আন্তর্জাতিক

সারা শরীরে নেই একটা সুতোও, লন্ডনের রাস্তায় সাইকেল উলঙ্গ অবস্থায় চালালেন তরুণী

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: শারীরিক অসুস্থতা সম্পর্কে সচেতন হলেও মানসিক অবসাদকে আজও পাত্তা দেন না অনেকেই। অথচ এই মানসিক আবসাদই মানুষকে ঠেলে দেয় আত্মহত্যার মতো চরম পরিণতির দিকে। দীর্ঘদিন ধরেই মানসিক স্বাস্থ্যের সপক্ষে বিশ্ব জুড়ে চালানো হচ্ছে প্রচার। এবার সেই প্রচারকেই জোরদার করতে এক অভিনব পন্থা বেছে নিলেন ইংরেজ তরুণী।

আত্মহত্যার বিরুদ্ধে প্রচার চালাতে উলঙ্গ অবস্থায় সাইকেল চালিয়েছেন লন্ডনের এক তরুণী,এমনটাই জানা গেছে সূত্রের খবরে। ‘ইন্ডিয়া টাইমস’-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, লন্ডন জুড়ে প্রায় ১০ মাইল রাস্তা সাইকেল চালান কেরি বার্নেস নামে লন্ডনের ওই তরুণী। গায়ে একটি সুতোও পড়ে ছিলেন না তিনি। অভিনব এই কান্ডে ইতিমধ্যে সাড়া পড়েছে টেমস পাড়ে।

ঠিক কী কারণে এই প্রচার? জানা গেছে, বছর ২৫-এর কেরি বার্নেসের এক দিদি ছিল। ২০১১ সালে মাত্র ২০ বছর বয়সে তিনি বেছে নিয়েছিলেন আত্মহত্যার পথ।সেই ঘটনা বিশেষ ভাবে দাগ কেটেছিল ছোট্ট বার্নেসের মনে। মানসিক অবসাদের কারণে মৃত্যুর পরিসংখ্যান তাঁকে নাড়া দিয়েছিল। সেদিন থেকেই সে ভেবেছিল এ ব্যাপারে কিছু একটা সে করবেই।

গত ২৯ নভেম্বর লন্ডনের রাস্তায় সম্পূর্ণ উলঙ্গ অবস্থায় নির্দ্বিধায় সাইকেল চালান কেরি বার্নেস। এ সময় তাঁর স্তনযুগলে গ্লিটার বা চিকচিক রঙ দিয়ে লেপে দেওয়া ছিল। লন্ডনের কনভেন্ট গার্ডেন , টাওয়ার ব্রিজ, বাকিংহাম প্যালেস প্রভৃতি সমস্ত জনবহুল এলাকায় সাইকেল নিয়ে এভাবেই ঘোরেন তিনি। মানুষের হতবাক করা চাহনিকে পাত্তা না দিয়েই।

সংবাদমাধ্যমকে বার্নেস জানিয়েছেন, সম্প্রতি আরো এক কাছের মানুষকে একই কারণে হারাতে বসেছিলেন তিনি। “আমি খুব ভাগ্যবান যে আমি বলতে পারছি এই মানুষটা ভালো আছে। সুস্থ হয়ে উঠছে। কিন্তু সবাই এমন ভাগ্যবান হয় না। তাই এই সমস্ত মানুষ গুলোর জন্য আমি কিছু করতে চাই”, বলেন কেরি।

নিজের অদ্ভুত উদ্যোগ নিয়ে তিনি বলেছেন, “আমার মনে হয়েছিল সাংঘাতিক কিছু একটা করা দরকার। তারপর আমার বাড়ির লোক আমায় উলঙ্গ হয়ে বাইক রাইডের পরামর্শ দেন।”

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close