দেশ

খোলা অবস্থায় নর্দমা! স্থানীয় সরকারের গাফিলতিতে ড্রেনে পড়ে প্রাণ হারালেন নাবালিকা

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ গত শুক্রবার হায়দরাবাদে নর্দমায় পড়ে মৃত্যু হয় ১২ বছরের সুমেধা কাপুরিয়ার। মৃত কিশোরীর পরিবারের পক্ষ থেকে পুলিশকে বলা হয় যে তারা যেন পূর্তমন্ত্রী কেটি রামা রাও ও জিএইচএমসির মেয়র বথু রামমোহনের বিরুদ্ধে এফআইআর করে।

কংগ্রেস নেতাদের সহায়তায় সুমেধার মা–বাবা সুকন্যা ও অভিজিৎ সোমবার হায়দরাবাদের নিরেদমেটে পৌঁছান এবং পুলিশকে কেটিআর, বথু রামমোহন, স্থানীয় বিধায়ক ও এলাকার দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিকের নামে অভিযোগ দায়ের করার অনুরোধ জানান। পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে কর্তৃপক্ষের গাফিলতি দায়িত্বজ্ঞানহীনতার জন্য তাঁরা তাঁদের মেয়েকে হারিয়েছে। শোকগ্রস্ত বাবা অভিজিৎ বলেন, ‘‌বাড়ির ২০০ মিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে শিশু মারা যাচ্ছে, আপনি কি বিশ্বাস করতে পারবেন? আমরা কী ধরনের জায়গায় বাস করছি? আমার মেয়ে যে অঞ্চলে নর্দমায় পড়েছিল সেখানে কোনও সিসিটিভি ছিল না।’‌

গত বৃহস্পতিবার থেকে নিখোঁজ ছিল ১২ বছরের সুমেধা। তার অভিভাবক পুলিশের কাছে গিয়ে নিখোঁজ ডায়েরি করেছিল। তাঁর নিথর দেহ উদ্ধার হয় শুক্রবার। পুলিশ জানিয়েছে, মনে করা হচ্ছে সিসি ক্যামেরায় দেখা ফুটেজ অনুযায়ী, সুমেধা সাইকেলে করে তার বাড়ি থেকে বের হয় সন্ধ্যা ৬–৭টা নাগাদ এবং খোল নর্দমায় পড়ে যায়, যা বৃষ্টির জলে ভর্তি ছিল। এই ঘটনা চাউর হতেই সমালোচনার মুখে পড়েন পূর্তমন্ত্রী কেটিআর।

পরিবারের বক্তব্য, দীর্ঘদিন ধরে খোলা অবস্থায় ছিল ওই নর্দমাটি। প্রসাসনের পক্ষ থেকে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছিল না। উপরন্তু টনা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে জল ভরে গিয়েছে নর্দমায়। যার ফলে পথচলতি মানুষও ঠিকভাবে ওই নর্দমাটি বুঝতে পারছেন না। স্থায়ীয়দের বক্তব্য, এর আগে বহুবার স্থানীয় বিধায়ক সহ অনেককেই বলা হয়েছে কিন্তু সুরাহা মেলেনি।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close