fff
আধ্যাত্মিকঅফবিটমহানগর

বঙ্কিমের রাধারানি থেকে এই একুশ শতক, রথের মেলা ঘিরে আজও অমলীন বাঙালি আবেগ

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ রথ মানেই রথের মেলা। আর মেলা মানেই মিলিত হওয়ার জায়গা। রথের দিন মেঘ-রোদের খেলায় আর হালকা বৃষ্টির আমেজে ভেসে বাঙালির আবেগ আর নস্টালজিয়ার অন্ত নেই। বঙ্কিমের রাধারানি রথের মেলাতেই বনফুলের মালা বেচতে গিয়ে তার জীবন প্রবাহ অন্যখাতে বইতে শুরু করেছিলো। সুতরাং রথের মেলা আর বাঙালির সম্পর্ক চিরন্তন। বেশ কয়েকটি জিনিস ছাড়া রথের মেলা জমে না। জিলাপি, পাঁপড়, ছোটো ছোটো শিশুদের কাঠের রথ ছাড়া রথের মেলা যেন বেরঙিন।

রথের মেলা মানেই পাঁপড়ে কামড়-সে পোড়া পাঁপড় হোক বা ভাজা। এই সময় হালকা বৃষ্টিতে বাঙালির পাঁপড় চাই। জিলাপি আর রথ অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িয়ে আছে। জিলাপি ছাড়া রথের দিন অচল। এইসময় মিষ্টিমুখের প্রধাণ অবলম্বণ আড়াই প্যাঁচের রসভরা জিলাপি। রথের মেলা মানেই ছোটো ছোটো শিশুদের কাঠের রথ টেনে নিয়ে যাওয়া আর প্রসাদ বিতরণের আনন্দ। এই মনোরম দৃশ্য ছাড়া রথের দিনটা মনমরা করে দেয়। রথের মেলায় গয়নার দোকানে কিশোরী থেকে তরুণীদের ভীড় থাকবে চোখে পড়ার মতো। আর তো আছেই সব বয়সীদের জন্যই নাগোরদোলার হাতছানি আর বাচ্চাদের খেলনা-বাটির দোকানের সামনে হইচই।

এমনই বহুরঙা আমেজে রথের মেলা বাঙালির কাছে চিররঙিন। এগুলো ছাড়া রথের মেলার আমেজটাই নষ্ট হয়ে যাবে। বঙ্কিমের রাধারানি থেকে এই একুশে শতকে এসেও রথের মেলার এই বৈশিষ্ট্যে এতোটুকু চিড় ধরেনি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!