fff
দেশরাজনীতি

‘চুরি করলে, গান্ধী পরিবার আইনের উর্ধ্বে নয়’,তোপ BJP নেতার

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ বিজেপি (BJP) ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলায় (National Herald Case) কংগ্রেসকে  (Congress) চেপে ধরার জন্য কোমর বাঁধছে। ইতিমধ্যেই ইডি (ED) রাহুল গান্ধী এবং সোনিয়া গান্ধীকে দীর্ঘ সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। দিল্লীর রাজনৈতিক পরিস্থিতি উত্তাল হয়ে উঠেছে সোনিয়া ও রাহুলকে ই ডি (ED) এর পাঠানো সমনকে কেন্দ্র করে। বিজেপি (BJP) এর অভিযোগ গান্ধী পরিবার (Gandhi Family) বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাঁদের প্রভাবকে অনৈতিকতার কাজে লাগিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তাঁরা অনৈতিকভাবে তাঁদের প্রভাব খাটিয়ে নিজেদের আইনের ঊর্ধ্বে ভাবতো। এমনটাই দাবি বিজেপি (BJP) এর। কিন্তু গান্ধী পরিবারকে (Gandhi Family) এবার জবাব দিতে হবে আইনের কাছে। তাঁরা আইনের ঊর্ধ্বে নন। বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনটাই দাবি করেছে বিজেপি (bjp) নেতৃত্ব।  ২০১২ সালের ১ নভেম্বর বিজেপি (bjp) নেতা সুব্রহ্মনীয়ম স্বামী সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে দিল্লী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে একটি মামলা দায়ের করেন। স্বামী দাবি করেন সোনিয়া ও রাহুল তাঁদের কোম্পানি ‘ইয়ং ইন্ডিয়ান’ এর নাম করে বিপুল পরিমাণ জমি আত্মসাৎ করেছেন। যার মূল প্রায় ভারতীয় মুদ্রায় ষোলোশো কোটি টাকা। স্বামী আরো দাবি করেন, ইয়ং ইন্ডিয়ান নামে একটি কোম্পানি ২০১০ সালে তৈরি হয় যার পুঁজি ছিলো পাঁচ লক্ষ টাকা। ২০১২ সালের মধ্যে এর পুঁজি এসে দাঁড়ায় পাঁচ হাজার কোটি টাকায়। এছাড়াও প্রায় একশো কোটি টাকা সুদহীন ঋণ নেওয়া হয় এই কোম্পানিকে সামনে রেখে, যা আর ফেরত দেওয়া হয়নি। এই দুর্নীতির মাধ্যমে ন্যাশনাল হেরাল্ড (National Herald) পত্রিকার মালিকানা হস্তগত করেন সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধী ; এমনটাই দাবি করেন সুব্রহ্মনীয়ম স্বামী।

এখন এই মামলাই চলছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ED) এর তত্ত্বাবধানে। এই দুর্নীতি নিয়ে কংগ্রেস (Congress) এবং গান্ধী পরিবার (Gandhi Family) এর প্রতি সুর চড়িয়েছে বিজেপি (BJP) নেতৃত্ব।

বৃহস্পতিবার একটি সাংবাদিক সম্মেলনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিজেপি (bjp) এর জাতীয় মুখপাত্র গৌরব ভাটিয়া। ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলা (National Herald Case) এবং কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলোর বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তোলার জন্য কংগ্রেস (Congress) ও গান্ধী পরিবারকে (Gandhi Family) কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন।

গৌরব ভাটিয়া গান্ধী পরিবারকে (Gandhi Family) নিশানা করে সাংবাদিকদের বলেন, “প্রথমে আপনারা চুরি করবেন। দেশজুড়ে নৈরাজ্য ছড়ানোর চেষ্টা করবেন। গান্ধীরা এই দেশের আইনের ঊর্ধ্বে নন।”

বিজেপি (bjp) নেতা গৌরব ভাটিয়া দাবি করেন সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীকে জবাবদিহি করতে হবে। তিনি গান্ধী পরিবারকে (Gandhi Family) উদ্দেশ্য করে বলেন, “ইয়ং ইন্ডিয়ান এর ৩৮ শতাংশ শেয়ার আপনাদের হস্তগত, এটা কি মিথ্যা? গান্ধী পরিবারই (Gandhi Family) যে ইয়ং ইন্ডিয়ান এর সমস্ত কিছু নিয়ন্ত্রণ করেন, এটা কি মিথ্যা? প্রয়াত মোতিলাল ভোরাকে দোষারোপ সিদ্ধান্ত কংগ্রেস (Congress) এর মধ্যে কে গ্রহণ করেছিলেন?….ডটেক্স ইয়ং ইন্ডিয়ান কে এক কোটি টাকা ঋণ দেয়, যা এমন একটি সংস্থা যার মূল্য শূণ্য। কেন একটা কোম্পানি ইয়ং ইন্ডিয়ান কে এমনভাবে ঋণ দিলো?” প্রশ্ন তোলেন গৌরভ ভাটিয়ে।

সাংবাদিকদের তিনি আরো বলেন, “গান্ধী পরিবার (Gandhi Family) দুর্নীতি করতে বা কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলোকো হুমকি দিতে ভয় পায়না।”

হেরাল্ড হাউসে ইয়ং ইন্ডিয়ান এর অফিস বৃহস্পতিবার সিল করে দেয় ই ডি (ED)। দিল্লী পুলিশ কংগ্রেস (Congress) এর পার্টি অফিস এবং সোনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীর বাড়ির সামনে ব্যারিকেড করে দেয়। এই প্রসঙ্গে সংসদ চত্বরে প্রশ্ন করা হয় রাহুল গান্ধীকে। রাহুল সংসদ ভবনের বাইরে সাংবাদিকদের বলেন, “এটা ভয় দেখানো প্রক্রিয়া। কিন্তু আমরা ভয় পাচ্ছিনা। আমরা নরেন্দ্র মোদিকে ভয় পাইনা।”

রাহুলের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে বিজেপি (bjp) মুখপাত্র গৌরভ ভাটিয়া বলেন, “রাহুল গান্ধী আইনকে ভয় পাবেন এবং এই কঠিন প্রশ্নগুলোর উত্তর তাঁকে দিতে হব।”

যদিও পরে রাহুল গান্ধী হিন্দিতে ট্যুইট করেন এই প্রসঙ্গে। সেখানে তিনি লেখেন, “সত্যকে ব্যারিকেড করে চাপা দেওয়া যায়না। তোমরা যা ইচ্ছা করতে পারো, কিন্তু আমি প্রধাণমন্ত্রীকে ভয় পাইনা। আমি দেশের স্বার্থে সবসময় কাজ করে যাবো। শোনো এবং বুঝে নাও।”

বৃহস্পতিবার সংসদের দুই কক্ষেই কংগ্রেস (Congress) সাংসদরা ই ডি (ED) এর ‘অতিসক্রিয়তা’ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এই প্রসঙ্গল তাঁদের প্রতিবাদে সংসদের কাজও ব্যহত হয়।

ন্যাশনাল হেরাল্ড মামলা (National Heral Case) নিয়ে কংগ্রেসকে (Congress) এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে রাজি নয় কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি (bjp)। গান্ধী পরিবার (Gandhi Family) এর নাম এই মামলায় জড়িয়ে থাকার ফলে, বিজেপি (bjp) এর আক্রমণের তির এবার সরাসরি সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল গান্ধীর দিকে। যদিও দেশজুড়েই কংগ্রেস (Congress) এই ঘটনাকে বিজেপি (bjp) এর চক্রান্ত এবং কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা দিয়ে ভয় দেখানোর চেষ্টা বলেই প্রচার করছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভেও সামিল হয়েছেন কংগ্রেস (Congress) কর্মীরা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!