রাজ্য

“বীর দর্শনে মমতাকে তিহার জেলে যেতে হবে”, মুখ্যমন্ত্রীকে খোঁচা শুভেন্দুর

মহানগর বার্তা ডেস্ক : অনুব্রত মণ্ডলকে বীরের মতো ফেরাতে হবে। বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলের বুথ কর্মী সম্মেলনে এমনই নির্দেশ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee)। এবার সেই মন্তব্য নিয়ে কটাক্ষ করতে শোনা গেল বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে । শুক্রবার শিলিগুড়ির বাগডোগরা বিমানবন্দরে নেমে শুভেন্দুর বক্তব্য, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়(Mamata Banerjee) যাকে বীর বলেছেন, তার সঙ্গে দেখা করতে দিল্লির তিহার জেলে যেতে হবে।” এ প্রসঙ্গে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষের পালটা বক্তব্য,”চোর বলেছে বিজেপি, সিবিআই চাই – বলেছে বিজেপি। এফআইআর করেছে বিজেপি। সেই বিজেপিতে বাঁচার জন্য গিয়েছেন শুভেন্দু। যাকে নিয়ে কটাক্ষ করছেন, তার আগে ভাবুন নিজে বাঁচতে গিয়েছেন।”

আরও পড়ুন:“আমার মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়”, এবার হুমকির মুখে আনিসের ভাই সলমন

শুক্রবার শিলিগুড়ি পৌঁছে বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। সেখান থেকে আক্রমণাত্মক বক্তব্য পেশ করেন। তবে তাঁর আক্রমণের তিরে শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই(Mamata Banerjee) ছিলেন না। শনিবার উত্তরবঙ্গে দু’দিনের সফরে আসছেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তাঁর সফর নিয়েও এদিন বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর মন্তব্য,”কাল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় আসছেন টাকা তুলতে।” এ নিয়ে তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন,”শুভেন্দু চোর, তোলাবাজ, ঘুষখোর। তিনিই তো তোলা নিয়ে বেড়াতেন। জেলায় জেলায় অবসার্ভার থাকার সময় তোলা তোলার অভিযোগ আসত। সেই কারণে অভিষেক ওকে সরিয়েছিল। তাই ও এটা বলছে।”

আরও পড়ুন:কেষ্টপুর জোড়া খুনের মাস্টারমাইন্ড সত্যেন্দ্র, অবশেষে হাওড়া স্টেশন থেকে গ্রেফতার

বিরোধী দলনেতা বলেন, “তৃণমূল কংগ্রেস দলটা সম্পূর্ণ একটা প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি। দলটা পরিবারবাদ, তোষণ ও দুর্নীতির উপর চলছে। তারা রাজনীতি করছে টাকা তোলার জন্য। তিনি যে ভাবছেন বীর। সেই বীরের সঙ্গে দেখা করার জন্য তিহার জেলে যেতে হবে।”তিনি আরও বলেন,”দুর্নীতিগ্রস্ত দল দুর্নীতিবাজদের সম্মান করবে, এটাই তো স্বাভাবিক। এখন আত্মবিশ্বাস না দেখালে তো পঞ্চায়েত নির্বাচনে মনোনয়ন দিতে পারবে না। কাল যারা দেখা করতে গিয়েছিল, পঞ্চায়েত প্রধানরা, তারা সব চোর। আর ভাইপো-সহ ডাকাতরা মঞ্চে বসেছিল। আত্মবিশ্বাস বজায় রাখার জন্য ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারির মধ্যে পঞ্চায়েত ভোট করবে রাজ্য সরকার।”

সবার খবর সঠিক খবর পড়তে চোখ রাখুন মহানগর বার্তায়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
নিজের লেখা নিজে লিখুন
Close
Close