খবররাজ্য

মমতাদি, তৃণমূলের নাম বদলে দিন! ওই দল মাটির মানুষের কথা ভাবেনা: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর

মহানগর বার্তা ডেস্ক : নবান্ন অভিযানে বিজেপি কর্মীদের উপর নির্যাতন চালিয়েছে পুলিশ  প্রশাসন, এই দাবিতে আগেই সরব হয়েছিল রাজ্য বিজেপির নেতারা। এবার তাঁদের হয়ে ব্যাট ধরলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ। মঙ্গলবার নবান্ন অভিযানে বিজেপি(BJP) কর্মীদের উপর হওয়া পুলিশি ‘অত্যাচারের’ প্রসঙ্গ তুলে তৃণমূল ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে একযোগে আক্রমণ করতে দেখা গেল তাঁকে। পুলিশের লাঠি চার্জের কথা উল্লেখ করে রবিশঙ্কর বলেন, ‘সিপিএম সরকার আপনার উপর লাঠি চালিয়েছিল, আপনি কি সেকথা ভুলে গেছেন? এখন আপনিও লাঠিচার্জ শুরু করেছেন! যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মাটি থেকে উঠে এসেছিলেন এবং বামেদের অত্যাচার সহ্য করে একজন মহান নেত্রী হয়েছিলেন, আজ তাঁরই পুলিশ বিজেপিকে নিপীড়ন করছে।’

এরপরেই লকেট চট্টোপাধ্যায় সহ একাধিক বিজেপি নেতা-নেত্রীদের গ্রেফতারের কথা তুলে ধরেন তিনি। তাতে তাঁকে বলতে শোনা যায়, ‘লকেট চট্টোপাধ্যায় থেকে শুরু করে আমাদের প্রত্যেক বিধায়কদের অপমান করেছে প্রশাসন। ট্রেন বন্ধ করে দেওয়া হয়। ব্যারিকেড দিয়ে দেওয়া হয়। এরকম নৃশংসতা আমি দেখিনি।’ আর এই ঘটনার জন্য সরাসরি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দায়ি করে তিনি বলেন, দিদি, আপনি তৃণমুল করা ছেড়ে দিন। আপনার দল আর মাটির মানুষের কথা ভাবে না। তৃণমূলের ভিতরে কি উত্তরাধিকার সমস্যা চলছে? তবে নজর ঘোরাতেই কি হিংসার আশ্রয় নেওয়া হয়েছে?”

পাশাপাশি প্রসাদ আরও বলেন যে, ‘আপনি যত বেশি বিজেপি(BJP) কর্মীদের অত্যাচার করবেন, তত শক্তিশালী বিজেপি(BJP) আপনার মুখোমুখি হবে। দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী দেশে জরুরি অবস্থা জারি করে বিরোধী নেতাদের কণ্ঠস্বর দমন করার চেষ্টা করেছিলেন। পরে তাকে ক্ষমতা হারাতে হয়। আপনি ক্ষমতার নেশায় বিজেপি কর্মীদের ওপর লাঠিচার্জ করছেন।’

আরও পড়ুন: “আমরা হাতে চুড়ি পরে বসে নেই”, বিজেপিকে মারমুখী হুঁশিয়ারি তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ’র

প্রসঙ্গত, গতকাল বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে ধুন্ধুমার লেগে যায় কলকাতা ও হাওড়ার বেশ কিছু অঞ্চলে। বিজেপির মিছিল দমনে যাবতীয় ব্যবস্থা করে রেখেছিল পুলিশ। রাস্তা ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়। বিজেপির(BJP) মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার গ্যাস ব্যবহার করে পুলিশ। বিজেপি(BJP) সমর্থকরাও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাল্টা ইট, পাথর, বাঁশ ছোড়েন। ভেঙে চুরমার করে দেওয়া হয় পুলিশের কিয়স্ক। অন্যদিকে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী, লকেট চট্টোপাধ্যায় ও রাহুল সিনহাকে অভিযান শুরুর দিকে গ্রেফতার করলেও পরে ছেড়ে দেওয়া হয়।

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close