আন্তর্জাতিকঅফবিট

শ্রীলঙ্কা ব্ল্যাকআউটের মুখোমুখি, ক্ষতিগ্ৰস্ত জনজীবন

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক : বিশ্ব জুড়ে চলা এই মর্মান্তিক পরিস্থিতির মধ্যেও শ্রীলঙ্কা সম্মুখীন হলো নতুন বিপত্তির। সমগ্র দেশ জুড়ে চলা টানা প্রায় সাত ঘন্টা লোডশেডিং এর দরুণ ক্ষতিগ্রস্ত হলো সাধারণ জনজীবন। গত সোমবার এমন একটি ঘটনায় হতবাক নেটিজেনরা।

এই বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে সে দেশের বিদ্যুৎ মন্ত্রী দুলালস আলাহাপেরুমা জানিয়েছেন, ” কলম্বো শহর থেকে কিছুটা দূরে অবস্থিত কেরাওয়ালাপিটিয়া বিদ্যুৎ সরবরাহ কেন্দ্রে ব্ল্যাক আউটের দরুণ সমগ্র দেশে লোডশেডিং হয়ে পড়ে এবং সাধারণ জনগণ নাজেহাল পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে গোটা দিন যাপন করেন।”

জানা গিয়েছে, সমগ্র দেশ জুড়ে ২১ মিলিয়নের কিছু বেশি জনগণ একসাথে এই সমস্যার সম্মুখীন হলেও এখনো পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার কিছু দ্বীপে সঠিকভাবে বিদ্যুৎ সরবারহ করা যায়নি। ‘ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি’ একেবারে সে কথার সত্যতা প্রমাণের মধ্য দিয়েই ২০১৬ সালের পর ২০২০ সালে এমন একটি পরিস্থিতির সম্মুখীন হলো গোটা শ্রীলঙ্কা। ২০১৬ তেও বিদ্যুৎ সরবারহ বন্ধ হয়ে প্রায় ৮ ঘন্টারও কিছু বেশি সময় ধরে লোডশেডিং ছিলো গোটা দেশে।

ইতিমধ্যেই সরকারের তরফ থেকে সে দেশের ‘ সিলিকন ইলেকট্রিকসিটি বোর্ড’কে একটি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। যেখানে এই ঘটনার সমস্তটাই ব্যখার নির্দেশনা জারি করেছে কেন্দ্র সরকার। হঠাৎ করে এভাবে লোডশেডিং এর দরুণ একপ্রকার শোরগোলের সৃষ্টি হয় সমগ্র দেশ জুড়েই। ট্রাফিক সিগন্যালের আলো না জ্বলার ফলে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়েছে রাস্তার ট্রাফিক পুলিশকে। এছাড়াও হাসপাতালে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে বিপদময় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় সমস্ত হাসপাতাল জুড়েই।

অন্যদিকে জানা গিয়েছে, সে দেশের সমস্ত বিদ্যুৎ সরবারহের অধিকাংশটাই আসে থার্মাল শক্তি থেকে। বাদবাকিটা সম্পূর্ণভাবেই হাইড্রো এবং বায়ু শক্তির দ্বারা সঞ্চালিত হয় গোটা দেশে।এছাড়াও গোটা দেশের ১২ শতাংশ বিদ্যুৎ চাহিদা মেটানো হয় কেরাওয়ালাপিটিয়া থার্মাল বিদ্যুৎ সরবারহ কেন্দ্র থেকে, যার শক্তি প্রায় ৩০০ মেগাওয়াট।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close