fff
টেকনলজি

Gmail অ্যাকাউন্টের স্টোরেজ ফুল? মেইল ডিলিট করার আগে এই টিপসগুলো জেনে নিন

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ করোনার প্রকোপ বাড়তেই ওয়ার্ক ফ্রম হোমের রমরমা শুরু হয়েছে। ফলে কর্ম জগতে ইমেলের ব্যবহার আরও বেড়েছে। আর বর্তমানে গুগুলের জিমেল (Gmail) যেন ইমেলের‌ই সমার্থক হয়ে উঠেছে। কারণ ইয়াহু, রেডিটের মতো ইমেল সার্ভিসের ব্যবহার আর হয় না বললেই চলে। কিন্তু এই জিমেল অফুরন্ত ব্যবহার করতে পারবেন তেমনটা কিন্তু নয়। ফোনের মেমোরি বা হার্ডডিস্কের মেমোরির মতো জিমেলেও নির্দিষ্ট মেমরি আছে। ফ্রিতে গুগুল (Google) ১৫ জিবি পর্যন্ত জিমেল (Gmail) ব্যবহার করতে দেয়। এই মেমোরি ফুল হয়ে গেলে আর নতুন মেল ঢোকে না। ফলে পুরনো মেল ডিলিট করে মেমরি স্পেস ফাঁকা করা ছাড়া আর কোনও উপায় থাকে না জিমেইল ব্যবহারকারীদের কাছে।

কিন্তু এই মেমোরি স্পেস ফাঁকা করাটাই মহা দুশ্চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায় অনেকের কাছে। কারণ ওয়ার্ক ফ্রম হোম সহ নানান প্রয়োজনে সারাদিনে প্রচুর মেল চালাচালি হয়। তাছাড়াও বিভিন্ন জায়গা থেকে গুরুত্বপূর্ণ জরুরি মেল আসে আমাদের কাছে। যেগুলো আমরা নিরাপদ জায়গা হিসেবে সাধারণ জিমেলেই (Gmail) রেখে দিই। কিন্তু মেমরি স্পেস ভর্তি হয়ে গেলে কী করবেন? মেল তো ডিলিট করতেই হবে। কিন্তু কোন মেলগুলো ডিলিট করবেন, কীভাবে করবেন সেই টিপসটাই দেব আমরা।

ধরুন ২০২০ সালে আপনি বর্তমান সংস্থায় যোগ দিয়েছেন। এখানকার সব মেল‌ই আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তার আগের সংস্থার মেলও আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। কিন্তু কর্মজীবনের একেবারে প্রথম দিকে যে সংস্থায় কাজ করতেন সেখানকার মেলগুলোর আলাদা করে আর কোনও গুরুত্ব নাও থাকতে পারে আপনার কাছে। সেই জীবনের প্রথম সংস্থায় হয়তো কাজ করেছিলেন ২০১৩ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত। ফলে আপনি এই মাঝের চার বছর মেয়াদী মেল ডিলিট করে অনেকটাই ফাঁকা জায়গা পেয়ে যেতে পারেন। কিন্তু অত পুরনো মেলে খুঁজে বের করাটাই তো খুব কঠিন কাজ। তবে উপায়?

এই কঠিন কাজটাই খুব সহজ হয়ে যাবে। প্রথমে আপনি জিমেল (Gmail) খুলে সার্চ বারে যান। সেখানে গিয়ে তারিখের জায়গায় ২০১৩ সালের পরে এবং ২০১৭ সালের আগে সময়টা পুট করুন। দেখবেন এর মাঝের পর্যায়ের যাবতীয় মেল আপনার সামনে শো করছে। হতে পারে তার মধ্যে থেকেও দু-একটা মেইল আপনি রেখে দিতে চাইছেন। আর যদি এই সময়কার কোন‌ও মেল‌ই রাখতে না চান তবে সিলেক্ট অল করে ডিলিট আইকন প্রেস করুন।

এরপর ট্র্যাসে গিয়ে এমটি দ্য রিসাইকেল বিন করে দিন। মুহূর্তের মধ্যে আপনার জিমেলে (Gmail) এক-দুই বা পাঁচ জিবি জায়গা বেরিয়ে যাবে।

এটা তো গেল সময় ধরে অপ্রয়োজনীয় মেল ডিলিট করে দেওয়ার পর্ব। তবে অপ্রয়োজনীয় মেল ডিলিটের ক্ষেত্রে সবচেয়ে আদর্শ হল বেশি অ্যাটাচমেন্ট থাকা মেলগুলিকে মুছে ফেলা। কারণ এগুলো‌ই সবচেয়ে বেশি প্রসেস নিয়ে নেয়। এক্ষেত্রে আবার সার্চ অপশনে গিয়ে লার্জার দ্যান ১০এমবি বা আপনার যেটা সঠিক মনে হচ্ছে সেই পরিমাণটা সিলেক্ট করুন। এবার দেখবেন বড় অ্যাটাচমেন্ট থাকা ফাইলগুলো ভেসে উঠেছে। এবার সেগুলো সিলেক্ট অল করে ডিলিট করুন। আবার আগের মত ট্র্যাসে গিয়ে সেগুলো এমটি দ্য রিসাইকেল বিন করে দিন। এবার নিশ্চয়‌ই অনেকটা ফাঁকা জায়গা বেরিয়ে যাবে আপনার জিমেল (Gmail) অ্যাকাউন্টে।

তবে বেশি জায়গা বার করার জন্য জিমেল (Gmail) থেকে অপ্রয়োজনীয় মেল ডিলিট করার সময় যথেষ্ট সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। না হলে মুহূর্তের ভুলে প্রয়োজনীয় মেলও ডিলিট হয়ে যেতে পারে।

তবে যারা স্টোরি বোর্ড আর্টিস্ট বা অ্যাকাউন্টসের কাজ করেন বাড়িতে বসে, তাঁদের ক্ষেত্রে অনেক পুরনো মেলও রেখে দেওয়াটা দরকার হতে পারে। সেক্ষেত্রে অবশ্য জিমেলের (Gmail) একটা সুবিধা আছে। কিন্তু কী সুবিধা সেটা জানেন কী?

আপনি চাইলে জিমেলের (Gmail) থেকে প্রতি মাসে টাকা দিয়ে অতিরিক্ত স্পেস বা মেমোরি ভাড়া নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে ১৫ জিবি হয়ে গেলেও আপনার কাছে নতুন মেল ও অ্যাটাচমেন্ট আসতে থাকবে।

এটা কীভাবে সম্ভব?

গুগল জিমেলের (Gmail) স্পেস বিক্রি করে। এর জন্য গুগল ওয়ানের (Google One) মাধ্যমে তারা তিনটে প্ল্যান ছেড়েছে বাজারে। বেসিক, স্ট্যান্ডার্ড ও প্রিমিয়াম এই তিনটির মাধ্যমে আপনি জিমেলের মেমোরি স্পেস ১০০, ২০০ জিবি ও ২ টেরাবাইট পর্যন্ত বাড়িয়ে নিতে পারেন। তবে এর জন্য আপনাকে প্রতিমাসে কিছুটা করে হলেও টাকা খরচ করতে হবে।

ধরুন আপনি চাইছেন আপনার জিমেল (Gmail) স্পেস আরও ১০০ জিবি বাড়াবেন। তার জন্য আপনাকে মাসে ৩৫ টাকা করে গুনতে হবে। ২০০ জিবি পর্যন্ত জিমেল স্পেস বাড়ালে গুণতে হবে ৫২ টাকা।‌ আর ১৬২ টাকা খরচ করলে আপনি আরও অতিরিক্ত দুই টেরাবাইট জিমেল স্পেস ব্যবহার করার সুযোগ পেয়ে যাবেন! তবে এটা সাধারণত স্টোরিবোর্ড আর্টিস্ট বা ভিডিও এডিটরদের প্রয়োজন হয়।

এছাড়াও জিমেল স্পেস খুব সহজেই আমরা আরও কিছুটা ফাঁকা রাখতে পারি। অনেক সময় কোন‌ও ভিডিও বা খবর করতে গেলে নোটিফিকেশন বাটন আমরা অন করে ফেলি। তখন ওই সংস্থাগুলি নিয়মিত তাদের আপডেট মেল করে দিতে থাকে। এটাও আপনার জিমেলের মেমোরি খায়। তাই সর্বপ্রথম এই সমস্ত নোটিফিকেশন খুব একটা জরুরী না হলে সেগুলো বন্ধ করতে হবে। তারপর এগুলি খুঁজে খুঁজে ডিলিট করে দিলেই হল। হতেই পারে এর ফলে হয়তো বহু পুরনো দরকারি মেল ডিলিট করার আর প্রয়োজন পড়ল না।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!