মহানগররাজনীতিরাজ্য

উত্তরবঙ্গকে আলাদা করা “জনগণের দাবি”, মন্ত্রিত্ব পেয়েও নিজের অবস্থানে অনড় জন বার্লা

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: মোদির কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় নজিরবিহীন রদবদল। তাতে গুরুত্বপূর্ণ পদ পেয়েছেন আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন বার্লা। গতকাল সংখ্যালঘু উন্নয়নের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন তিনি। তাঁর মন্ত্রীত্বকে যদিও সু-নজরে দেখছেন না বাংলার শাসক দল। গত কয়েকদিন আগেই উত্তরবঙ্গকে পৃথক রাজ্যে হিসেবে দাবি করে বিতর্ক সৃষ্টি করেছিলেন তিনি। এসবের পরেও জন বার্লাকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর পদ দেওয়া আসলে সেই বিতর্ককে ঘুর পথে সমর্থন জানানো বলে দাবি তৃণমূলের তরফে।

অন্যদিকে তিনি নিজেও কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়ার পর তাঁর উত্তরবঙ্গ দাবি থেকে সরে যাওয়ার বিষয়ে কোনো কথা বলেনি। বরং কৌশলে সেই দাবি জিইয়ে রাখার ইঙ্গিত মিললো তাঁর কথায়। এদিন এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাৎকারে উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য হিসাবে চাওয়াটা “জনগণের দাবি” বলে উল্লেখ করেন তিনি। এবিষয়ে তাঁর থেকে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘ এ ব্যাপারে আমি এখনই কোনো কথা বলবো না, কেন্দ্রীয় সরকার আছে পরবর্তীতে এটা নিয়ে ভাবার জন্য।’ পাশাপাশি তিনি কি তবে নিজের অবস্থানে অটল থাকছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে জন বার্লা বলেন যে, ‘এটা আমার দাবি নয়, সবার দাবি, জনগণের দাবি।’

পাশাপাশি তিনি এটাও বলেন যে আগামীদিনে রাজ্য সরকারের থেকে বিভিন্ন বিষয়ে সহযোগিতা আশা করছেন তিনি। দরকার হলে বিভিন্ন স্কিম নিয়ে আলোচনা হবে এমনকি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির সাথে দেখা করার আর্জিও জানিয়েছেন তিনি। রাজ্য কেন্দ্র দুয়ে মিলে কাজ করার আগাম বার্তা তিনি দিলেও অলিপুরদুয়ারের এই সাংসদকে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে স্বাগত জানায়নি ঘাসফুল শিবির।

বরং কালই বার্লাকে মন্ত্রী করার ক্ষেত্রে দল যে কড়া অবস্থান নিতে চলেছে তা স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, ‘‘বিজেপি একটা অদ্ভুত রাজনৈতিক দল। তারা এমন একজনকে উত্তরবঙ্গ থেকে মন্ত্রী করলেন যিনি বাংলা ভাগ চান। পাহাড় নিয়ে আগেও এই ধরনের মদত দেওয়া হয়েছে।’’

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close