খবররাজ্য

‘বিনা প্রতিবাদে সুরসুর করে পুলিশের গাড়িতে উঠে গেলেন’, শুভেন্দুকে ‘সুখের পায়রা’ বললেন দেবাংশু

মহানগর বার্তা ডেস্ক : বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি বিভিন্ন জায়গায়। তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তুলে এই কর্মসূচী নিয়েছে গেরুয়া শিবির। নবান্ন অভিযানের শুরুতেই একাধিক বিশৃঙ্খলা ছবি সামনে আসছে। এরই মাঝে পুলিশের হাতে আটক হলেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী, লকেট চট্টোপাধ্যায় ও রাহুল সিনহা। বিরোধী দলনেতা আটক হওয়ার পর তাঁকে কটাক্ষ করেছেন তৃণমুল নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য(Debangshu Bhattacharya)। কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তৃণমুল মুখপাত্র কুণাল ঘোষও। দেবাংশু বলেন, “পুলিশ অ্যারেস্ট করার কথা বলতেই কোনো প্রতিবাদ না জানিয়ে সুরসুর করে গাড়িতে উঠে গেলেন কেন?”

আরও পড়ুন:’মুসলিম ছেলেকে বিয়ে করেন নি কেন?’ প্রশ্ন শুনে সপাট জবাব দিলেন নুসরাত

এখানেই থেমে থাকেননি তৃণমুল নেতা। আবারও কটাক্ষের সুরে শুভেন্দু অধিকারীর উদ্দেশ্যে বলেন, “ওসব জলকামান আর টিয়ার গ্যাসের ঝক্কি কর্মীরাই সামলাক। শুভেন্দু অধিকারীর কখনো নবান্ন অভিযানে যাওয়ার ইচ্ছা ছিলই না.. প্রথম থেকেই কর্মীদের জড়ো করে নিজে কেটে পড়ার ধান্দা ছিল। হলও তাই! যে প্লেয়ারকে অপনেন্ট টিম হয়ত সবচেয়ে বেশি সিরিয়াসলি নিচ্ছিল, সেই খেলোয়াড় নিজেই মাঠে নেমে হঠাৎ নিজেরই ব্যাট দিয়ে নিজেরই উইকেটে ঠোকা মেরে, নিজেই নিজেকে আউট দেখিয়ে নিজেই আবার হাঁটতে হাঁটতে ‘ডোন্ট টাচ মাই বডি’ বলতে বলতে মাঠের বাইরে চলে গেলেন। এবার বিকেলবেলা কর্মীদের উদ্দেশ্যে টিভিতে বাইট দেবে, “অ্যারেস্ট না করলে ঠিক যেতাম! যেতে পারিনি, তাই– আসকে আমার মন ভালা নাই..।”

 

আরও পড়ুন:জ্ঞানবাপী মসজিদ চত্বরে পূজার্চনার দাবি খতিয়ে দেখবে আইন, ঘোষণা বারাণসী জেলা আদালতের

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার বেহালা থেকে সাঁতরাগাছির উদ্দেশ্যে রওনা দেওয়ার পরই দ্বিতীয় হুগলি সেতুতে ওঠার সময় আটকে দেওয়া হয় শুভেন্দুকে। আর এরপরই চরম ক্ষোভ দেখিয়ে গাড়ি থেকে নেমে পড়েন বিরোধী দলনেতা। শুভেন্দুকে বলতে শোনা যায়, “আপনারা কি ইয়ার্কি করছেন? আমাকে এখানে কেন আটকালেন? আমাকে সাঁতরাগাছি যেতে দিন।” পুলিশের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার পরই তাঁকে আটক করা হয়। নিয়ে যাওয়া হয় লালবাজারে। নবান্ন অভিযান কার্যত রণক্ষেত্র। হাওড়া ময়দানের কাছে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে দেন বিজেপি কর্মীরা। পুলিশকে লক্ষ্য করে ছোড়া হয় ইট, পাথর, বাঁশ। ভেঙে চুরমার করে দেওয়া হয় পুলিশের কিয়স্ক। বিজেপির মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে পুলিশ। রীতিমতো খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায় এক্সপ্রেসওয়েতে।

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close