রাজ্য

“মানুষ বাঁচলে তবে তো রাজনীতি” ভোটের আগে বার্তা কান্তি গাঙ্গুলির

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: দেশ জুড়ে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের মাঝেই বেজে উঠেছে ভোটের দামামা। রাজ্যে রাজ্যে শুরু হচ্ছে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি। বিহারের পর পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনও প্রায় আসন্ন। এমতাবস্থায় করোনা পরিস্থিতি কি হয়ে উঠবে ভোট সংগ্রহের জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর হাতিয়ার? সিপিআইএম নেতা কান্তি গাঙ্গুলীর কথায়, “মানুষ বাঁচলে তবে তো রাজনীতি।”

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দেশ জুড়ে গত মার্চ মাস থেকে শুরু হয়েছিল লকডাউন প্রক্রিয়া। তখন থেকেই দরিদ্র অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে সিপিআইএম-এর তরফ থেকে নানা জায়গায় চালু করা হয়েছিল শ্রমজীবী ক্যান্টিন। গত বুধবার ঝাড়গ্রামের এমন একটি শ্রমজীবী ক্যান্টিন পরিদর্শনে যান প্রবীন সিপিআইএম নেতা এবং প্রাক্তন মন্ত্রী কান্তি গাঙ্গুলী।

সিপিআইয়ের ছাত্র ও যুব সংগঠনের উদ্যোগে চালু করা এই শ্রমজীবী ক্যান্টিন লকডাউনের পরেও বন্ধ হয় নি। এখান থেকে সস্তায় গরীব মানুষকে খাবার দেওয়া হয়। ঝাড়গ্রামের ক্যান্টিন দেখে এদিন কান্তি গাঙ্গুলী ছাত্র যুবদের উদ্দেশ্যে বলেন, “এভাবেই তোমরা মানুষের কাজ করে যাও। মানুষ বাঁচলে তবে তো রাজনীতি। কিন্তু সেটা তৃণমূল বা বিজেপির মতো দলগুলো ভাবে না।” শুধু তাই নয়, শ্রমজীবী ক্যান্টিনের কাজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য এদিন অর্থ সাহায্যও করেন কান্তি গাঙ্গুলী। পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য প্রতিবন্ধী সম্মিলনীর তরফ থেকে ২০০০ টাকা ক্যান্টিনের জন্য দেন তিনি।

লকডাউনের সময় থেকেই সিপিআইএম এর ছাত্র ও যুব সংগঠনগুলি রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে চালু করেছিল শ্রমজীবী ক্যান্টিন। করোনা আবহে গরীব মানুষেরা যাতে অভুক্ত না থাকেন সেই উদ্দেশ্যেই এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছিল। কিন্তু আনলক প্রক্রিয়ায় এখান পরিস্থিতি প্রায় স্বাভাবিক হওয়ার পরেও বন্ধ হয় নি শ্রমজীবী ক্যান্টিন। ঝাড়গ্রামে গত ১লা অক্টোবর থেকে চলছে এই ক্যান্টিন। এখানে মাত্র কুড়ি টাকায় প্রতিদিন দুপুরে খাবার দেওয়া হয়। কখনো মাছ ভাত, কখনো মাংস ভাত, কখনো ডিম ভাত আবার কখনো নিরামিষ খাবারও দেওয়া হয়। সপ্তাহের সাত দিনই এই ক্যান্টিন চলে। জানা গেছে, যাঁদের দাম দেওয়ার ক্ষমতা নেই একেবারেই, তাঁদের বিনামূল্যেই খাবার দেওয়া হয়। মূলত যাদবপুরের শ্রমজীবী ক্যান্টিন দেখেই ঝাড়গ্রামেও একটি স্থায়ী ক্যান্টিন চালু করার ভাবনা মাথায় আসে বলে জানিয়েছেন উদ্যোক্তারা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close