রাজ্য

দেশপ্রেমের অনন্য নজির, টাকা জমিয়ে নেতাজির মূর্তি গড়লেন অটোচালক

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: ছোটোবেলা থেকেই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ভক্ত তিনি। ব্রিটিশ শাসনের অবসান ঘটিয়ে স্বাধীন ভারত গড়ে তোলার অন্যতম কারিগর নেতাজির দেশপ্রেম বরাবরই মুগ্ধ করতো তাঁকে, জায়গায় জায়গায় নেতাজির মূর্তি দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হতেন। আর তাই দেশপ্রেমের এক অনন্য নজির গড়ে সকলকে চমকে দিলেন নেতাজি ভক্ত সেই অটোচালক।

জানা গেছে, ওই ব্যক্তির নাম অজয় কুন্ডু। তিনি উত্তর ২৪ পরগণার বসিরহাটের বাসিন্দা। পেশায় অটোচালক। ছোটবেলা থেকেই নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ভক্ত অজয় কুন্ডু। আর তাই নিজের দীর্ঘদিনের পারিশ্রমিক জমিয়ে বসিরহাটে তিনি বানিয়ে ফেলেছেন আস্ত একটা নেতাজির মূর্তি। তাঁর এই অভিনব উদ্যোগকে কুর্নিশ জানিয়েছেন সকলেই।

বসিরহাটের ইছামতি ব্রিজের প্রবেশ দ্বারে গেলেই দেখা যাবে অটোচালক অজয় কুন্ডুর বানানো নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর মর্মর মূর্তি। সারাদিন ধরে অটো চালিয়ে যা রোজগার করেন, তা থেকে সংসার চালিয়ে, পরিবারের সদস্যদের ইচ্ছে পূরণ করেও কিছু করে টাকা অজয় কুন্ডু জমিয়ে রাখতেন। সেই জমানো টাকা দিয়েই দীর্ঘদিনের ইচ্ছে পূরণ করেছেন তিনি। বসিরহাট ঘোজাডাঙা সীমান্তে ইছামতী ব্রিজের কাছে এই মূর্তি তৈরি করেছেন তিনি।

অজয় কুন্ডু নির্মিত ওই নেতাজি মূর্তিটি প্রায় ১৩ ফুট লম্বা এবং ৫ ফুট চওড়া। সিমেন্ট বালি প্লাস্টার অফ প্যারিস এবং ব্রোঞ্জ রং দিয়ে তিনি তৈরি করেছেন মূর্তিটি। ছোটবেলা থেকেই রাজ্যের নানা জায়গায় নেতাজির মূর্তি দেখে অনুপ্রাণিত হতেন তিনি। আর তখন থেকেই নিজেও কখনো একটি নেতাজির মূর্তি বানাবেন, এই ইচ্ছেটা দৃঢ় ভাবে গেঁথে গিয়েছিল তাঁর মনে। অজয় কুন্ডু জানিয়েছেন কলকাতার শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ের নেতাজির মূর্তি তাঁর সবচেয়ে প্রিয়।

জানা গেছে, পাঁচ বছর আগে অটো চালানো শুরু করেছিলেন অজয় বাবু।তিনি জানিয়েছেন, তখন থেকেই মূর্তি বানানোর জন্য টাকা জমাচ্ছিলেন তিনি। বলা বাহুল্য, এই কাজে তাঁর পাশে ছিলেন তাঁর স্ত্রী এবং পরিবারের বাকি সদস্যরা। অবশেষে স্বপ্ন সফল হয়েছে তাঁর।মূর্তি গড়ার পর বসিরহাট অঞ্চলে জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছেন অটোচালক অজয় কুন্ডু।

জানা গেছে, মূর্তি উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক দীপেন্দু বিশ্বাস ও। তিনিই মূর্তি উদ্বোধন করেছেন বলে জানা গেছে সূত্রের খবরে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close