দেশ

কাশ্মীরে চিনের হস্তক্ষেপ চাননি ফারুক আব্দুল্লাহ, দাবি ন্যাশনাল কনফারেন্সের

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ ফারুখ আব্দুল্লাহ চিনের সহায়তায় ৩৭০ ধারার পুনঃপ্রবর্তন নিয়ে কোনো মন্তব্যই করেন নি, এমনটাই দাবি করা হল ন্যাশনাল কনফারেন্স বা এনসির তরফে। তাঁদের নেতার বক্তব্যকে বিকৃত করা হয়েছে বলেও দাবি করেছে এনসি। এছাড়া তাঁদের বিরুদ্ধে ভারতীয় জনতা পার্টি যে আগ্রাসনের অভিযোগ আনছে তাও সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

বিশেষ সূত্র অনুযায়ী, এনসির তরফে বলা হয়েছে, “জনগণের মধ্যে গত বছরের৩৭০ ধারা বিলোপ নিয়ে যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে, আমাদের নেতা সে বিষয়টাকেই তুলে ধরতে চেয়েছিলেন সকলের সামনে। বিগত কয়েক মাস ধরেই তিনি এটা করে চলেছেন। সেই সূত্রেই তিনি বলেছেন জম্মু কাশ্মীরের এই নতুন পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে কেউই খুশি নন।”

শুধু তাই নয়, এনসির তরফে আরো জানানো হয়েছে, তাঁদের নেতা সম্বন্ধে বিজেপি নেতা সম্বিত পাত্রের দাবি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। “আমাদের নেতা কখনোই বলেননি সংবিধানের ৩৭০ ধারাটি চিনের সহায়তায় পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হবে।” এছাড়া ফারুখ আবদুল্লাহর আগেকার মন্তব্যকে ভুল ভাবে পরিবেশন করা হয়েছে বলেও দাবি করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার একটি টেলিভিশন ইন্টারভিউতে জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং জম্মু ও কাশ্মীর ন্যাশানাল কনফারেন্স দলের নেতা ফারুখ আবদুল্লাহ বলেন, প্রতিবেশী চিনের সাহায্যে ভারতে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠিত হবে, এ বিষয়ে আশাবাদী তিনি। গত বছরের আগস্ট মাসে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলুপ্তির মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের এই বিশেষ অধিকার বিলোপ করেছিল ভারত সরকার।

ওই ইন্টারভিউতে আবদুল্লাহ বলেছিলেন, ‘জম্মু কাশ্মীরের সঙ্গে ভারত সরকারের ব্যবহার চিন ভালো চোখে দেখে নি। এমনকি, সম্প্রতি লাদাখ সীমান্তে চিনা আগ্রাসনের অন্যতম কারণও নাকি জম্মু কাশ্মীর প্রসঙ্গ, বলেন ফারুখ আবদুল্লাহ। এছাড়া, প্রধানমন্ত্রী যে একসময় চিনের প্রেসিডেন্টকে ভারতে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন তা নিয়েও কটাক্ষ করেন তিনি।

জম্মু কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর এহেন মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছে বিজেপি। এই ধরনের মন্তব্য ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’, এমনটাও দাবি করেছে তাঁরা। বিজেপি নেতা সম্বিত পাত্র বলেন, “একজন প্রাক্তন মন্ত্রীর এহেন মন্তব্য নিঃসন্দেহে উদ্বেগজনক। “

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close