দেশ

২০ বছর ধরে আটক ছিলেন পাকিস্তানের জেলে, অবশেষে ঘরে ফিরছেন ভারতীয় ব্যক্তি

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: প্রায় দুই দশক ধরে পাকিস্তানের জেলে কাটিয়ে অবশেষে দেশে ফিরছেন এক ব্যক্তি। উড়িষ্যার একটি উপজাতি সম্প্রদায়ের ওই ব্যক্তি প্রায় ২৪ বছর আগে রহস্যজনক ভাবে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়েছিলেন। লাহোরের এক জেলে এত দিন কাটিয়ে চলতি মাসেই বাড়ি ফিরছেন তিনি।

জানা গেছে, ৪৫ বছর বয়সী বিরজু কুলু নামের ওই ব্যক্তি আংশিক ভাবে মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন। উড়িষ্যার সুন্দরগড় জেলার জঙ্গতোলি গ্রামে তাঁর বাড়ি। ২৪ বছর আগে রাঁচির এক হোটেলে কাজ করাকালীন হঠাৎই নিখোঁজ হন তিনি। তবে তাঁর সন্ধানে পরিবারের লোকজনের তরফে কোনো রিপোর্ট দায়ের করা হয় নি এবং স্থানীয় পুলিশও বিষয়টি নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামায় নি।

“কিভাবে উনি পাকিস্তানে পৌঁছলেন তা সঠিকভাবে কেউ জানে না। জানা গেছে কোনোভাবে তিনি অমৃতসরে পৌঁছেছিলেন এবং সেখান থেকে বর্ডার অঞ্চলে ঘোরাফেরা করছিলেন। পাকিস্তানের কর্তৃপক্ষ তাঁকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেফতার করেন এবং সেই থেকে তিনি সেখানকার জেলেই ছিলেন। গত ২৬ অক্টোবর পাকিস্তান থেকে তাঁকে এই দেশের কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হলে তাঁর পরিবারের লোকজন এ ব্যাপারে জানতে পারেন”, বলেন সুন্দরগড়ের পুলিশ সুপারিন্টেনডেন্ট সাগরিকা নাথ।

প্রাথমিক ভাবে ভারতের দূত সন্দেহেই পাকিস্তানের জেলে ২০ বছর কাটিয়েছেন বিরজু কুলু। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে কোনো অপরাধের অভিযোগ প্রমাণ করা না গেলে পাকিস্তান থেকে মুক্তি দেওয়া হয় তাঁকে। পরিবারের লোকেরা স্বভাবতই এই সংবাদে বিস্মিত হয়েছেন। তাঁরা নিখোঁজ বিরজু কুলুকে আবার কখনো দেখতে পাবেন, সেই আশাই রাখেন নি। পুলিশের এক আধিকারিকের কথায়, “এই ক-বছরে ওঁর মা বাবা মারা গেছেন। যখন পুলিশের তরফ থেকে পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওঁর ফেরার খবর দেওয়া হয়, ওঁর দিদি খুবই খুশি হন।”

জানা গেছে, এরপর বিরজু কুলুর সঙ্গে তাঁর দিদি ভিডিও কলে কথাও বলেছেন। আপতত তাঁকে অমৃতসরের এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাখা হয়েছে। তাঁর করোনা পরীক্ষা করা হবে বলে সূত্রের খবর।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close