দেশ

লাভ জিহাদকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ‘লাভ আজাদ’, সোশ্যাল মিডিয়ায় সম্প্রীতির বার্তা বামেদের

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: বিবাহের নামে ধর্মান্তর বা লাভ জিহাদ নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরেই দেশ জুড়ে শুরু হয়েছে আলোড়ন। ইতিমধ্যেই কিছু রাজ্যে, বিশেষত বিজেপি শাসিত রাজ্য গুলিতে লাভ জিহাদ বিরোধী কঠোর আইন প্রণয়নের ইচ্ছাও প্রকাশ করা হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়েও দানা বেঁধেছে বিতর্ক। কর্ণাটক, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশের পর সম্প্রতি লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়েছে উত্তর প্রদেশ সরকারও।

দেশ জুড়ে যখন এভাবে লাভ জিহাদ বিরোধী মনোভাব ক্রমশ দৃঢ় হয়ে চলেছে তখনই দেখা গেল বিপরীত উদ্যোগও। এবার লাভ জিহাদকে কার্যত চ্যালেঞ্জ জানিয়ে উঠে এল ‘লাভ আজাদ অভিযান’। অল ইন্ডিয়া প্রোগ্রেসিভ উইমেন অ্যাসোসিয়েশন (AIPWA) এবং অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (AISA)-এর যৌথ উদ্যোগে এই লাভ জিহাদ বিরোধী অভিযান শুরু হয়েছে বলে জানা গেছে।

বস্তুত, কিছুদিন আগেই উত্তর প্রদেশ সরকার লাভ জিহাদের বিরুদ্ধে কড়া আইন আনার কথা ঘোষণা করেছিল। এই অপরাধে অন্তত পাঁচ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে বলে ঘোষণা করেছিল যোগী সরকার। ঠিক তার পরের দিনই ‘লাভ আজাদ’ নামের দেশ ব্যাপী অভিযান চালু করা হয়েছে। এই অভিযানের সম্পূর্ণ নাম রাখা হয়েছে, “লাভ আজাদ- লাভ জিহাদের মিথ্যের বিরুদ্ধে একটি অভিযান”।

উল্লেখ্য, ভিন্ন ধর্মে বিবাহ এবং তার জেরে ধর্ম পরিবর্তন করার ঘটনাকেই বিজেপির তরফ থেকে লাভ জিহাদ নামে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মাধ্যমে দেশে আদতে ভিন্ন ধর্মের বিবাহকেই বন্ধ করতে চাইছে বিজেপি, এমনটাই দাবি AISA এবং AIPWA-র তরফে। তাদের দাবি, বিজেপি দেশে হিংসা ছড়াতে চায়। শুধু তাই নয়, লাভ আজাদের একটি ফেসবুক পেজও খোলা হয়েছে, যেখানে নিয়মিত নানা দৃষ্টান্তের মাধ্যমে ধর্মীয় সম্প্রীতির বার্তা প্রচার করা হয়।

কিছুদিন আগেই এলাহাবাদ এক ঐতিহাসিক রায়ের মাধ্যমে জানিয়েছে, কে কাকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নেবে তা সম্পূর্ণ তার ব্যক্তিগত বিষয়। আইন বা আদালত সে বিষয়ে কোনোরকম হস্তক্ষেপ করতে পারে না। লাভ জিহাদ বিরোধী হাওয়ার মাঝেই এলাহাবাদ হাইকোর্টের এহেন মন্তব্যকে বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করেছে বিশেষজ্ঞ মহল।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close