দেশ

করোনা থেকে বাঁচতে কাজে লাগছে প্রিয় মানুষের কন্ঠস্বর! অভিনব দাবি চিকিৎসকদের

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: প্রায় বছর খানেক আগে চিনের উহান প্রদেশে প্রথম দেখা মিলেছিল করোনা ভাইরাসের। তারপরই শুরু হয়েছিল ধ্বংসলীলা। আজ পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে প্রায় ৬ কোটি মানুষের প্রাণ নিয়েছে মারণ ভাইরাস। আক্রান্ত হয়েছেন তারও বেশি। টিকা আবিষ্কার নিয়ে আশার কথা শোনা গেলেও এখনও পর্যন্ত স্থায়ী সমাধান মেলে নি করোনা চিকিৎসার।

কোভিড চিকিৎসায় পুরোপুরি স্বস্তি না মিললেও সুস্থতার হার আগের থেকে বেড়েছে অনেকটাই। কিন্তু কোভিড পরবর্তী অবস্থা কতটা স্বস্তির? প্রশ্ন উঠেছে। এবার সেই কোভিড পরবর্তী চিকিৎসা নিয়েই একটু অন্য রকম বার্তা দিলেন চিকিৎসক মহল। তাঁরা জানালেন, প্রিয় মানুষের কন্ঠস্বর কাজে লাগছে কোভিড পরবর্তী চিকিৎসায়।

কেন এমন বলছেন চিকিৎসকরা? জানা গেছে, কোভিড নেগেটিভ হলেও মস্তিষ্কের কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে আচ্ছন্ন হয়ে থাকছেন অনেকেই। এই কোষ যদি অস্থায়ী ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় তবে আচ্ছন্নভাব কাটাতে পারে প্রিয়জনের চেনা গলা। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে এই পদ্ধতিতে মিলেছে সাফল্য। বাংলার বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং অসমের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ, দুজনের চিকিৎসাতেই নাকি ব্যবহার হয়েছে এই পদ্ধতি। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় এর নাম অডিটরি স্টিমুলেশন।

চিকিৎসকদের মতে সুস্থ অবস্থায় যে কন্ঠস্বর অন্যরকম অনুভূতি দিত, তাই ফিরিয়ে আনতে পারে ঘুমের দেশ থেকে। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের ক্ষেত্রে তাঁর কন্যা পৌলমীর গলা ব্যবহার করেছিলেন চিকিৎসকরা। তরুণ গগৈর চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়েছিল দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর গলা। যদিও দুজনের কোনো ক্ষেত্রেই শেষ রক্ষা করা যায় নি।

শহরের নিউরো সার্জন অমিতকুমার ঘোষের কথায়, মস্তিষ্কের কোষ অস্থায়ী ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেই কাজে আসে প্রিয় মানুষের কন্ঠ। চেনা কন্ঠে মস্তিষ্কের রিসেপটরগুলো স্টিমুলেটেড হয়। অস্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত নার্ভ সেগুলো ফের চাঙ্গা হয়ে ওঠে। কিন্তু নার্ভ স্থায়ী ভাবে নষ্ট হয়ে গেলে ঘুম ভাঙবে না আর। মস্তিষ্কের কোষ যে অসাড় তা পরীক্ষা করে টের পান চিকিৎসকরা। কিন্তু স্থায়ী না অস্থায়ী ভাবে তা বোঝার উপায় নেই। তাই শেষ চেষ্টা করতে ব্যবহার হচ্ছে এই ভয়েস থেরাপি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close