আম আদমি

হুড়মুড়িয়ে ফলোয়ার কমে যাচ্ছে! ফেসবুক জুড়ে হতাশার পোস্ট সেলিব্রিটি মহলের

মহানগর বার্তা ডেস্ক: ফেসবুকে অন্ধকার। হঠাৎ চিন্তার অমাবস্যা নেমে এল সোশ্যাল আকাশে! ফেসবুক সেলেবদের দুশ্চিন্তা আর চোখের জলের নিম্নচাপে ভরপুর নেটদুনিয়া! কেন কী হল হঠাৎ?

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাত থেকেই নাকি হঠাৎ করে অনুসরণকারী অর্থাৎ ফলোয়ারের সংখ্যা এক ধাক্কায় কমেছে হাজার হাজার। লক্ষ লক্ষ ফলোয়ার কমে হয়েছে ১০ হাজারের কম। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই শোরগোল পড়েছে। কেন এমন হচ্ছে, বা কেন এমন হল এ নিয়ে এখনও কোনও সদুত্তর আসেনি মেটার তরফে। যদিও বট অর্থাৎ ফেসবুকের নয়া প্রযুক্তির কারণে এমন হয়ে থাকতে পারে বলেই মত অনেকের।

এই ঘটনার শিকার তৃণমূল নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য। তিনি লিখেছেন, ‘রাতের সব তারাই আছে, দিনের আলোর গভীরে। সবার ফলোয়ার ধপাস করে সাড়ে ৯ হাজার দেখাচ্ছে! ঘাবড়াবেন না! আপনার যা দেখাচ্ছে, মার্ক জুকেরবার্গেরও তাই দেখাচ্ছে। এটা একটা টেকনিক্যাল গ্লিচ। সেরে যাবে। আপনি ফলোয়ার্সের ওই সাড়ে নয় হাজার সংখ্যার উপর ক্লিক করুন, দেখবেন উপরে ডানদিকে আসল ফলোয়ারের সংখ্যাটা দেখাচ্ছে। এই কেসের সঙ্গে একটা মিল খুঁজে পাচ্ছি!’ তৃণমূলের মুখপাত্রের কটাক্ষ, ‘মিডিয়া আর সোশ্যাল মিডিয়া দেখলে এভাবেই আপনার মনে হবে তৃণমূলের ভোট বুঝি ধপাস করে কমে গেছে! ১৬, ২১-এও মনে হয়েছিল! কিন্তু বাস্তবে তো আপনি জানেন আপনার ফলোয়ারের মতই। যেটা যেখানে ছিল, সেটা সেখানেই আছে!’

একই অবস্থার মুখোমুখি হয়েছেন বাংলা সংবাদমাধ্যমের জনপ্রিয় মুখ পিউ রায়। তিনি লিখেছেন, ‘ভীষণ ভীষণ মন খারাপ। কিছুই মাথায় ঢুকছে না। সকালে উঠে দেখলাম ৫০০০০ হাজারের বেশি ফেসবুক ফলোয়ার নেই। রাতারাতি কোথায় গেল? কাল রাতেও ৬১ হাজারের ওপর ছিল। রিপোর্ট করেছি। আপনারা গাইড করতে পারেন?’ পায়েল ঘোষের দাবি, ‘এটা অনেকেরই হচ্ছে। আমারও হয়েছে। আমার ৬৭ হাজার থেকে ৯ হাজার হয়ে গিয়েছে।’ সায়ন্তন সিংহ লিখছেন, ‘যাঁদের দশ হাজারের উপর ফলোয়ার আছে, তাদেরই ফলোয়ার কাল রাত থেকে কমে হয়ে ৯ হাজারের কাছাকাছি একটা ফিগার হয়ে গিয়েছে। যেমন, আমার ২৪ হাজার ফলোয়ার, আমার কমে ৯৬০০ হয়ে গিয়েছে।’ সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয় মুখ ময়ূখ রঞ্জন ঘোষ বলছেন, ‘সমাজতান্ত্রিক করে দিয়েছে এক নজরে। গভীরে গেলে বোঝা যাবে যা ছিল তাই আছে। আমারও ৯০০০। প্রায় প্রত্যেকেরই যাদের হাই ভলিউমে ফলোয়ার আছে। কিন্তু ফলোয়ার ক্লিক করলে দেখা যাবে যে, ফলোয়ার সংখ্যা ছিল তাই আছে!’

যদিও হঠাৎ সেই অবনমনের কারণে উঠে আসছে একাধিক সম্ভাবনার কথা। এর আগেও এমন ঘটনার কথা প্রকাশ্যে এসেছিল বলেও দাবি করা হচ্ছে। তবে সব মিলিয়ে যত দোষ নন্দঘোষ থুড়ি বট-কেই দিচ্ছেন অনেকেই।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close