দেশ

রাম,কৃষ্ণ, মা দুর্গার কার্টুন বানালেও ৬ মাসের জেল হওয়া উচিত: দাবি কঙ্গনার

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: ফ্রান্সের সন্ত্রাসবাদী হামলার প্রতিবাদে এবার মুখ খুললেন কঙ্গনা রানাওয়াত। প্রতিটি মানুষের নাস্তিক হওয়ার অধিকার আছে, এমনটাই দাবি করলেন তিনি। কোনো বিশেষ ধর্মমতে অবিশ্বাস করলেই তাঁর গলা কেটে ফেলা হবে, এহেন মানসিকতার বিরুদ্ধে চূড়ান্ত প্রতিবাদ জানিয়েছেন বলিউড ‘ক্যুইন’। তাঁর মতে কোনো বিশেষ ধর্মের ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস না করাটা কখনোই অপরাধ হিসেবে গণ্য হয় না।

ফ্রান্সে কিছুদিন আগে হয়ে যাওয়া পর পর দুটি সন্ত্রাসবাদী হামলায় এখন উত্তপ্ত গোটা দেশ। নৃশংস এই হত্যাকাণ্ডের রেশ ফ্রান্সের সীমানা পেরিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের নানা মহলেও। সেই ঘটনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের মাধ্যম হিসেবে যথারীতি সোশ্যাল মিডিয়াকেই বেছে নিয়েছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত।

নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে ক্ষোভ প্রকাশ করে কঙ্গনা বলেছেন যাঁরা অন্য ধর্মের দেব দেবীকে অসম্মান করেন, তাঁদের আইনি পথে শাস্তির ব্যবস্থা করা উচিত। কিন্তু প্রতিটি মানুষেরই ঈশ্বরে না বিশ্বাস করার অর্থাৎ নাস্তিক হওয়ার অধিকার রয়েছে। তার জন্য প্রাণ কেড়ে নেওয়া যায় না। ফ্রান্সের ঘটনার রেশ টেনে তাঁর বক্তব্য, “কেউ যদি রাম, কৃষ্ণ ,মা দুর্গা,আল্লাহ, খ্রিষ্ট অথবা অন্য কোনো ভগবানের কার্টুন বানান , কিংবা কর্মক্ষেত্রে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের অসম্মান করেন তাহলে তাঁদের ৬ মাসের জেল অথবা তদনুরূপ শাস্তি হওয়া উচিত।”

একই ট্যুইটের নীচে কমেন্টে তিনি লিখেছেন, “তোমার ঈশ্বরে আমি বিশ্বাস নাই করতে পারি। সেটা কোনো অপরাধ নয়। তোমার ধর্মে যে আমি বিশ্বাস করি না, সেটা আমি প্রকাশও করতে পারি। হ্যাঁ, সেটা মত প্রকাশের স্বাধীনতার আওতায় পড়ে।তুমি আমার গলা কেটে ফেলবে তখনই যখন আমার কথার জবাব তোমার কাছে থাকবে না।”

উল্লেখ্য, ফ্রান্সের প্যারিসে ইসলাম ধর্মগুরুর কার্টুন বানানোর অপরাধে কিছুদিন আগে এক শিক্ষকের মাথা কেটে নিয়েছিল এক দুষ্কৃতী। তার কিছুদিনের মধ্যেই নিস শহরের এক গীর্জায় ছুরি নিয়ে হামলা চালিয়ে তিনজনকে হত্যা করা হয়। এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে গর্জে উঠেছে গোটা বিশ্ব। ইসলামীয় সন্ত্রাসবাদকেই এই ঘটনার মূল হিসেবে দেখা হয়েছে। তার পরিপ্রেক্ষিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় মুখ খুলেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close