খবররাজ্য

পড়াশুনা করে চাকরির চেয়ে, চপ মুড়ি বিক্রি করে স্বল্প রোজগার ভালো: তৃণমূল বিধায়ক মনোরঞ্জন ব্যাপারী

মহানগর বার্তা ডেস্ক : খড়গপুর স্টেডিয়ামে উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পের অনুষ্ঠান থেকে পুজোতে অতিরিক্ত আয়ের পরামর্শ দিয়েছিলেন মমতা ব্যানার্জী। বাংলার মানুষকে তিনি বলেছিলেন, পুজোতে টুল আর টেবিল নিয়ে ঘুগনি বিক্রি করুন। দেখবেন কত লাভ হচ্ছে। বিক্রি করে শেষ করতে পারবেন না। আর তাঁর এই মন্তব্যের পর থেকেই সমলোচনার ঝড় বইছে। বিরোধী দলগুলি কটাক্ষ করতেও পিছপা হয়নি। অন্যদিকে মাননীয়াকে সমর্থন করছেন একাধিক তৃণমুল নেতা ও বিধায়ক। যার মধ্যে অন্যতম হলেন বলাগড়ের তৃণমূল বিধায়ক মনোরঞ্জন ব্যাপারী। মমতাকে সমর্থন করে একটি ফেসবুক পোস্ট করেছেন তিনি। আর যা ঘিরেই জল্পনার সূত্রপাত।

মনোরঞ্জন ব্যাপারীর ফেসবুক পোস্ট

তিনি তাঁর ফেসবুক পোস্ট লিখেছেন, “যারা প্রচুর পড়াশোনা করে অধিক রোজগারের জন‍্য চাকরবৃত্তিকেই জীবনের পরমার্থ মনে করে। তার চাইতে যে লোকটি স্বাধীনভাবে চপ মুড়ি তেলে ভাজা বিক্রি করে সামান‍্য রোজগার করে সৎভাবে জীবন যাপন করে, তার সন্মান অনেক বেশি বলে আমি মনে করি।” অর্থাৎ তৃণমুল বিধায়কের করা এই মন্তব্য থেকেই পরিষ্কার যে তিনি মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই সমর্থন করছেন। তারপর থেকেই একাধিক মন্তব্য ওই পোস্ট ঘিরেই। একজন লিখেছেন, “তৃণমূল করে করে আপনিও তৃণভোজী হয়ে যাচ্ছেন। বাঙালীর দুর্ভাগ্য।” ওপর একজন মন্তব্য করেছেন, “আপনি দলিত সাহিত্য অ্যাকাডেমির চাকুরিটা ছেড়ে দিন।” তৃতীয় এক ব্যক্তি বলেছেন, “দিদিকে বলুন চাকরি দেওয়ার ক্ষমতা নেই। বলতে যে যার মতো রোজগার করো।”

প্রসঙ্গত, চার দিনের মেদিনীপুর সফরে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী একাধিক চাকরির নিয়োগপত্র তুলে দেন। পাশাপাশি মানুষের পাশে থাকার বার্তা, একাধিক প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। অন্যদিকে প্রকল্পের মঞ্চ থেকে তিনি বলেন, “১০০০ টাকা জোগাড় করুন। তা দিয়ে একটা কেটলি কিনুন আর কয়েকটা মাটির ভাঁড় নিন। প্রথম সপ্তাহে বিস্কুট নিলেন। তারপরের সপ্তাহে মাকে বললেন একটু ঘুগনি তৈরি করে দিতে। তারপরের সপ্তাহে একটু তেলেভাজা করলেন। একটা টুল আর একটা টেবিল নিয়ে পুজোতে বসলে দেখবেন প্রচুর লাভ হচ্ছে। কোনও কাজকে ছোটো করবেন না।” এছাড়াও এর আগে রোজগারের পথ হিসেবে ‘চপ শিল্প’ এবং কাশফুলের বালিশ তৈরির কথাও বলেছিলেন মাননীয়া।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close