দেশহেলথ

পুজোর আগে বড়ো ধাক্কা! দেশে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু দাবি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: দেশজুড়ে করোনা মহামারীতে ক্রমশ ভয়াবহতা উর্ধ্বমুখী। এর মধ্যেই কেন্দ্রীয় সরকারের তরফেও ঘোষণা করা হল ভারতে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়ে গেছে। তবে পাশাপাশি কেন্দ্রের তরফে এও জানানো হয় যে এই গোষ্ঠী সংক্রমণ কয়েকটি জেলার মধ্যেই সীমাবদ্ধ আছে।

রবিবার সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের বরাতে, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন বলেছেন, করোনা ভাইরাসের গোষ্ঠী সংক্রমণ সীমিত সংখ্যক রাজ্যের কয়েকটি জেলায় সীমাবদ্ধ। অর্থাৎ এই ঘোষণার মাধ্যমে কেন্দ্রের তরফে স্পষ্ট করা হয়েছে, গোটা ভারতবর্ষ এখনই গোষ্ঠী সংক্রমণের আওতায় পড়ছে না।

পিটিআইয়ের সূত্রে জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলায় গোষ্ঠী সংক্রমণের কথা বলেছিলেন। সেই প্রসঙ্গে তুলে হর্ষবর্ধনকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়। তিনি জানান, “পশ্চিমবঙ্গসহ বিভিন্ন রাজ্যে, বিশেষত ঘনবসতিপূর্ণ অঞ্চলে কোভিড-১৯ গোষ্ঠী সংক্রমণ সংঘটিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে, সারা দেশে এটি ঘটছে না। সম্প্রদায়ের সংক্রমণ নির্দিষ্ট কয়েকটি জেলায় সীমাবদ্ধ।” এখনই ভারতে করোনাভাইরাসের কোনও রূপান্তরও শনাক্ত করা যায়নি। তবে কেন্দ্র এই প্রথমবার সম্প্রদায়ের সংক্রমণকে স্বীকার করেছে।

প্রসঙ্গত, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছিলেন যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা গোষ্ঠী সংক্রমণের কোনও মানসম্মত সংজ্ঞা দেয়নি। তবে গত জুন মাসে ‘ইন্ডিয়া টুডে’র এক প্রশ্নের জবাবে, আইসিএমআর-এর এক প্রতিনিধি বলেছিলেন, “গোষ্ঠী সংক্রমণ শব্দটি নিয়ে বিতর্ক চলছে। আমি মনে করি ‘WHO’ এর পক্ষেও এর কোনও সংজ্ঞা দেওয়া হয় নি।ভারত এত বড় একটি দেশ এবং এর প্রসার এত কম।” এছাড়াও আইসিএমআর প্রধান বলরাম ভার্গব বলেছিলেন, “ভারত গোষ্ঠী সংক্রমণের সম্প্রচারে নেই এবং আমি এটির উপর জোর দিতে চাই।”

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close