আন্তর্জাতিক

“আমি ভগবান নই, সাধারণ ফুটবলার”,কলকাতায় এসে বলেছিলেন ফুটবলের ঈশ্বর মারাদোনা

মহানগরবর্তা ওয়েবডেস্ক : সত্তরের দশকে বাংলার টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতি দেখে কবি নবারুণ ভট্টাচার্য বলে উঠেছিলেন, “এই মৃত্যু উপত্যকা আমার দেশ না।” ২০২০ সালে দাঁড়িয়ে যেন পদে পদে মনে পড়ে যাচ্ছে তাঁর সেই অমর পংক্তি। গোটা বছর জুড়ে যে মৃত্যু মিছিলের সাক্ষী থেকেছে সারা বিশ্ব, তাতে সাধারণ মানুষের সঙ্গে সঙ্গে বাদ যান নি কিংবদন্তিরাও। বছর শেষের সেই মৃত্যু তালিকারই নবতম সংযোজন ফুটবলের জাদুকর দিয়েগো মারাদোনা।

আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার দিয়েগো মারাদোনা কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট অর্থাৎ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন গতকালই। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬০ বছর। তাঁর এই আচমকা মৃত্যুর খবরে গোটা দুনিয়ার সাথে সাথে তাই মনখারাপ ‘ফুটবলের মক্কা’ কলকাতারও।

মারাদোনার কলকাতা সফরের দিকে ফিরে তাকালে দেখা যায়, ২০০৮ সালে প্রথম মহানগরীতে পা দিয়েছিলেন আর্জেন্টিনার তারকা ফুটবলার। কলকাতায় তাঁকে ঘিরে উন্মাদনা দেখে নিজেই অভিভূত হয়ে গিয়েছিলেন মারাদোনা৷ মিশে গিয়েছিলেন শহরের ফুটবল পাগল জনতার সঙ্গে৷ শুধু তাই নয়, কলকাতাকে যথার্থই ভালোবেসেছিলেন তিনি। তাই ফিরে এসেছিলেন দ্বিতীয় বার। আর ফিরে এসেই করেছিলেন এক অমোঘ উক্তি।

২০১৭ সালে তিন দিনের সফরে এসে মারাদোনা বলেছিলেন, “আমি ঈশ্বর নই, এক সাধারণ ফুটবলার।” ‘ফুটবলের ঈশ্বরের’ মুখে এমন কথা শুনে সেদিন আবেগে ভেসেছিল তিলোত্তমা। ১৯৮৬-র বিশ্বকাপের নায়ক মারাদোনা সেবার কলকাতায় এসে নেমেছিলেন মাঠেও। চ্যারিটি ম্যাচে পা মিলিয়ে মন ভরিয়েছিলেন শহরের। সেদিনের মারাদোনা জ্বরে আক্রান্ত কলকাতা আজও ভুলতে পারেনি কিংবদন্তির সেই সরল স্বীকারোক্তি।

বস্তুত, ১০ নম্বর নীল সাদা জার্সি পড়ে দিয়েগো মারাদোনা শেষবার মাঠে নেমেছিলেন সেই নব্বইয়ের দশকে। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি পেলের সঙ্গে তাঁর তুলনায় আজও জমে ওঠে বাঙালির চায়ের আসর। বিশ্বের সর্বকালের সেরা সেই ফুটবলারদের একজনকে গ্রাস করল ২০২০। আর কত মৃত্যু দেখবে পৃথিবী? উত্তর অজানাই।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close