খবররাজ্য

‘চিন্তন শিবিরে’ চিন্তা বদল পদ্মের, নেতা নয় তৃণমূল থেকে কর্মী চাইছে বিজেপি

মহানগর বার্তা ডেস্ক: বিধানসভা নির্বাচনের আগে জেলায় জেলায় বড় মঞ্চে বেঁধে যোগদান মেলা করতেন দিলীপ ঘোষ সহ বঙ্গ বিজেপির তৎকালীন নেতারা। অনেক যোগদান মেলায় কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব‌ও হাজির থাকত। সেইসব যোগদান মেলায় তৃণমূলের ছোট মেজ সেজ এমনকি রাজ্যস্তরের নেতারাও পদ্ম পতাকা ধরে বিজেপিতে যোগ এসেছিলেন। কিন্তু তার ফল কী হয়েছে তা কম বেশি সকলেই জানেন। এমনকি যে সমস্ত তৃণমূল নেতারা বিজেপিতে এসে ২১ এর নবান্ন দখলের লড়াইয়ে জিততে পারেননি, তাঁদের অনেকেই আবার গত এক বছরে পুরনো দলে ফিরে গিয়েছেন। তাই এবার আর নেতারা নয়, ২৪ এর লোকসভার দিকে তাকিয়ে তৃণমূল কর্মীদের দলে টানার পরিকল্পনা নিল বঙ্গ বিজেপি।

ভাঙড়ের বেদিক ভিলেজে তিন দিনের চিন্তন শিবির শেষে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার বলেছেন, “তৃণমূল কর্মীদের ভাবতে হবে তাঁরা এই দুর্নীতিগ্রস্ত দলটা করতে চান কিনা। যদি বিজেপিতে আসতে চান তবে স্বাগত।” সেই সময় সুকান্তবাবুকে প্রশ্ন করা হয়, কোন‌ও তৃণমূল নেতা বিজেপিতে আসতে চাইলে তাকে নেওয়া হবে? উত্তরে সুকান্ত মজুমদার জানান, নেতাদের নিয়ে তাঁরা আপাতত কিছু ভাবছেন না। মুখে না বললেও বিজেপির রাজ্য সভাপতির কথা থেকে একরকম পরিষ্কার, অতীতের ভুল তাঁরা আর করতে চাইছেন না।

এই প্রসঙ্গে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় কেন্দ্রীয় সম্পাদক অনুপম হাজরা। তিনিও একসময় তৃণমূল থেকেই বিজেপিতে এসেছিলেন। তবে ২১ এর বিধানসভা ভোটের ফলের দিকে ইঙ্গিত করে অনুপম বলেন, “অতীতের ভুল যাতে আর করা না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।” পাশাপাশি যে তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে লড়াই, তাদের‌ই দলে নিলে নিচুতলার বিজেপি কর্মীরা যে ক্ষুব্ধ হন তা মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি। উল্লেখ্য বিধানসভা ভোটের সময় দেখা গিয়েছিল অনেক জায়গায় নানান ঘটনায় অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাদের দলে নেওয়ার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন বিজেপি আদি কর্মীরা।

এক্ষেত্রে একটা প্রশ্ন উঠছে। কয়েকদিন আগেই বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষকে দলে স্বাগত জানিয়ে বলেছিলেন, তাঁর জন্য জায়গা রাখা আছে! এখন প্রশ্ন, তৃণমূলের কোনও হেভিওয়েট নেতা যদি বিজেপিতে যোগ দিতে চান, তবে কি তাঁকেও ফিরিয়ে দেওয়া হবে? নাকি এই নিয়ম শুধুমাত্রই চুনোপুঁটিদের জন্য, রাঘব বোয়ালদের জন্য আগের মতোই দরজা হাট করে খোলা থাকবে?

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close