বিনোদন

দায়িত্বজ্ঞানহীন সংবাদ পরিবেশন! রিপাবলিক, টাইমস নাও এর বিরুদ্ধে এবার এক জোট খানেরা

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃএবার রিপাবলিক টিভির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলেন বলিউডের প্রখ্যাত পরিচালক ও প্রযোজকগণ। ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন ভাবে খবর পরিবেশনের’ অভিযোগে ওই টিভি চ্যানেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে একটি সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থার সূত্রে। সোমবারই এ ব্যাপারে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে বলিউডের বড়সড় মোট ৩৪টি প্রোডাকশন হাউজ।

 

জানা যাচ্ছে, হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির বিরুদ্ধে বিশেষ কিছু অপমানজনক শব্দ ব্যবহার করেছেন রিপাবলিক টিভির সংবাদ পরিবেশকরা, এমনটাই অভিযোগ এসেছে বলিউডের তরফে। মূলত “বলিউডের নোংরা পরিষ্কার করা প্রয়োজন”, “ভারতের সবচেয়ে নোংরা ইন্ডাস্ট্রি”, “কোকেন ও ড্রাগে মজে থাকা বলিউড” প্রভৃতি বাক্যাংশ ব্যবহারই ওই চ্যানেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য করেছে বলিউডকে। অভিযোগকারী প্রযোজক ও পরিচালকগণের দাবি, বলিউডের বিরুদ্ধে আনা এসমস্ত অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

 

শুধু মাত্র রিপাবলিক টিভির বিরুদ্ধেই নয়, মামলা দায়ের করা হয়েছে ওই চ্যানেলের কর্তৃপক্ষ অর্ণব গোস্বামী ও প্রদীপ ভান্ডারীর বিরুদ্ধেও। জানা গেছে, ‘টাইমস নাও’ এবং তার সঞ্চালক রাহুল শিবশঙ্কর ও রবিকা কুমারের বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেছে বলিউড। বস্তুত বলিউডের মতো দেশের জনপ্রিয় একটিইন্ডাস্ট্রির এহেন মানহানির প্রচেষ্টা মেনে নেননি ওই পরিচালক ও প্রযোজকগণ।এছাড়া বলিউডের বিশেষ কিছু ব্যক্তির বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অপমানজনক প্রচার করার বিরুদ্ধেও সোচ্চার হয়েছেন তাঁরা।

 

মামলায় দাবি করা হয়েছে এযাবৎ ওই চ্যানেলগুলিতে বলিউডের বিরুদ্ধে যত প্রচার চালানো হয়েছে, যত মানহানিকর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে, তার সমস্ত সরিয়ে দিতে হবে। অভিযোগকারী সংস্থা গুলির মধ্যে আছে, অক্ষয় কুমার, অনুস্কা শর্মা, শাহরুখ খান, আমির খান এবং অজয় দেবগনের প্রোডাকশন হাউজ। এছাড়া রোহিত শেঠি, কবীর খান, বিদু বিনোদ চোপড়া, রাকেশ রোশন, জোয়া আখতার, বিশাল ভরদ্বাজ প্রমুখ পরিচালকরাও এই তালিকায় রয়েছেন।

 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত জুন মাসে বলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের আকস্মিক মৃত্যু হয়। বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার করা হয় তাঁর ঝুলন্ত দেহ। এরপরেই এই আকস্মিক মৃত্যুর কারণ হিসেবে উঠে আসে বলিউডের স্বজনপোষন বিতর্ক। উজ্জ্বল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অন্ধকার দিকটি সামনে এলে দেশ জুড়ে শুরু হয় চর্চা। রিপাবলিক টিভি ও অন্যান্য কিছু টিভি চ্যানেল এই সুযোগে কাঁদা মাখাতে শুরু করে বলিউডের ভাবমূর্তিতে। এতদিন পর তার বিরুদ্ধেই গর্জে উঠল বলিউডের একাংশ।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close