মহানগর

প্লেনের গায়ে দিব্যি খোশমেজাজে বসে মৌমাছির ঝাঁক! নাজেহাল দমদম বিমানবন্দরের কর্মীরা

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: যান্ত্রিক গোলযোগের কারণে ফ্লাইট দেরি করা একটা স্বাভাবিক ব্যাপার। অনেক সময়েই দেখা গেছে, যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে নির্ধারিত সময়ের অনেকটাই পরে ছাড়ছে বিমান। কিন্তু তাই বলে কখনো শুনেছেন মৌমাছির জন্য দেরি করে ছাড়ছে বিমান?

শুনতে অদ্ভুত হলেও এবার এমনই অভিনব ঘটনার সাক্ষী থাকল কলকাতা। দমদমের নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কর্মীরা দুদিন ধরে রীতিমতো নাজেহাল হলেন মৌমাছির উৎপাতে। শুধু তাই নয়, মৌমাছির ঝাঁক পর পর দুবার অন্তত এক ঘন্টা করে দেরি করিয়ে দিল বিমান যাত্রীদের।

প্রথম বার ঘটনাটি ঘটে রবিবার। বিকেল ৪টে নাগাদ দিল্লিগামী একটি ভিস্তারা ফ্লাইটের সামনে হঠাৎই চলে আসে এক ঝাঁক মৌমাছি। তারা প্লেনের বাইরের দিকে গায়ে রীতিমতো নিজেদের জায়গা পাকা করে নেয়। ফলে সাময়িক ভাবে বিমান ছাড়তে দেরি হয়। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য ডাকতে হয় দমকলকেও।

এ ব্যাপারে বিমানবন্দরের এক অফিসারের কথায়, “মিনিটের মধ্যে কয়েক লাখ মৌমাছি প্লেনের গায়ে জড়ো হয়, যেন ওখানেই মৌচাক বানাবে। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে জল স্প্রে করা হয় ওদের সরানোর জন্য! সাড়ে ৫ টার জায়গায় প্লেন ছাড়তে ছাড়তে বেজে যায় সাড়ে ৬টা।”

তবে ভিস্তারা এয়ারলাইন্স এইটুকুতেই নিস্তার পায় নি মৌমাছিদের হাত থেকে। সোমবার সকালে ফের ঘটে একই ঘটনা। ভিস্তারারই আরেকটা বিমানের উপরে সোমবার সকালে দেখা যায় ওই মৌমাছির ঝাঁকটিকে। সূত্রের খবর, মৌমাছির ঝাঁক এতটাই ঘন ছিল যে প্লেনের গায়ে লেখা অক্ষর পর্যন্ত ঢাকা পড়ে গিয়েছিল। মৌমাছির জন্য সোমবারের পোর্ট-ব্লেয়ারগামী বিমানটি সাড়ে ১০ টার বদলে ছাড়া হয় সাড়ে ১১টায়।

এ প্রসঙ্গে কলকাতা বিমানবন্দরের পরিচালক কৌশিক ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, পর পর দুবার এমন ঘটনা ঘটায় বিমানবন্দরের কর্তৃপক্ষ চারপাশে কোনো মৌচাক আছে কিনা ভালো করে খুঁজে দেখেছে। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় তেমন কিছুই খুঁজে পাওয়া যায় নি। যদিও সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে ইতিমধ্যে ওষুধ ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বিমানবন্দর চত্বরে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close