fff
টেকনলজি

বডি ফিটনেস থেকে পর্যাপ্ত ঘুম, আপনার স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখবে নতুন Apple Watch

মোবাইল, স্মার্ট ওয়াচের দুনিয়ায় অ্যাপেল এখন আর একটা ব্র্যান্ড নয়, তা রুচি ও স্ট্যান্ডার্ডের মাপকাঠি হয়ে দাঁড়িয়েছে। অ্যাপেল প্রেমীরা এখন Apple Watch (অ্যাপেল ওয়াচ) সিরিজ-৮ এর জন্য দিন গুনছেন। বরাবরের মতোই এবারের অ্যাপেল ওয়াচ-৮ (Apple Watch) এর আত্মপ্রকাশের আগে তৈরি হয়েছে সেই বহু প্রতীক্ষিত রহস্য। এই রহস্য‌ই যেন অ্যাপেল ওয়াচ সিরিজ-৮ এর আকর্ষণ বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু কবে আসছে সে? এই Smart Watch এর দুনিয়াতেও এ যেন এক নতুন চমক।

প্রথা মেনে অ্যাপেলের পক্ষ থেকে এই নিয়ে এত দ্রুত কিছুই জানানো হয়নি।

আইফোন ( I phone)নিয়ে অ্যাপেল ভক্তদের মাতামাতির শেষ নেই। এরপর Apple Watch সিরিজ ৮ এর জন্য, অ্যাপেল ভক্তরা নিজেদের মতো করে সম্ভাব্য দিন নির্ধারণ করতে শুরু করেছেন। এই নিয়ে বিদেশের বাজারে জুয়া‌ও চলছে। পাশাপাশি সম্ভাব্য দাম নিয়ে প্রবল জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে চলতি বছরেই যে বাজার মাতাতে চলে আসবে অ্যাপেল ওয়াচ (Apple Watch) সিরিজ-৮ তা জোর দিয়ে বলা যায়। Apple Watch Series 7 বাজারে আসার পর Apple Watch সিরিজ ৮ বাজারে আসার তারিখ, দিন কিছু না জানালেও সব কিছু নিয়ে গুজব চলছে। এই গুজবের সঙ্গে অবশ্য বিশ্ববাসী পরিচিত। কারণ অ্যাপেলের কোন‌ও নতুন প্রোডাক্ট বাজারে আসবে আর তা নিয়ে বাজারে গুজব চলবে না এটাই অবাক করা ব্যাপার।

অ্যাপেল ওয়াচ (Apple Watch) সিরিজের আগের মডেলগুলোর আত্মপ্রকাশের দিন দেখে অনেকের অনুমান আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর বাজারে আসছে সিরিজ-৮ (Smart Phone)। কিন্তু অ্যাপেল আগাম কিছু না জানালেও কোন হিসেবে এই দিনটা ধরা হচ্ছে?

অ্যাপল ওয়াচ (Apple Watch) সিরিজ-৭ ও তার আগের বেশকিছু মডেলের আত্মপ্রকাশের দিন বিচার করেই এই কঠিন কাজটা করা হয়েছে। ২০১৯ এর ১০ সেপ্টেম্বর অ্যাপল ওয়াচ সিরিজের ৫ মডেলটা বাজারে এসেছিল। যদিও সিরিজ-৬ ও সিরিজ-এস‌ই আত্মপ্রকাশ করে পরের বছর, অর্থাৎ ২০২০ এর ১৫ সেপ্টেম্বর। সিরিজ-৭ আবার জনসমক্ষে এসেছে ২০২১ এর ১৪ সেপ্টেম্বর। তাই অনেক অ্যাপল ভারতের অনুমান এবার ১৩ সেপ্টেম্বর লঞ্চ হবে অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ-৮। তবে অ্যাপেল বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাদের নতুন প্রোডাক্ট শুক্রবার করে সর্বসমক্ষে নিয়ে আসে। সেই হিসেবে অনেকের ধারণা সেপ্টেম্বর অফিশিয়ালি অ্যাপেল ওয়াচ এইটের আত্মপ্রকাশের কথা ঘোষণা করা হতে পারে এবং তা সর্বসমুখে নিয়ে আসা হবে ২৩ সেপ্টেম্বর।

এদিকে দাম নিয়ে জল্পনা সবচেয়ে বেশি। প্রত্যেকেই নিজের মতো করে দাম কত হবে সেই অনুমান করছেন। তবে বাজার বিশেষজ্ঞদের হিসেব বলছে অ্যাপেল ওয়াচ (Apple Watch) সিরিজ-৮ এর বেস মডেলের দাম প্রায় ৩৯৯ মার্কিন ডলার হবে যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩১,৯০০ টাকার‌ও বেশি!

তবে এই সিরিজের প্রিমিয়াম মডেলগুলোর দাম যে অনেকটাই বেশি হবে তা বলা বাহুল্য। অ্যাপেল বিশেষজ্ঞদের মতে এই সিরিজের স্মার্ট ওয়াচকে সেলুলার মডেল, অর্থাৎ মোবাইল উপযোগী মডেলের কনভার্ট করতে হলে আরও ১০০ মার্কিন ডলার বেশি খসবে পকেট থেকে। মানে ভারতীয় মুদ্রায় কমপক্ষে আরও আট হাজার টাকা বেশি খরচ করতে হবে একজন ক্রেতাকে! অর্থাৎ প্রায় ৪০ হাজার টাকা খরচ করলে তবে অ্যাপেল ওয়াচ (Apple Watch) সিরিজ-৮ মডেল মোবাইল ফোনে ব্যবহারের উপযোগী হয়ে উঠবে!

এছাড়াও এই সিরিজের ঘরি স্টেনলেস ও টাইটেনিয়ামের বডিতেও পাওয়া যাবে বলে ধারণা। তবে তার জন্য অনেকটাই বেশি অর্থ খরচ করতে হবে। ধারণা করা হচ্ছে স্টেনলেস স্টিল বডির জন্য ৬৯৯ মার্কিন ডলার দাম পড়বে, যা ভারতীয় মুদ্রায় ৫৫,৯০০ টাকার‌ও বেশি। আর টাইটেনিয়াম বডি পেতে হলে আরও ১০০ ডলার বেশি খরচ হবে। মানে তার দাম প্রায় ৬৪ হাজার টাকার কাছাকাছি পড়ে যাবে!

তবে এই দামের সবটাই সম্ভাব্য ধারনা। যদিও আগেও দেখা গেছে এই ধারণা থেকে আপেলের ঘোষিত দাম বড়জোর উনিশ-বিশ হয়। ফলে বহু প্রতীক্ষিত সিরিজ-৮ এর অ্যাপেল ওয়াচ (Apple Watch) পেতে গেলে পকেট থেকে মোটা টাকা যে খোসবে তা একরকম নিশ্চিত।

অ্যাপেল ওয়াচ সিরিজ-৮ এ কী কী থাকছে?

আপেল ওয়াচ (Apple Watch) সিরিজ-৮ এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য হল এর মধ্যে ইনক্লুড করা হেল্থ ফিচার। অ্যাপেল বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন এই সিরিজের স্মার্ট ওয়াচে অ্যাপেল একেবারে সঠিকভাবে ব্লাড প্রেসার মাপার বৈশিষ্ট্য যোগ করেছে। ব্যবহারকারীর ব্লাড প্রেসার যদি হঠাৎ কমে যায় বা অনেকটা বেড়ে যায় সঙ্গে সঙ্গে অ্যালার্ট দেবে। জানা গিয়েছে অ্যাপেল যে টেকনোলজি ব্যবহার করছে তাতে ব্লাড প্রেসার মাপার ক্ষেত্রে এররের মাত্রা খুবই কম।

এখনও নিশ্চিত না হ‌ওয়া গেলেও শোনা যাচ্ছে ব্লাড প্রেসারের পাশাপাশি শরীরের গ্লুকোজের মাত্রা অর্থাৎ ব্লাড সুগার মাপার প্রযুক্তিও অ্যাপেল ওয়াচ সিরিজ-৮ এ থাকতে পারে। এর পাশাপাশি স্লিপ ম্যানেজমেন্ট, অর্থাৎ সারাদিনে আপনি পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাচ্ছেন কিনা তা নির্ধারণ করার বৈশিষ্ট্য‌ও সিরিজ-৮ এ থাকছে। এর পাশাপাশি বডি ফিটনেস ঠিক রাখার জন্য আরও বেশ কিছু প্রয়োজনীয় বৈশিষ্ট্য এতে থাকবে বলে জানা গিয়েছে।

আরেকটি আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্য হল কার অ্যাক্সিডেন্ট ফিচার। ব্যবহারকারীর গাড়ি যদি হঠাৎ দুর্ঘটনার মুখে পড়ে সঙ্গে সঙ্গে এই ঘড়ি থেকেই এমার্জেন্সি নম্বরে ফোন চলে যাবে। ফোনে অ্যাপেল আগেই এই বৈশিষ্ট্য এনেছিল। তবে এবার তাদের স্মার্ট ওয়াচেও এই অ্যাক্সিডেন্ট ফিচার যোগ করায় বিষয়টি ব্যবহারকারীদের পক্ষে আরও সুবিধা জনক হল বলে মনে করা হচ্ছে।

অ্যাপেল ওয়াচ সিরিজ-৮ এ টেম্পারেচার ফিচার রাখা হচ্ছে। হঠাৎ যদি ঘরের আবহাওয়া অনেকটা বদলে যায় সঙ্গে সঙ্গে জানিয়ে দেবে এসি আপনাকে কততে চালাতে হবে, যা শরীর ঠিক রাখার জন্য পারফেক্ট হবে। গর্ভবতী মহিলাদের কথা ভেবেই এই ফিচার যোগ করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। তবে তবে অ্যাপেল ওয়াচ সিরিজ-৮ এর আউটলুক সিরিজ-৭ (Apple Watch Series 7) এর মতোই হচ্ছে বলে খবর।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!