গ্রিন রুমবড়ো পর্দা

হিন্দু ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগ, ফতোয়া জারি আমির-কিয়ারার বিজ্ঞাপনের উপর

মহানগর বার্তা ডেস্ক: হিন্দুদের অপমান করেছেন আমির খান। সঙ্গে হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করেছেন অভিনেত্রী কিয়ারা আডবাণী। একটি ক্ষুদ্র আর্থিক সহায়তা সংক্রান্ত সংস্থার বিজ্ঞাপন নিয়ে এমনই প্রশ্ন উঠেছিল দেশজুড়ে। সরব হয়েছিলেন কাশ্মীর ফাইলসের পরিচালক, বিবেক অগ্নিহোত্রীও। এবার সেই সমালোচনার মধ্যেই সরল বিজ্ঞাপন। আমির, কিয়ারা অভিনীত বিজ্ঞাপনকে সরিয়ে নিল ওই একটি ওটিটি সংস্থা। ফের প্রশ্ন উঠল, উদার হলেই ভাবাবেগের দোহাই দেখিয়ে নামবে বিপদ!

কী দেখানো হয় ওই বিজ্ঞাপনে? কিয়ারা এবং আমিরের বিয়ে হয়েছে। কিন্তু আমির অর্থাৎ নতুন জামাই মেয়ে নিয়ে নিজের বাড়ি না গিয়ে স্ত্রীর বাড়িতে উঠছেন। তাঁকে বরণ করে ঘরে তোলা হচ্ছে। অর্থাৎ রীতি অনুযায়ী বিপরীত দেখানো হচ্ছে এখানে। এরপরেই ওঠে প্রশ্ন। বিবেব দাবি করেন, হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করা হয়েছে। যা আমিরের পিকে সিনেমার সময়েও উঠেছিল।
এরপরই সরল ওই বিজ্ঞাপন।

যদিও দেশে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের নামে সরেছে একাধিক বিজ্ঞাপন। যেখানে তীব্র যৌন সুড়সুড়ি দেওয়া বিজ্ঞাপনে আঘাত না লাগলেও ধর্মের নামে কোপ পড়েছে একাধিক বিজ্ঞাপনের উপরে।

সম্প্রতি, ফ্যাশন ডিজাইনার সব্যসাচীর একটি বিজ্ঞাপন নিয়ে বিতর্ক হয়। অর্ধনগ্ন নারীর গলায় মঙ্গলসূত্র। তা নিয়ে অভিযোগ ওঠে।

ফ্যাব ইন্ডিয়ার দীপাবলি বিজ্ঞাপন নিয়েই বিতর্ক হয়। একটি শব্দ, ‘জেশন ই রিয়াজ’ নিয়ে আপত্তি ওঠে। কেন উর্দু শব্দের প্রয়োগ, তা নিয়ে বিতর্ক হয়।

দুই মহিলার করবা চৌথ পালন নিয়ে বিতর্কে জড়ায় ডাবর ইন্ডিয়া। পোশাক সংস্থা মান্যবরের কন্যাদান নয়, কন্যা মান বিজ্ঞাপন নিয়েও বিতর্ক হয়।

এছাড়াও একাধিক বলিউড ছবি ঘিরেও বিতর্ক শুরু হয়। রানী পদ্মাবতী সিনেমার নাম বদল করতে হয়। আবার মুসলমানের রঙের উৎসব দেখানো বিজ্ঞাপনেও বিতর্ক তৈরি হয়। এবারও প্রায় একই থাকল পথ। ফের বিতর্কের মুখে পিছিয়ে গেল উদ্যোগ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close