রাজ্য

CAA বিরোধী আন্দোলনে নেমেছিলেন সৌমিত্র বাবুরা, ‘কুকুর’ বলে কটাক্ষ করতেও ছাড়েনি বিজেপি

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: দেশ জুড়ে দিওয়ালির উৎসবের মাঝেই শোকের ছায়া নেমেছে রাজ্যে।দীপাবলির দীপ নিভিয়ে দিয়ে প্রয়াত হয়েছেন বাংলা চলচ্চিত্র জগতের প্রবাদপ্রতিম ব্যক্তিত্ব সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। তাঁর মৃত্যুতে টলিউডের তারকা থেকে শুরু করে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, শোক প্রকাশ করেছেন সকলেই।

বস্তুত, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ব্যক্তিগত ভাবে ছিলেন বামপন্থী রাজনীতির সমর্থক।তবে রাজনীতি বিষয়ে কোনোদিন সেভাবে সক্রিয় হতে দেখা যায় নি বাঙালির ফেলুদাকে। সাম্প্রতিক অতীতে চোখ রাখলে দেখা যায়, সক্রিয় না থাকলেও রাজনীতির দলাদলির আঁচ লেগেছিল তাঁর গায়েও।

গত বছরের শেষ দিকে যখন কেন্দ্রীয় সরকারের সিএএ এনআরসি এবং এনপিআর -এর বিরুদ্ধে গোটা দেশ জুড়ে বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল, তখন চুপ করে থাকতে পারেননি ‘দাদা সাহেব ফালকে’ পুরস্কার জয়ী সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। এবিষয়ে যে সরকারের তরফে ভাবনা চিন্তা করার প্রয়োজন আছে, সে কথা জানিয়েছিলেন তিনি। পাশাপাশি, হিংসা না ছড়িয়ে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে প্রতিবাদের অনুরোধও জানিয়েছিলেন অভিনেতা। আর সেই সূত্রেই আরো অনেকের সঙ্গে তাঁকেও তিরস্কারের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।

সেসময় শুধুমাত্র সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় নয়, সিএএ, এনআরসি প্রভৃতি বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের সমালোচনা করেছিলেন বাঙালি বুদ্ধিজীবীদের অনেকেই। প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন অপর্ণা সেন, শুভাপ্রসন্ন ভট্টাচার্য, স্বস্তিকা মুখার্জী, সব্যসাচী চক্রবর্তী, কঙ্কনা সেন শর্মা, রূপম ইসলাম প্রমুখ বাংলা সাংস্কৃতিক জগতের নক্ষত্ররা। নাম না করে সিএএ, এনআরসি বিরোধী ব্যক্তিদের “তৃণমূলের পোষা কুকুর” বলা হয়েছিল রাজ্য বিজেপির তরফে। বিতর্কিত মন্তব্যটি করেছিলেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। তিনি বলেছিলেন, “কিছু কিছু বুদ্ধিজীবীদের মমতা ব্যানার্জি টাকা দিয়েছেন। ওঁরা তৃণমূলের পোষা কুকুর।” বলা বাহুল্য, নাম না করলেও বিজেপি নেতার আক্রমণের নিশানায় বাকীদের সঙ্গে ছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ও।

মন্তব্য করেছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও। সিএএ, এনআরসি বিরোধীদের উদ্দেশ্য করে তাঁর বক্তব্য ছিল, “এই ননসেন্স গুলো জানেই না যে যেখানেই যাবেন আপনাকে কাগজ দেখাতে হবে। এভাবে মিথ্যা প্রচার করে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে।” আজ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকাহত রাজনৈতিক তথা চলচ্চিত্র জগত। তাই আজকের দিনেই আরো বেশি করে মনে পড়ে যায় সরকারের সমর্থন না করায় বর্ষীয়ান অভিনেতার প্রতিও পরোক্ষে ধেয়ে আসা আক্রমণের কথা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close