দেশ

সেবাই পরম ধর্ম! খালি পায়ে সাইকেল চালিয়ে গরিবের চিকিৎসা করে যাচ্ছেন বৃদ্ধ ডাক্তার

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: প্রায় বছর খানেক আগে চিনের উহান প্রদেশে প্রথম দেখা মিলেছিল করোনা ভাইরাসের। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে এই মারণ ভাইরাসের দাপট প্রাণ কেড়েছে বহু মানুষের। শুধু তাই নয়, মানুষের দৈনন্দিন জীবনের স্বাভাবিক ছন্দকেই এলোমেলো করে দিয়েছে করোনা ভাইরাস। কিন্তু এই কঠিন সময়ের মধ্যেও যে মানুষের ব্যক্তিগত স্বার্থের উর্দ্ধে বেঁচে আছে মানবিকতা, তারই অন্যতম নজির মহারাষ্ট্রের রামচন্দ্র ডাক্তার।

৮৭ বছর বয়সী রামচন্দ্র দানেকর মহারাষ্ট্রের চন্দ্রপুর জেলার বাসিন্দা। তিনি পেশায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক। বিগত ৬০ বছর ধরে তিনি প্রতিদিন সাইকেলে করে ১০ কিলোমিটার রাস্তা যাতায়াত করেন। তাও আবার খালি পায়ে! উদ্দেশ্য একটাই, গ্রামের গরিব মানুষদের চিকিৎসা করা। মহারাষ্ট্রের মুল, পমভুরনা এবং বলহারশাহ তালুকের প্রত্যন্ত গ্রামগুলিতে তিনি এভাবেই রোজ পৌঁছে যান রোগী দেখতে। এমনকি তাঁর এই রোজকার রুটিনে ভাঙন ধরাতে পারে নি করোনা ভাইরাসের বিশ্বজোড়া অতিমারীও।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম এএনআই-এর খবর অনুযায়ী রামচন্দ্র দানেকর প্রতিদিন খালি পায়ে সাইকেল চালিয়ে পৌঁছে যান গ্রামের ঘরে ঘরে। তাঁর চিকিৎসার কাজে বাধা দিতে পারে নি করোনা ভাইরাসও। এএনআই-এর কাছে বৃদ্ধ ডাক্তার বলেছেন, “গত ৬০ বছর ধরে আমি প্রায় রোজই গ্রামের মানুষকে দেখতে আসি। কোভিডের ভয়ে এখন ডাক্তাররা গরিব মানুষের চিকিৎসা করতে ভয় পান। কিন্তু আমার সেরকম কোনো ভয় নেই। আজকালকার কমবয়সী ডাক্তাররা শুধুই টাকার পিছনে ছোটেন। গরিবের সেবা করতে তাঁরা চান না।”

তিনি আরো বলেন, “আমার রুটিন আগের মতোই আছে। আমি নিঃস্বার্থ ভাবে গ্রামের গরিব মানুষের সেবা চালিয়ে যেতে চাই।”

বস্তুত, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব যখন থেকে শুরু হয়েছিল, তখন থেকেই ডাক্তাররা বলেছিলেন এই মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা সবথেকে বেশি বয়স্ক মানুষদের। কিন্তু গরিবের সেবা করা যাঁর জীবনের একমাত্র ব্রত, তাঁকে এসমস্ত সাবধান বাণী নিজের কর্তব্য থেকে বিরত রাখতে পারে না। মহারাষ্ট্রের রামচন্দ্র দানেকরের জন্য দেশের মানুষের তরফ থেকে রইল অনেক অনেক কুর্নিশ।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close