রাজ্যরাজনীতি

‘স্থায়ী চাকরি সম্ভব নয়,বাড়াবাড়ি করবেন না’, কর্মসংস্থান নিয়ে বিরক্ত মুখ্যমন্ত্রী

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক:একুশের বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে, রাজ্য জুড়ে ততই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে রাজনৈতিক পরিস্থিতি। চারপাশের ঘটনা জানান দিচ্ছে ভোট এসে গেছে দরজায়। ভোটের মুখে শাসক দলকেও একাধিক নতুন কর্মসূচি নিয়ে হাজির হতে দেখা গেছে। কিন্তু তার মাঝেই এবার মুখ্যমন্ত্রীর গলায় শোনা গেল বিরক্তির সুর।

এদিন একটি জনসভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাফ জানিয়ে দিলেন, সকলের জন্য স্থায়ী চাকরির ব্যবস্থা করা সম্ভব নয় তাঁর পক্ষে। তিনি আইন মেনে চলেন। তাই যে কেউ স্থায়ী চাকরির দাবি জানালেই সরকার তা করে দিতে পারে না। তিনি বলেন, “কোনটা করতে পারি কোনটা না করতে পারি আপনাদের বুঝতে হবে। সরকারের কাজ করার একটা সীমা আছে। যেটা সম্ভব সেটা আমি করে দিই।” বস্তুত, রাজ্যের মানুষের ক্রমবর্ধমান চাহিদায় যে তিনি বিরক্ত, এদিন সেকথাই স্পষ্ট করেন মুখ্যমন্ত্রী।

ঠিক কী সূত্রে মুখ্যমন্ত্রীর এই বিরক্তি? উত্তরে পথবন্ধু প্রকল্পের উদাহরণ টেনে এনেছেন তিনি। হাইওয়েতে হঠাৎ কোনও দুর্ঘটনা ঘটলে যাতে সময় নষ্ট না করে দ্রুত প্রাথমিক চিকিৎসাটুকু শুরু করা যায়, তার জন্য একটি বিশেষ অ্যাপ চালু করেছিল রাজ্য সরকার। পথবন্ধু প্রকল্পের সঙ্গে যুক্ত মানুষরাও নাকি স্থায়ী চাকরির দাবি জানাচ্ছেন, অভিযোগ করেছেন তিনি। আর এর ফলেই এখন বিরক্ত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুধু তাই নয়, কর্মসংস্থান ইস্যুতে মেজাজ হারিয়ে এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলে ওঠেন, “বারাবারি করবেন না।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ভোট বাজারে চলতি মাসেই চালু হয়েছে রাজ্য সরকারের ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্প। সাধারণ মানুষের সমস্যার কথা শুনতে এবার থেকে বাড়ির দুয়ারে পৌঁছে যাবেন দলীয় কর্মীরা, এমনটাই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই সঙ্গে স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পকেও সকলের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন তিনি। এত করার পরেও যেন মানুষের চাহিদা মিটতে চাইছে না, এদিন সভা থেকে সেই অভিযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close