দেশ

ফের প্লে স্টোরে দেশি অ্যাপ, এবার ট্যুইটারকে পাল্লা দিতে এল স্বদেশী টুটার

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: দেশ জুড়ে করোনা অতিমারী যখন সবে ধ্বংসলীলা চালাতে শুরু করেছে, সেই মে মাস নাগাদ দেশের মানুষকে ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অর্থনীতি, প্রযুক্তি সহ নানা বিষয়ে দেশীয় পণ্যের ব্যবহারের মাধ্যমে আত্মনির্ভর ভারত গড়ার ডাক দিয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকেই বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষত মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনে স্বদেশী অ্যাপের প্রচলন বেড়ে গেছে চোখে পড়ার মতো। সেই ধারা বজায় রেখেই এবার আরো এক নতুন অ্যাপ হাজির দেশের বাজারে।

বিদেশী ট্যুইটারকে টেক্কা দিতে নিয়ে আসা হয়েছে দেশি অ্যাপ টুটার। নামের সাদৃশ্য তো আছেই, সেই সঙ্গে রাখা হয়েছে দুই অ্যাপের রঙের সামঞ্জস্যও। এক্ষেত্রেও সাদা, নীল রঙ দিয়েই লেখা হয়েছে অ্যাপের নাম। ব্যবহারের পদ্ধতিরও খুব একটা হেরফের ঘটানো হয় নি। প্রথমে ই-মেল আইডি দিয়ে এই প্ল্যাটফর্মে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে। তারপর অন্যাদের অ্যাকাউন্ট ফলো করা যাবে। ইচ্ছে মতো গ্রুপ তৈরি ও যাদের ফলো করতে চান, সেই তালিকা নিজের পছন্দ মতো বানিয়ে নেওয়া যাবে।

এখানেই শেষ নয়, ট্যুইটারের পোস্টগুলিকে যেমন ট্যুইট বলে, তেমনই টুটারের পোস্টগুলির নাম টুটস্। ইতিমধ্যেই গুগল প্লে-স্টোরে জায়গা করে নিয়েছে নয়া অ্যাপ টুটার। যদিও অ্যাপেল স্টোরে তা এখনও দেখা যাচ্ছে না। মজার কথা হল, ট্যুইটারকে পাল্লা দেওয়ার এই অ্যাপ টুটার ট্রেন্ডিং হয়ে গিয়েছে ট্যুইটারেই।

বস্তুত, আমেরিকান অ্যাপ ট্যুইটার দীর্ঘদিন ধরে ভারত সহ বিশ্বের নানা দেশে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ডিজিটাল মাধ্যম। সোশ্যাল মিডিয়া হিসেবে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামের মতো জনপ্রিয় ট্যুইটার। ১৪ বছর আগে ২০০৬ সালে প্রথম বাজারে আসে এই অ্যাপ। কেন্দ্রের আত্মনির্ভর ভারত গড়ার ডাক, এবং বিভিন্ন চিনা অ্যাপ গুলি ভারতে নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকেই স্বদেশী অ্যাপের যে চাহিদা তৈরি হয়েছে দেশে, টুটার সেই আবহে নতুন সংযোজন।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close