fff
বিনোদন

পয়সার জন্য’ বলিউডে ‘হিন্দু বিরোধী’ চক্রান্ত! Kangana Ranaut- র তোপের মুখে লেখিকা

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ বলিউডে বর্তমানে প্রায় সব বিতর্কেরই মধ্যমণি Kangana Ranaut
(কঙ্গণা রানওয়াত)। এবার তিনি জড়িয়ে গেলেন রক্ষা বন্ধন Boycott Raksha Bandhan Movie
ছবি নিয়ে সাম্প্রতিক বিতর্কে। সময়টা বিশেষ ভালো যাচ্ছেন বলিউডের জন্য। বলিউডের মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিকে বয়কটের দাবিতে প্রায়ই সরব নেটিজেনরা। আর এই বয়কটের ডাক দেওয়ার বড়ো মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে সামাজিক মাধ্যম (Twitter)। বিভিন্ন,  অভিনেতা ,  অভিনেত্রী, পরিচালকদের অতীতে করা বিভিন্ন মন্তব্য অথবা পোস্টকে হাতিয়ার করে আওয়াজ উঠছে তাঁদের ছবি বয়কটের (Boycott Raksha Bandhan Movie) ডাক। সামাজিক মাধ্যমে (Twitter) ট্রেন্ডিংও হচ্ছে সেই বয়কটের ডাক (Boycott Raksha Bandhan Movie)। এই সময়ে এই বয়কটের ডাক যাদের বিরুদ্ধে দেওয়া হচ্ছে, তাদের অধিকাংশকেই দাগিয়ে দেওয়া হচ্ছে Anti Hindu (হিন্দু বিরোধী) অথবা Anti National (দেশবিরোধী) তকমায়। এবার এই বয়কটের ডাকের শিকার হলো কনিকা ধিঁলো’র আসন্ন মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি  ‘রক্ষা বন্ধন’ (Boycott Raksha Bandhan Movie)।

(Boycott Raksha Bandhan Movie )কেন বয়কটের ডাক?

রক্ষা বন্ধন ছবিটির কাহিনীকার ও চিত্রনাট্যকার কনিকা ধিঁলোর পুরানো কিছু পোস্টকে ঘিরেই বিতর্কের সূত্রপাত। অতীতে গোমূত্র, হিজাব নিষিদ্ধকরণ, ভীড় হত্যা প্রভৃতি বিষয় নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে লেখালিখি করেন কনিকা ধিঁলো। তাঁর পুরানো লেখার ভিত্তিতেই এবার সরব হয়েছে একাংশ। তাঁকে ‘হিন্দু বিরোধী’ (Anti Hindu), ‘দেশ বিরোধী’ (Anti National) প্রভৃতি তকমা দিয়ে, ডাক দেওয়া হয়েছে রক্ষা বন্ধন ছবিটিকে বয়কট করার জন্য (Boycott Raksha Bandhan Movie)।  মঙ্গলবার, ২ অগাস্ট ট্যুইটারে (Twitter) এক নম্বরে ট্রেন্ডিং থাকে রক্ষা বন্ধন ছবিটিকে বয়কটের (Boycott Raksha Bandhan Movie) ডাক।

রক্ষা বন্ধন ছবিটিকে বয়কটের ডাক, ট্যুইটারে (Twitter) ট্রেন্ড হওয়ার পরেই কনিকা ধিঁলো তাঁর পুরানো সব পোস্ট মুছে ফেলেন সামাজিক মাধ্যম থেকে। এই ঘটনার প্রেক্ষিতেই ময়দানে অবতীর্ণ হন আর একজন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গণা রানওয়াত (Kangana Ranaut)। এই ধরণের সমস্ত বিতর্কেই (Kangana Ranaut) কঙ্গণার অংশগ্রহণ এখন ধারাবাহিক হয়ে দাঁড়িয়েছে। কনিকা ধিঁলো’র পুরানো পোস্টগুলো সামাজিক মাধ্যম থেকে মুছে ফেলার পরে অভিনেত্রী কঙ্গণা রানওয়াত (Kangana Ranaut) ট্যুইট করেন “আর্থিক ক্ষতি ছাড়া আর কোনো কিছুই এদের প্রভাবিত করতে পারেনা”। বলাই বাহুল্য কঙ্গনার এই ট্যুইট আক্রমণের লক্ষবস্তু কনিকা ধিঁলো। সেখানেই কঙ্গনা আরো লেখেন, “শুধুমাত্র আর্থিক ক্ষতি হওয়ার ভয়ই এদের হিন্দু বিরোধী(Anti Hindu), ভারত বিরোধী( Anti National) পোস্টগুলো ডিলিট করতে বাধ্য করায়। আর কিছুই না।”

এছাড়াও বহু মানুষ বিভিন্নভাবে কড়া প্রতিক্রিয়া দিতে থাকেন রক্ষা বন্ধন ছবিটি নিয়ে। একজন লেখেন, “হিন্দুদের অপমান করা ছাড়া বলিউডে আর কোনো কিছুই শুদ্ধ নয়। পরে এরাই আবার হিন্দুদের কাছে ফিরে আসে, তাদের ছবির প্রচার করতে। এরা আমাদের ভালোবাসে না। এরা শুধু আমাদের টাকাকে ভালোবাসে।” এরকমই নানারকম কটুক্তিতে ভরে উঠেছে সামাজিক মাধ্যমের দেওয়াল। নিজের পুরানো লেখা মুছেই রেহাই পাননি কনিকা ধিঁলো। ট্যুইটারে(Twitter) ট্রেন্ডিং হতেই থাকে ‘বয়কট রক্ষা বন্ধন মুভি’ (Boycott Raksha Bandhan Movie)।

এর মধ্যেই আরেকজন ট্যুইটার (twitter) ব্যবহারকারী নিজের লেখায় ট্যাগ করেন অভিনেতা অক্ষয় কুমারকে। তিনি লেখেন, “অক্ষয় কুমার দয়া করে এই হিন্দু বিরোধী (Anti Hindu) #কনিকা ধিঁলো’র সঙ্গে করবেন না…তোমার ছবি #রক্ষা বন্ধন বয়কট (Boycott Raksha Bandhan movie) করা হলো।”

এই তীব্র বিতর্ক এবং রক্ষা বন্ধন ছবিটিকে বয়কটের মধ্যেই, সম্প্রতি আরো একটি ছবি বয়কটের ডাক উঠেছে সামাজিক মাধ্যমে। আমির খান ও করিনা কাপুর খান অভিনীত লাল সিং চাড্ডা ছবিটিকেও বয়কটের ডাক দিয়েছেন একাংশ। ২০১৫ সালে আমির খানের করা একটি মন্তব্যের প্রেক্ষিতে লাল সিং চাড্ডা ছবিটিকেও বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে। এই ক্ষেত্রেও আমিরকে দেশ বিরোধী (Anti National) তকমা দিয়ে তাঁর আসন্ন ছবিটিকে বয়কটের ডাক দিয়েছেন একাংশ। যদিও আমির বলেছেন তিনি দেশ বিরোধী (Anti National) নন। তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে।

কিন্তু রক্ষা বন্ধন ছবিটির ক্ষেত্রে এখনও এর নির্মাতাদের থেকে কোনো বার্তা বা মন্তব্য পাওয়া যায়নি। যার পুরানো লেখা নিয়ে এতো বিতর্ক, সেই কনিকা ধিঁলোও কোনো মন্তব্য এখনো করেননি। তিনি তাঁর পুরানো পোস্টগুলো মুছে ফেললেও, তাঁর কাহিনী নির্ভর ছবি রক্ষা বন্ধনকে বয়কটের ডাক দেওয়া প্রসঙ্গে এখনও নিশ্চুপ তিনি। নিশ্চুপ ছবিটির নির্মাতা ও অন্যান্য কলাকুশলীরাও। কঙ্গনা রানাওয়াত (Kangana Ranaut) এর মতো বলিউডের একজন প্রভাবশালী অভিনেত্রী এই বয়কট বিতর্কে অংশ নিলেও, রক্ষা বন্ধন ছবিটির নির্মাতা ও কলাকুশলীরা কেন এখনো নিশ্চুপ, সেই নিয়ে সংশয়ে অনেকেই। অনেকে আশা করছেন দ্রুই কোনো বিবৃতি হয়তো নির্মাতাদের পক্ষ থেকে আসতে পারে।

এমনিতেই বাজার মন্দা চলছে বলিউডের। একমাত্র ভুলভুলাইয়া ২ ছাড়া এই মরশুমে সেভাবে সাফল্যের মুখ দেখেনি মুম্বই নগরীর সিনেমা শিল্প। তারওপর একের পর এক ছবি বয়কটের ডাক উঠছে সামাজিক মাধ্যমে। ছবির বানিজ্যিক ও আর্থিক দিক নিয়েও তাই চিন্তিত বলিউডের নির্মাতারা। এবার বয়কটের ডাকে সাম্প্রতিক সংযোজন রক্ষা বন্ধন ছবিটির। বয়কটের ডাক সফল হবে নাকি দর্শকের মন জয় করে একটি বানিজ্য সফল ছবি হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে রক্ষা বন্ধন, তা সময়ই বলবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!