রাজ্য

বাবা কৃষক, মা অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী! ২কোটি টাকার চাকরির অফার পেল যাদবপুরের পড়ুয়া

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্কঃ গত ৪৫ বছরে, দেশের বেকারত্ব সর্বনিম্ন। বিশ্ববাজারেও নিম্নমুখী অর্থনীতি। কিন্তু তার মধ্যেও এ যেন এক অন্যরকম সংবাদ। এক খুশির খবর। বীরভূমের রামপুরহাটের বিশাখ মন্ডল পেলেন বছরে প্রায় দুইকোটি টাকার চাকরি। প্রস্তাব পেয়েছেন গুগল এবং ফেসবুক দুই জায়েন্ট কোম্পানির থেকে।

নিম্নবিত্ত পরিবারের ছেলে বিশাখ ছোট থেকেই পড়শোনায় মেধাবী। মা বীরভূম জেলার অঙ্গনওয়ারি কর্মী। বাবা পেশায় কৃষক। যাদবপুরের কম্পিউটার সাইন্স এবং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রথম স্থান তাঁর দখলে। পড়ার শেষে প্লেসমেন্ট অফারের দিক থেকেও বিশ্ববিদ্যালয়ে টপার। গুগল এবং ফেসবুক দুই বড়ো সংস্থা থেকে চাকরির প্রস্তাব পেলেও ফেসবুকে কাজ করার ইচ্ছেই তাঁর বেশি। সুত্রের খবর, এর আগে বেশ কয়েকজন পড়ুয়া বার্ষিক এক কোটি টাকা বেতনের চাকরি পেয়েছিলেন। এবার তাদের কেও ছাপিয়ে গেল বিশাখ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহউপাচার্য চিরঞ্জীব ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, ”এটা আমাদের গর্বের মুহূর্ত। মুখ উজ্জ্বল করেছে বিশাখ। আমাদের পড়ুয়ারা যে সেরা আইআইটির থেকে পিছিয়ে নেই, এটা তারই প্রমাণ।” বিশাখ এবং তার পরিবার বিশেষ ভাবে কৃতজ্ঞ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও বন্ধুদের কাছে।

বিশাখ জানিয়েছেন, “ছেলেবেলা থেকে দেখছি মা কত কষ্ট করছে। আমাকে কখনও মা বলেনি বড় চাকরি পেতে হবে। সব সময় বলেছে বড় মানুষ হতে। সেটাই আমার লক্ষ্য।” আর তাঁর মা’র কথায়, ”আমরা কৃতজ্ঞ দিদির (মুখ্যমন্ত্রী) কাছেও। কারণ ছেলে যদি বিবেকানন্দ স্কলারশিপের টাকা না পেত তা হলে ওকে এত দূরে কলকাতায় রেখে পড়াতে পারতাম না।”

তবে, বিশাখের দুঃখ এই এতোবড় সুখবর টা তার “দিদুন” জানতেও পারল না। সবশেষে খুশির হাওয়া বইছে মন্ডল পরিবারে৷

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close