রাজ্য

আচমকাই মারা গেলেন বাবুল সুপ্রিয়ের মা, ফেসবুকে আবেগঘন পোস্ট কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক:একুশের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে রাজ্য জুড়ে যখন প্রস্তুতি তুঙ্গে, শাসকদলকে কোণঠাসা করার জন্য যখন কোমর বেঁধে নেমেছে বিরোধী গেরুয়া শিবির, সেসময় আচমকাই ধাক্কা খেলেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। হারালেন নিজের মাকে।

এদিন নিজের মায়ের মৃত্যু সংবাদ সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই শেয়ার করেন বাবুল সুপ্রিয়। আবেগঘন দীর্ঘ পোস্ট জুড়ে শুধুই হতাশা আর উপরওয়ালার প্রতি অভিযোগ জানান দেয়, মা ছিলেন তাঁর খুবই কাছের একজন মানুষ।

বাবুল সুপ্রিয় জানিয়েছেন, গত তিন সপ্তাহ ধরে অসুস্থ ছিলেন তাঁর মা। মৃত্যু কালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। ফেসবুকে তিনি লেখেন, “আমার মায়ের হাত দুটোকে খুব শক্ত করে ধরেছিলাম গত তিন সপ্তাহ ধরে। এক মিনিটের জন্যেও ছাড়িনি।”

এরপরই ঈশ্বরের প্রতি তাঁর অনুযোগ, “ভেবেছিলাম ভগবান, যাঁর কাছে কোনোদিন কিছু চাই নি, কখনো কিছু পাওয়ার লোভে মানত করিনি, উপোস করি নি, ৩৬৫ দিন আমিষ খেয়েছি, তিনিও নিশ্চয়ই আমার থেকে কিছু চাইবেন না। কিন্তু আমার হাত ছাড়িয়ে মা কে ছিনিয়ে নিলেন তিনি।”

বিজেপি সাংসদ আক্ষেপ করে বলেছেন তাঁর মায়ের মৃত্যুর বয়স হয় নি আরো অন্তত ১০ বছর বেঁচে থাকা উচিত ছিল তাঁর। কোভিডের ভয়ে তিনি নিজের মা বাবাকে রাজ্য থেকে দূরে নিয়ে গিয়েছিলেন। নিজের দিল্লির বাসভবনে রেখেছিলেন তাঁদের। কিন্তু তা সত্ত্বেও মৃত্যু কোপ বসাল সুখী পরিবার জীবনে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়ের মায়ের আকস্মিক প্রয়াণে এদিন শোক প্রকাশ করেছেন অনেকেই। দলীয় নেতৃত্বের সহমর্মিতায় ভরে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ার দেওয়াল। রাজ্যের বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় এদিন রাতেই নিজের ফেসবুক পেজে এই আকস্মিক মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন। ফেসবুকে বাবুল সুপ্রিয়ের সঙ্গে তাঁর মায়ের একটি ছবি শেয়ার করে তিনি লিখেছেন , “ভারত সরকারের প্রতিমন্ত্রী শ্রী বাবুল সুপ্রিয়ের মায়ের আকস্মিক প্রয়াণে আমরা শোকাহত। আমরা ওনার আত্মার চির শান্তি কামনা করি ও তাঁর পরিবারের পাশে সর্বদা আছি।”

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close