fff
বিনোদন

Anti Hindu: স্যানিটারি ন্যাপকিনের উপরে কৃষ্ণের মূর্তি! বলিউড ছবির পোস্টার ঘিরে ‘হিন্দু বিরোধীতা’র অভিযোগ

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ একের পর এক ছবি নিয়ে বিতর্ক যেন থামতেই চাইছে না। ‘হিন্দু বিরোধী’ (Anti Hindu) তকমা দিয়ে কয়েকদিন আগেই ‘কালী’ ছবির পোস্টার নিয়ে বিতর্ক চরমে ওঠে। বিভিন্ন জায়গায় হয় এফআইআর। সেই ছবিরও বিতর্কের কেন্দ্রে ছিলো ছবিটির পোস্টার। পোস্টারের মাধ্যমে ‘কালী’ কে অপমান করা হয়েছে বলে দাবি করতে থাকেন একদল কট্টরপন্থী। এই বিতর্কে জড়ায় সাংসদ মহুয়া মৈত্রের নামও। এবার বিতর্ক শুরু হয়েছে ‘মাশুম সওয়াল’ নামে আরেকটি ছবির পোস্টার নিয়ে।

কেন বিতর্ক?

স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary Napkin) এর ওপর ভগবান কৃষ্ণের (Lord Krishna) ছবি দিয়ে নাকি এই ছবির পোস্টার নির্মিত হয়েছে। সেই নিয়েই আপত্তি ধর্মীয় কট্টরপন্থীদের। তাঁদের দাবি এই ছবির পোস্টারের মাধ্যমে অপমান করা হয়েছে ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে (Lord Krishna)। অপমান করা হয়েছে হিন্দু ধর্মকেও। এই ছবির পোস্টার ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত (Anti Hindu) হিসাবেই চিহ্নিত করছেন একদল ধর্মীয় কট্টরপন্থী।

মাশুম সওয়াল (Massom Sawal) ছবিটির বিষয়বস্তু কী?

মাশুম সওয়াল কথাটির বাংলা করলে দাঁড়ায় নিরীহ প্রশ্ন। এই ছবিটির কেন্দ্রীয় চরিত্র একটি খুদে শিশু। শিশুটিকে একটি ভগবান কৃষ্ণ (Lord Krishna) এর একটি মূর্তি উপহার দেন বাড়ির বড়োরা। মূর্তিটি উপহার দিয়ে তাকে বলা হয় এটিই তার ভাই। শিশু বয়সের মেয়েটির টান তৈরি হয় কৃষ্ণ মূর্তিটির প্রতি। সে ভগবান কৃষ্ণ (Lord Krishna) এর এই মূর্তিটিকে ভাই ভাবতে থাকে।

ইতিমধ্যেই বয়োঃসন্ধীতে এসে উপস্থিত হয় মেয়েটি। স্বাভাবিক জৈবিক প্রক্রিয়া হিসাবেই মেয়েটির ঋতুচক্র শুরু হয়। তখন ঋতুমতি মেয়েটির ওপর নেমে আসে সামাজিক নানারকম বিধিনিষেধ। ঋতুমতি অবস্থায় এই সামাজিক বিধিনিষেধের বিরুদ্ধতা করা শুরু করে মেয়েটি। এমনকি শেষ পর্যায়ে আদলতেও দারস্থ হয় সে। এই পর্যায় ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে মাশুম সওয়াল (Massom Sawal) ছবিটির বিষয়বস্তু।

মাশুম সওয়াল (Massom Sawal) ছবিটির পোস্টার নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক। এই ছবির পোস্টারে একটি স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary Napkin) এর আদল ফুটে উঠেছে। যার ওপর ছবিটির কলাকূশলীদের সঙ্গেই শোভা পাচ্ছে ভগবান কৃষ্ণ (Lord Krishna) এর একটি মূর্তি। স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary Napkin) এর ওপর ভগবান কৃষ্ণ (Lord Krishna) এর মূর্তি ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত বলেই অভিমত একদল কট্টরপন্থীর। তাঁরা দাবি করেছেন ছবিটির এই পোস্টার আদতে ‘হিন্দু বিরোধী’ (Anti Hindu)।

যদিও ছবিটির নির্মাতাদের দাবি, তাঁরা কারও ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করতে চাননি। তাঁরা ছবিটির মাধ্যমে আদতে ঋতুস্রাব নিয়ে সমাজে চলতি কুসংস্কার ও বিধিনিষেধকে ভাঙার বার্তা দিতে চেয়েছিলেন। ছবির নির্মাতারা জানিয়েছেন, ছবির মূল বিষয়বস্তু ঋতুস্রাবকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হয়েছে। তাই ঋতুস্রাব এর প্রতিক হিসাবে স্যানিটারি ন্যাপকিন (Sanitary Napkin) ব্যবহার করা হয়েছে ছবিটিতে।

মাশুম সওয়াল (Massom Sawal) ছবিটিই প্রথম নয়। এর আগেও হিন্দু বিরোধী (Anti Hindu) তকমা দিয়ে বিভিন্ন ছবিকে বয়কটের ডাক উঠেছে সামাজিক মাধ্যমে। আমীর খান ও করিনা কাপুর খান অভিনীত ছবি ‘লাল সিং চাড্ডা’ ছবিটিকে ঘিরেও একই বিতর্ক শুরু হয়েছে। আমির খানে ২০১৫ সালের একটি মন্তব্যকে হাতিয়ার করে তাঁকে হিন্দু বিরোধী (Anti Hindu), দেশ বিরোধী তকমা দিয়েছেন একাংশ। এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে লাল সিং চাড্ডা ছবিটি বয়কটের ডাক দেওয়া হয়েছে সামাজিক মাধ্যমে। এছাড়াও সম্প্রতি ‘রক্ষা বন্ধন’ নামে আরেকটা ছবিকে কেন্দ্র করেও ‘হিন্দু বিরোধী’ (Anti Hindu) হওয়ার আওয়াজ ওঠে। এক্ষেত্রে অভিযোগ ছবিটির কাহিনীকারকে ঘিরে। তাঁর পুরানো কিছু লেখাকে কেন্দ্র করেই ওঠে এই অভিযোগ। ‘রক্ষা বন্ধন’ ছবিটিকেও বয়কটের ডাক দেন কট্টরপন্থীরা।

এর আগে লীনা মনিমেখলার ‘কালী’ ছবিটির পোস্টার ঘিরেও বিতর্ক চরম পর্যায়ে পৌঁছায়। এই ছবি ঘিরে বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভেও নামেও কিছু ধর্মীয় কট্টরপন্থী। এই ছবির পোস্টারে কালীকে সিগারেট খেতে দেখা যাচ্ছে। তাই নিয়েই আপত্তি ছিলো ধর্মীয় কট্টরপন্থীদের। এই বিতর্কে নাম জড়ায় তৃণমূলের কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্রের। বিভিন্ন থানায় এফআইআর দায়ের হয় সাংসদ মহুয়া মৈত্র এবং ‘কালী’ ছবির নির্মাতা লীনা মনিমেখলাইয়ের বিরুদ্ধে।

একের পর এক ছবির বিরুদ্ধে হিন্দু বিরোধী (Anti Hindu) তকমা দিয়ে বারবার বিতর্ক উঠছে। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের দাবি নিয়ে দেশে বারংবার সোচ্চার হচ্ছেন ধর্মীয় কট্টরপন্থীরা। বহু ছবির বিরুদ্ধেই অভিযোগ উঠছে হিন্দু বিরোধী (Anti Hindu) হওয়ার। এই অভিযোগে ছবিগুলোকে বয়কটের ডাকও উঠছে। ধর্মীয় ভাবাবেগ নিয়ে এই বিতর্ক থামতেই চাইছেনা। এই পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞ মহল। যে কোনো বিষয়েই ‘হিন্দু বিরোধী’ (Anti Hindu) হওয়ার বা ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত নিয়ে এই ‘অসহিষ্ণুতা’ নিয়ে উদ্বিগ্ন বিশেষজ্ঞরা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!