খবরমহানগর

মঙ্গলে ধুন্ধুমার, বুধে সৌজন্য! মীনা দেবীকে দেখতে গেলেন ফিরহাদ, পুলিশ অফিসারের খোঁজে সুকান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: মঙ্গলবারের নবান্ন অভিযানের ধুন্ধুমার পরিস্থিতি বুধ-সকালেই বদলে গেল সৌজন্যে! বিজেপি-র অভিযানের উত্তেজনায় আহত বিজেপি নেত্রী তথা কলকাতা পুরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মীনাদেবী পুরোহিতকে দেখতে হাসপাতালে গেলেন ফিরহাদ হাকিম। উল্লেখ্য, ফিরহাদ নিজে কলকাতা পুরসভার মেয়র। আবার এদিন সকালেই আহত পুলিশ কর্মী দেবজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে ফোন করে তাঁর স্বাস্থ্যের খোঁজ নিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। অনেকেই বলছেন, রাজ্য রাজনীতির উত্তেজক আঙিনায় এই সৌজন্য প্রদর্শন যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার সকাল থেকে বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে উত্তপ্ত হচ্ছিল পরিস্থিতি। শুভেন্দু অধিকারী, লকেট চট্টোপাধ্যায়, রাহুল সিনহাদের ভূমিকায় দলের অন্দরে প্রশ্ন উঠলেও বেলা বাড়তেই ঝাঁঝ বাড়ে বিজেপি কর্মীদের মধ্যে। উত্তাল হয় পরিস্থিতি। হাওড়া ব্রিজ, রবীন্দ্র সরণি, বড়বাজার এলাকার উত্তেজনার আঁচ পৌঁছয় লালবাজারেও। বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ এবং পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হয়। সাঁতরাগাছি স্টেশন এলাকায় পুলিশকে লক্ষ্য করে মুহুর্মুহু ইটবৃষ্টি চলে। কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায় পুলিশ। ঠিক এই পরিস্থিতিতে বড়বাজার থেকে নবান্নগামী মিছিলের নেতৃত্বে থাকা মীনাদেবী পুরোহিত আক্রান্ত হন। পুলিশ-বিজেপি কর্মীদের খণ্ডযুদ্ধে গুরুতর আহত হন তিনি। রক্তাক্ত কাউন্সিলরকে নিয়ে সঙ্গে সঙ্গে ভর্তি করা হয় মাড়োয়ারি রিলিফ সোস্যাইটি হাসপাতালে। চিকিৎসকরা জানান, মীনার মাথার পিছনে চোট লেগেছে। পাঁচটি সেলাই পড়েছে সেখানে। এর পরেই ফের সরব হয় বিজেপি। দলীয় নেত্রীকে পুলিশের আক্রমণ নিয়ে সরব হয় গেরুয়া শিবির। যদিও ওই অভিযানে আহত হন একাধিক বিজেপি কর্মীও।

এদিকে মঙ্গলবার বিজেপির নবান্ন অভিযান চলাকালীন একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যে ভিডিওতে দেখা যায়, মহাত্মা গান্ধী রোডে দাঁড়িয়ে থাকা পুলিশ আধিকারিক দেবজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের দিকে আচমকাই পাথর, লাঠি হাতে ছুটে যাচ্ছে একদল বিক্ষোভকারী। তাদের অনেকের হাতেই ছিল বিজেপির পতাকা। শুরু হয় ওই পুলিশ আধিকারিককে মারধর। রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করা হয় তাকে। এরপর দুই পুলিশকর্মী তাঁকে উদ্ধার করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ওই পুলিশ আধিকারিককে। এই ঘটনার পরেই পাল্টা সরব হয় তৃণমূল। বিজেপির বিরুদ্ধে গুন্ডামির অভিযোগ ওঠে। আহত আধিকারিকের খোঁজ নেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

উত্তপ্ত এই পরিস্থিতি আর অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগের আবহে, মীনা-সাক্ষাতে ফিরহাদ এবং পুলিশ-খোঁজে সুকান্ত, যথেষ্ট গুরুত্বের বলেই মত রাজনৈতিক কারবারিদের একাংশের।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close