রাজ্যরাজনীতি

‘আমি তোমাদের ঘরের লোক’, বীরভূমের গ্রামে গিয়ে আলু বরবটির তরকারি রাঁধলেন মমতা

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: একুশের বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে, রাজনৈতিক বাদানুবাদে ততই উত্তপ্ত হচ্ছে বাংলার পরিস্থিতি। একদিকে যেমন লোকসভা নির্বাচনের সাফল্যকে হাতিয়ার করে মসনদ দখলের লড়াইয়ে ঝাঁপাচ্ছে বিজেপি, অন্যদিকে তেমনই ক্ষমতা ধরে রাখতে মরিয়া তৃণমূলও। এমতাবস্থায় দলবদলের কালো মেঘে বিপর্যস্ত শাসক শিবিরের হাল ধরতে কোমর বেঁধে নেমেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

গতকালই বীরভূমের বোলপুরে রোড শো করেছিলেন তিনি। পদযাত্রার শেষে সভা থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে কড়া বার্তাও দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তারপর আজ তাঁকে দেখা গেল অন্য মেজাজে। বীরভূম থেকে ফেরার পথে আদিবাসীদের ঘরে ঘরে পৌঁছে তাঁদের সঙ্গে কথা বললেন তিনি স্বয়ং। এমনকি স্থানীয় দোকানে গিয়ে রান্নাতেও হাত লাগাতে দেখা গেল মুখ্যমন্ত্রীকে।

গতকালের সভার পর আজ কলকাতা ফিরছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেরার পথে বীরভূমের আদিবাসী গ্রাম গুলি একবার ঘুরে দেখেন তিনি। গ্রামবাসীদের ঘরে ঘরে পৌঁছে তাঁদের অভাব অভিযোগের কথা শোনেন তিনি। শুধু তাই নয়, সেই সঙ্গে সমস্ত সমস্যা মেটানোর প্রতিশ্রুতিও দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলা বাহুল্য, মুখ্যমন্ত্রীর এহেন আকস্মিক এবং অপ্রত্যাশিত আগমনে আপ্লুত গ্রামবাসীরা।

গ্রামের পথে হাঁটতে হাঁটতে এদিন আচমকাই এক চায়ের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে পড়তে দেখা যায় তাঁকে। দোকানে গিয়ে জিজ্ঞাসা করেন, “কী রান্না হচ্ছে?” এখানেই শেষ নয়, এরপর নিজেই এগিয়ে গিয়ে খুন্তি নিয়ে রান্নায় হাত লাগান। রাঁধেন আলু বরবটির তরকারি। এভাবেই বীরভূমের বল্লভপুর গ্রামে গিয়ে গ্রামবাসীদের সঙ্গে আজ জনসংযোগ বৃদ্ধি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর আগমনে স্বভাবতই হইচই পড়ে যায় বল্লভপুর গ্রামে। গ্রামবাসীরা সকলেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে সামনে পেয়ে উচ্ছ্বসিত। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁদের কাছে জানতে চান সরকারি প্রকল্পের সুবিধা তাঁরা ঠিকঠাক পাচ্ছেন কিনা। আদিবাসীদের উদ্দেশ্যে তাঁর বার্তা, “আমি তোমাদের ঘরের লোক।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বাংলায় আদিবাসী ভোটকে টার্গেট করে অনেক দিন আগে থেকেই প্রচার শুরু করেছে বিজেপি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের রাজ্য সফর গুলিতে সেই ইঙ্গিত কার্যত স্পষ্ট। এবার গেরুয়া শিবিরের সেই চালের পাল্টা দিতে মরিয়া তৃণমূলও।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close