আধ্যাত্মিক

রেকর্ড! এবছর বাংলাদেশ থেকেও দেখা যাচ্ছে কাঞ্চনজঙ্ঘা, ভিড় পর্যটকদের

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: এবছর কাঞ্চনজঙ্ঘার অপরূপ শোভা স্বচ্ছন্দে উপভোগ করতে পারছেন বাংলাদেশের মানুষরাও। বাংলাদেশের উত্তর দিকের বেশ কয়েকটি জেলা থেকে এবছর দেখা যাচ্ছে কাঞ্চনজঙ্ঘা, তেমনটাই জানা গেছে বাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম ‘বিবিসি বাংলা’ সূত্রে। এমনকি কাঞ্চনজঙ্ঘার শোভা উপভোগ করার উদ্দেশ্যে এ সমস্ত জেলায় দেশের নানা প্রান্ত থেকে মানুষ এসে ভিড় করেছেন বলেও জানা গেছে।

বস্তুত, প্রতিবছরই শীতের আগে বছরের এই সময়টায় কম বেশি কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা যায় বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের কিছু অংশ থেকে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কুয়াশায় আচ্ছন্ন থাকে বিশ্বের তৃতীয় উচ্চতম এই পর্বতশৃঙ্গ। তবে এবছরের ছবিটা কিছু ভিন্ন। বাংলাদেশের তেতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বলছেন, ”বছরের এই সময়ে বৃষ্টি হওয়ায় আর বাতাসে ধুলা, মেঘ-কুয়াশা মুক্ত থাকায় অনেক দূরের কাঞ্চনজঙ্ঘা পরিষ্কারভাবে দেখা যাচ্ছে। অন্য বছরেও এই সময়ে এখান থেকে এই পর্বত দেখা যায়। তবে এই বছরে আবহাওয়া বেশি পরিষ্কার থাকার কারণে অনেক ভালোভাবে দেখা যাচ্ছে।”

জানা গেছে, উত্তর বাংলাদেশের পঞ্চগড়, নীলফামারী ও ঠাকুরগাঁও জেলার কয়েকটি এলাকা থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা যাচ্ছে। এসব জেলা থেকে এর আগে এই পর্বতশৃঙ্গটি দেখা যাওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।স্বভাবতই অপ্রত্যাশিত এই কাঞ্চনজঙ্ঘা দর্শনে উচ্ছসিত ওপার বাংলার মানুষজন।

পঞ্চগড়ের জনৈক বাসিন্দা এ বিষয়ে একটি সংবাদমাধ্যমের কাছে জানিয়েছেন, ”প্রতি বছরই এই সময়ে আমাদের জেলা থেকে কম বেশি কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা যায়। কিন্তু এই বছরের মতো এতো পরিষ্কারভাবে অনেক বছর দেখা যায়নি।” তিনি আরো জানান, জেলার প্রায় সব অংশ থেকেই পরিষ্কারভাবে দেখা যাচ্ছে কাঞ্চনজঙ্ঘার সুউচ্চ চূড়া।

উল্লেখ্য, হিমালয় পর্বতমালার সর্বোচ্চ এবং মনোহর শৃঙ্গগুলির মধ্যে অন্যতম এই কাঞ্চনজঙ্ঘা নেপালের কিছু অংশ এবং ভারতের সিকিম জুড়ে অবস্থিত। এর উচ্চতা প্রায় ৮৫৮৬ মিটার। বরাবরই এটি পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close