দেশ

“ঐতিহাসিক রায়, রাম জন্মভূমি আন্দোলনে দলের প্রতি আস্থা দৃঢ় হল”, বললেন আদবানি

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক:বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলায় আদালতের রায়কে আন্তরিক স্বাগত জানালেন প্রবীণ বিজেপি নেতা লাল কৃষ্ণ আদবানি। এই রায় যে তাঁর এবং তাঁর দলের আত্মবিশ্বাসকে আরো দৃঢ় করেছে সেকথাই জানান তিনি।

 

এদিন সিবিআই এর বিশেষ আদালত ১৯৯২ সালের বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলার রায় ঘোষণা করে। এই ঘটনায় লাল কৃষ্ণ আদবানি সহ আরো ৩১ জন অভিযুক্তকে নির্দোষ ঘোষণা করা হয়েছে। দীর্ঘ ২৮ বছর পরে ঘোষিত আদালতের এই রায় স্বস্তির বাতাস বয়ে এনেছে বিজেপির অন্দরে। বুধবার লক্ষ্ণৌতে এই ঐতিহাসিক রায় ঘোষণার পর আদবানি বলেছেন, “বাবরি ধ্বংস মামলায় বিশেষ আদালতের এই রায়কে আমি আন্তরিকভাবে স্বাগত জানাচ্ছি। আজকের এই রায় ‘রাম জন্মভূমি আন্দোলন’-এ আমার এবং আমার দলের বিশ্বাসকে আরো দৃঢ় করল।” জানা যাচ্ছে, তিনি এবং অপর এক অভিযুক্ত মুরলী মনোহর যোশী আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রায় দানের প্রক্রিয়ায় উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর যোশী জানান, “এটা একটা ঐতিহাসিক রায়। অযোধ্যায় ৬ ডিসেম্বরের ঘটনায় যে কোনোরকম ষড়যন্ত্র করা হয় নি, আদালতের রায়ই তার প্রমাণ। আমাদের দলের কোনো ক্রিয়াকলাপ কোনো ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত ছিল না।”

এখানেই শেষ নয়, অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ সম্বন্ধে এবার দেশবাসীকে প্রাণ খুলে আনন্দ করতেও বলেন পার্লামেন্টের প্রাক্তন সদস্য এবং  বিজেপি নেতা মুরলী মনোহর যোশী। “আমরা খুশি। এবার সবার রাম মন্দির নির্মাণ সম্বন্ধে খুশি হওয়া উচিত”, তিনি বলেন।

 

এদিন ৩২ জন অভিযুক্তকেই নির্দোষ ঘোষণা করে সিবিআই এর বিশেষ আদালত জানায়, অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঘটনাটি আকস্মিক ছিল, পূর্ব পরিকল্পিত নয়। আদালত আরও জানায় দুষ্কৃতীরাই এই কাজ করেছে। লাল কৃষ্ণ আদবানি, মুরলী মনোহর যোশী কিংবা বাকি অভিযুক্তের এর সঙ্গে কোনো যোগ ছিল না। ওই ৩২ জন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে বিশেষ কোনো প্রমাণ নেই বলেও জানিয়েছে আদালত। প্রত্যেক অভিযুক্তকেই যদিও আদালত রায় দান কালে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দিয়েছিল, কিন্তু ২৬ জনের বেশি উপস্থিত ছিলেন না।তাঁরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উপস্থিত হয়েছিলেন।

 

প্রসঙ্গত, ১৯৯২ সালের ৬ই ডিসেম্বর অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ উঠেছিল একাধিক বিজেপি নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। সিবিআই এই মামলার তদন্তের ভার নিয়েছিল। ২৮ পর পর অবশেষে সেই মামলার রায়ে অভিযুক্ত নেতারা নির্দোষ প্রমাণিত হলেন।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close