phone price) অনেকটাই বাড়বে বলে মনে করছেন বাজার বিশেষজ্ঞরা। তাতে ৫জি হ্যান্ডসেটের দাম কমার‌ও সম্ভাবনা আছে। তবে মোবাইল পরিষেবা সংস্থাগুলো যেভাবে বিপুল টাকা খরচ করে স্পেকট্রাম কিনেছে তাতে আগামীদিনে বিভিন্ন মোবাইল প্রতারকের খরচ বাড়বে বলেই মনে হয়। ফলে আমজনতার পকেটে আর‌ও চাপ বাড়বে।

উল্লেখ্য,৫জি পরিষেবার শুরু হলে চিকিৎসা বিজ্ঞান, রোবটিক্স ও গবেষণার ক্ষেত্রে যুগান্তকারী পরিবর্তন ঘটার সম্ভাবনা আছে। তবে পরিবেশবিদদের একাংশের আশঙ্কা ৫জি পরিষেবা শুরু হলে পাখিদের ক্ষতি হবে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!