রাজনীতি

অসুস্থ বুদ্ধবাবুর ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় কেন? রাজ্যপালকে তোপ মহম্মদ সেলিমের

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক:রাজ্যপালের সমালোচনায় এবার মুখ খুললেন মহম্মদ সেলিম। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শয্যাশায়ী ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিয়ে রাজ্যপাল অন্যায় করেছেন, এমনটাই দাবি করলেন সিপিএম নেতা। রাজ্যপালের এহেন আচরণ যে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষে অপমানজনক, সে কথাও জানিয়েছেন তিনি।

পুজোর মরশুমে গত শনিবার মহাষ্টমীর রাতে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সঙ্গে দেখা করতে তাঁর বাড়িতে গিয়েছিলেন সস্ত্রীক পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। প্রবীন বুদ্ধদেব বাবুর শারিরীক অবস্থার খোঁজ নিতেই তিনি তাঁর বাড়ি গিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। সেদিন রাতেই রাজ্যপাল তাঁর এই সাক্ষাতের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে এদিন তিনি মোট চারটি ছবি পোস্ট করেন। ছবির সঙ্গে তিনি লেখেন, “আজ আমি শ্রীমতী সুদেশ ধনখড়ের সঙ্গে প্রবীন কমিউনিস্ট নেতা ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য এবং তাঁর স্ত্রী মীরা দেবীর সঙ্গে দেখা করে এলাম। তাঁদের শুভ অষ্টমীর শুভেচ্ছা জানাই এবং সুস্বাস্থ্যের কামনা করি।”

রাজ্যপালের পোস্ট করা ছবিগুলিতে দেখা গেছে অসুস্থ শয্যাশায়ী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে। দেখা গিয়েছে সস্ত্রীক ধনকড় বসে রয়েছেন আর বিছানায় শুয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে সেই ছবি। এছাড়া বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের স্ত্রী মীরা দেবীকেও ছবিতে দেখা গেছে রাজ্যপালের যথাযথ আপ্যায়নের বন্দোবস্ত করতে। বাড়ির সদর দরজার সামনেই তিনি সাদর অভ্যর্থনা জানান রাজ্যপাল ও তাঁর স্ত্রীকে।

জানা গেছে, প্রায় ৩০ মিনিট বুদ্ধবাবুর বাড়িতে ছিলেন তিনি।তারপর সংবাদমাধ্যমের সামনে বুদ্ধবাবুর ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। বলেন,“বুদ্ধবাবু অত্যন্ত অভিজ্ঞ একজন রাজনীতিবিদ। তিনি পশ্চিমবঙ্গের একজন জীবন্ত সজ্জন ব্যক্তি। তাঁর সঙ্গে কথা বলে উদ্দীপ্ত ও অনুপ্রাণিত হই। তাঁর সঙ্গে আমার রাজ্যের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এর থেকে বেশি কিছু বলা ঠিক হবে না। ওঁর সুস্থতা কামনা করি।”

কিন্তু প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, চিরকালীন প্রচারবিমুখ বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অসুস্থতার এহেন ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া কোনোভাবেই সমর্থন করতে পারেন নি সিপিএম নেতা-কর্মীরা ।বুদ্ধবাবুর ছবি এভাবে প্রকাশ্যে আনা উচিত হয়নি বলে জানিয়েছেন রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের প্রাক্তন সিপিএম সাংসদ মহম্মদ সেলিম।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। এদিন তাঁর সঙ্গে দেখা করার রাজ্যপালের উদ্যোগ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়। কিন্তু সিপিএম নেতৃত্ব ও কর্মীবৃন্দের মতে কখনোই এমন অসুস্থ অবস্থার ছবি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ুক তা চাননি বুদ্ধবাবু। একজন সাংবিধানিক পদের অধিকারী হয়েও কীভাবে রাজ্যপাল এই কাজ করলেন তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close