আন্তর্জাতিক

ভুটানের ভিতরে আস্ত গ্রাম বানিয়েছে চীন, এবার টার্গেট কি ভারত? বিতর্ক তুঙ্গে

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: ভারতের উত্তর পশ্চিম সীমান্তে সম্প্রতি চিনা আগ্রাসন যেভাবে মাথা চারা দিয়ে উঠেছে তাতে নিঃসন্দেহে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে নয়া দিল্লির কপালে। তবে, শুধু উত্তর পশ্চিমে ভারতের সীমান্তেই নয়, চিনা ফৌজের নজর পড়েছে ভূটানেও। সম্প্রতি উঠে আসা তথ্য থেকে জানা গেছে, প্রতিবেশী দেশ ভূটানের সীমানার ভিতরেই আস্ত একটা গ্রাম বানিয়ে ফেলেছে চিন।

সম্প্রতি, চিনেরই এক সংবাদ প্রযোজকের সোশ্যাল মিডিয়া স্টেটাসে প্রকাশ্যে এসেছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। ওই চিনা ব্যক্তির ট্যুইট থেকে জানা গেছে, ডোকলাম মালভূমি থেকে মাত্র ৯ কিলোমিটার দূরে, ভুটানের ভিতরে ঢুকে চিন একটি আস্ত গ্রাম তৈরি করে ফেলেছে। যদিও পরে সেই টুইট তিনি মুছে দেন। কিন্তু ওই প্রযোজকের পোস্ট করা ছবি ও উপগ্রহ মানচিত্র দেখে বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, ভুটান সীমান্তের দু’কিলোমিটারেরও বেশি ভিতরে এসে ‘পাংদা’ নামে ওই গ্রামটি তৈরি করেছে চিন।

বস্তুত, ভারত, চিন ও ভুটানের সংযোগস্থলে এই ডোকলাম মালভূমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই বিতর্ক বর্তমান। এখানেই তিন বছর আগে চিনা সেনারা রাস্তা তৈরির চেষ্টা চালিয়েছিল যা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে সীমান্ত পরিস্থিতি ছিল উত্তেজনাপূর্ণ। সেই পুরোনো বিতর্কই ফের মাথা চারা দিয়ে উঠেছে ভূটানের ভিতর চিনা গ্রাম তৈরির খবরে।

ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রের খবরে জানা গেছে, শুধুমাত্র ডোকলাম বা পূর্ব লাদাখই নয়, ভারত চিনের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর বিভিন্ন সেক্টরে সক্রিয় হয়ে উঠেছে চিনা সেনাবাহিনী। লক্ষ্যণীয় এবং তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে বাড়ানো হচ্ছে চিনা সাঁজোয়া বাহিনী। শুধু তাই নয়,মধ্য সিকিমের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায়, হিমাচলের কৌরিক পাসের ও-পারে চুরুপ গ্রামে রাস্তা তৈরির কাজ করছে চিনা সেনা। এছাড়া, উত্তরাখণ্ডে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে মাত্র চার কিলোমিটার দূরেই তৈরি করা হয়েছে বাঙ্কারও।

ভারতে ভুটানের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল ভেতসপ নামগিয়েল অবশ্য চিনের এই জমি জবরদখলের দাবি মানতে চাননি। তিনি স্পষ্টই বলেছেন, ‘‘ভুটানের ভিতরে কোনও চিনা গ্রাম নেই।’’ তবে ভুটান ও চিনের মধ্যে যে সীমান্ত আলোচনা চলছিল, তা মেনে নিয়েছেন তিনি। ভারতের কূটনৈতিক মহলের মতে, সমস্ত পরিস্থিতি পর্যালোচনা করলে বোঝা যায়, সীমান্ত অঞ্চলে স্থায়ী চাপ সৃষ্টি করে দক্ষিণ এশিয়ার মূল কর্তৃত্ব নিজের দখলে রাখার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে চিন।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close