দেশ

সন্তান থাকতে বাবা-মা কে রাখা যাবেনা বৃদ্ধাশ্রমে,নতুন আইন আনছে অসম সরকার

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: ছেলের আমার আমার প্রতি অগাধ সম্ভ্রম,আমার ঠিকানা তাই বৃদ্ধাশ্রম! নচিকেতার লেখা এই গানের লাইন অনেক বৃদ্ধ-বৃদ্ধার চোখ ভিজিয়েছে তবু বর্তমানে বৃদ্ধাশ্রমের সংখ্যাটা কমেনি বই বেড়েছে। সন্তান লেখাপড়া শিখে বড়ো মানুষ হবে আর বাবা মা ঠাঁই পাবে বৃদ্ধাশ্রমে। এবার বাস্তবের এই করুণ চিত্র বদলাতেই তৎপর হয়েছে অসমের সরকার।

তার ফলস্বরূপ নতুন আইন আনতে চলেছে তাঁরা যেখানে ছেলেমেয়ে বর্তমান থাকলে মা-বাবাকে রাখা চলবে না বৃদ্ধাশ্রমে। এই আইন আনার নেপথ্যের কারণ হিসেবে মুখ্যমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা বলেছেন, “রাজ্যে ক্রমেই বাড়ছে বৃদ্ধাশ্রমের সংখ্যা। এটি শুভ ইঙ্গিত নয়। ছেলেমেয়েরা যত বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকে,ততই সংস্কার শিখবে। বাবা-মাকে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠানোর সংস্কৃতি চালু হলে সমাজ ভেঙে যাবে।” মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, “যে সব বৃদ্ধ-বৃদ্ধা নিরাশ্রয়, যাঁদের সন্তান নেই- তাঁরাই শুধু বৃদ্ধাশ্রমে থাকতে পারবেন। কিন্তু ছেলেমেয়ে বাইরে চাকরি করে আর মাসে টাকা পাঠিয়ে বাবা-মাকে বৃদ্ধাশ্রমে রেখে দেবে, তেমনটা অসমে চলতে দেওয়া যায় না। এ নিয়ে কড়া আইন আনা হবে।”

প্রসঙ্গত, অসম সরকার ইতিমধ্যেই আইন এনেছেন যে সরকারি কর্মী বাবা-মার দেখভাল করবেন না, তাঁদের বেতনের অংশ সরাসরি বৃদ্ধ বাবা-মার অ্যাকাউন্টে পাঠানো হবে। তার এই অভিনব আইনি পদক্ষেপের জেরে সাধুবাদ জানিয়েছে নেটমাধ্যম। এই আইন নিঃসন্দেহে বৃদ্ধ বৃদ্ধার অসহায়তা রোখার আইন। প্রতিদিন নিয়ম করে বৃদ্ধ বাবা মার গায়ে হাত তোলা। বাড়ির বাইরে বের করে দেওয়া, দুবেলা খেতে না দেবার ঘটনা যে একরকম সামাজিক ব্যাধি হয়ে দাঁড়িয়েছে এই আইন সেখানে এক উপশমকারী প্রলেপ হিসেবে কাজ করবে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close