খবররাজ্য

আমি যখন রেলমন্ত্রী ছিলাম মিডিয়া দেখাতো ট্রেনে শুধু ইঁদুর ঘুরে বেড়াচ্ছে: মমতা

নিজস্ব প্রতিবেদন: তৃণমুল নেতা অনুব্রত মন্ডল, পার্থ চ্যাটার্জির গ্রেফতারির পর থেকে সংবাদমাধ্যমের একাংশের উপর ক্ষোভ উগড়ে দিতে দেখে গেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে(Mamata Banerjee)। তৃণমূলের ছাত্র পরিষদের সমাবেশ হোক কিংবা কোনো সরকারি অনুষ্ঠান, বিভিন্ন মঞ্চ থেকে মিডিয়ার বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ আনতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। এবারও সেই সুর ধরা পড়ল তাঁর গলায়। তিনি যখন রেলমন্ত্রী ছিলেন সেই সময়ও সংবাদমাধ্যমের একাংশ তাঁর সাথে অবিচার করেছেন বলে অভিযোগ তুললেন তিনি। তাঁর দাবি এখনের মত তখনও তিনি ‘কুৎসা’র শিকার হয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, “এখানে কিছু পলিটিক্যাল পার্টি আর টিভি মিডিয়া আছে। কিছু গন্ডগোল হলেই ইঁদুর কামড়েছে করে সারাক্ষণ ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমি যখন রেলমন্ত্রী ছিলাম, তখন রেলে শুধু ইঁদুর ঘুরে বেড়াচ্ছে দেখাতো। আজ কি ঘুরে বেড়াচ্ছে তা আর দেখায় না। ভালো জিনিসটা দেখায় না। ভালো জিনিসটা দেখালে অনেক মানুষ উপকৃত হত ও কর্মসংস্থান বৃদ্ধি পেত।”

আরও পড়ুন:মমতা যখন রেলমন্ত্রী ছিলেন বুদ্ধবাবুকে বাদ দিয়ে অনুষ্ঠান করেছিলেন, দিল্লি শিখেছে মমতার থেকে: সুজন চক্রবর্তী

আজ নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে রাজ্যের কারিগরি শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও স্কিল ডেভেলপমেন্ট দপ্তরের উদ্যোগে আয়োজিত ‘জব ফেয়ার’ বা চাকরির মেলার সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। আগামী দিনের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ১০ হাজার যুবক-যুবতীর হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেন। পাশাপাশি তিনি বলেন, “হোম ট্যুরিজমের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। এই ধরনের প্রচুর কাজের সুযোগ রয়েছে। এই বছর প্রথম সাড়ে ৪ থেকে ৫ লক্ষ স্কুলের জামা কাপড় স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মেয়েরা তৈরি করছেন। অর্থাৎ সরাসরি কর্মসংস্থান তৈরি হয়ে যাচ্ছে। তিন বছর করে অর্ডার পাচ্ছেন তাঁরা। একইসঙ্গে বন্যা, পুজো, ঈদের শাড়ি তাঁতিদের অর্ডার দেওয়া হয়েছে। তাঁরা আজকে নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। সারা দেশে যখন ৪৫ শতাংশ কর্মসংস্থান কমে গিয়েছে, তখন বাংলায় ৪০ শতাংশ কর্মসংস্থান বাড়িয়ে বেড়েছে। আর এই স্কিলের আওতায় কয়েক লক্ষ ছেলেমেয়ের চাকরির জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।”

আরও পড়ুন:জ্ঞানবাপী মসজিদ চত্বরে পূজার্চনার দাবি খতিয়ে দেখবে আইন, ঘোষণা বারাণসী জেলা আদালতের

এমনিতেই শিক্ষক নিয়োগে দুর্নীতি রাজ্য সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলেছে। প্রশ্ন উঠছে রাজ্যের শিক্ষার মান নিয়েও। বিরোধীরাও রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য শিক্ষার অগ্রগতি নিয়ে গর্বের সুর শোনা গেছে মমতার গলায়। অন্য দিকে এই অনুষ্ঠান শেষ করেই মুখ্যমন্ত্রী রওনা দেবেন চার দিনের মেদিনীপুর সফরে। সোমবার খড়্গপুরে কোনও কর্মসূচি নেই তাঁর। তবে মঙ্গলবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল নেতৃত্বকে নিয়ে বৈঠকে বসতে পারেন তিনি।

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close