রাজ্যরাজনীতি

‘ওঁর রাজনীতিতে আসা উচিত’, জল্পনার মাঝেই সৌরভ গাঙ্গুলী প্রসঙ্গে মুখ খুললেন দিলীপ ঘোষ

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: একুশের বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে, রাজনৈতিক বাদানুবাদে ততই উত্তপ্ত হচ্ছে বাংলার পরিস্থিতি। তবে ভোটের আগে যে এখনও বাংলার রাজনৈতিক মঞ্চে অনেক রঙ্গ বাকি আছে, ক্রমেই যেন স্পষ্ট হচ্ছে সেই ইঙ্গিত। সম্প্রতি সৌরভ গাঙ্গুলীর রাজনীতিতে যোগদানকে কেন্দ্র করে শুরু হয়ে জোর জল্পনা। এবার তা নিয়েই মুখ খুললেন বঙ্গ বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এদিন সাংবাদিকদের সামনে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের রাজনীতিতে যোগ দান প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন, “ওনার মতো একজন সফল মানুষের সক্রিয় ভাবে রাজনীতিতে যোগ দেওয়া উচিত।” সেই সঙ্গে তিনি এও যোগ করেন যে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে যে কোনো ব্যক্তিকেই তিনি এবং তাঁর দল নিজেদের মধ্যে জায়গা দিতে প্রস্তুত। বলা বাহুল্য দিলীপ ঘোষের মন্তব্য সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের রাজনীতিতে যোগ প্রসঙ্গে জল্পনাকে বাড়িয়ে দিল আরো কয়েকগুণ।

দুদিন আগেই হঠাৎ রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে দেখা করেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক এবং বর্তমান বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এ বিষয়ে দিলীপ ঘোষের বক্তব্য, “ওঁর রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করার সম্পূর্ণ অধিকার আছে। উনি ভারতের ক্রিকেটের প্রাক্তন অধিনায়ক এবং বর্তমানে বিসিসিআইয়ের প্রেসিডেন্ট। ওনার মতো একজন সফল মানুষের রাজনীতিতে আসা উচিত। রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বিজেপি যে কোনো ব্যক্তিকেই দলে নিতে প্রস্তুত। আমরা সবাইকেই বিজেপিতে আসার জন্য আবেদন করছি।”

বস্তুত, গত রবিবার বিকেলে আচমকাই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে হাজির হন রাজভবনে। দুজনের মধ্যে প্রায় ২ ঘন্টা আলাপ আলোচনা চলে। যদিও ঠিক কী উদ্দেশ্যে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করেছেন, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে জানা যায় নি কিছুই।

সৌরভ গাঙ্গুলির সঙ্গে বৈঠক শেষে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ট্যুইট করেন, “দাদার সঙ্গে কথা হল।” কিন্তু আলোচনার বিষয় খোলসা করেন নি তিনি। শুধু জানা গেছে, রাজ্যপালকে ইডেন গার্ডেন্স ভ্রমণ করানোর জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি নিজেও এ বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন। ফলে জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে। তবে কি এবার রাজনীতির ময়দানে গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নেবেন সৌরভ গাঙ্গুলীও? উত্তর দেবে সময়।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close