আন্তর্জাতিক

মদের নেশায় স্যানিটাইজার পান, মৃত্যু ৭ জনের, কোমায় ২ ব্যক্তি

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: প্রায় বছর খানেক আগে চিনে প্রথম দেখা মিলেছিল করোনা ভাইরাসের। তার পর থেকে একনাগাড়ে বিশ্বজুড়ে ধ্বংসলীলা চালিয়েছে এই যায় ভাইরাস। শুধু মৃত্যু মিছিল নয়, করোনা অতিমারীর জেরে বদলে গেছে মানুষের দৈনন্দিন জীবনও। মাস্ক, স্যানিটাইজার হয়ে উঠেছে মানুষের নিত্যসঙ্গী। তবে সুরক্ষার কবচ সেই স্যানিটাইজারই এবার কাড়ল প্রাণও।

জানা গেছে, রাশিয়ার এক গ্রামে মদের বদলে স্যানিটাইজার খেয়েছিলেন কিছু মানুষ। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি।ওই স্যানিটাইজার খেয়ে মৃত্যু হয়েছে অন্তত সাত জনের। এছাড়া দুজন ব্যক্তি কোমায় আছেন বলেও জানা গেছে সূত্রের খবরে। পূর্ব রাশিয়ার ইয়াকুতিয়া অঞ্চলের একটি গ্রামে এক বাড়িতে কয়েকদিন আগে একটি পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটেছে সেখানেই।

বস্তুত, করোনা আবহে হাত জীবানুমুক্ত রাখার জন্য সাবানের বিকল্প হল স্যানিটাইজার। দেশ বিদেশের চিকিৎসক মহল বারবার স্যানিটাইজার ব্যবহারের সুপারিশ করে আসছেন। স্যানিটাইজারে অ্যালকোহলের মাত্রা কতটা থাকে তার উপরেই নির্ভর করে এর জীবানুনাশক ক্ষমতা। কিন্তু অ্যালকোহল থাকলেও হ্যান্ড স্যানিটাইজার কি আদেও পানের যোগ্য? বলা বাহুল্য তা কিন্তু নয়। স্যানিটাইজার খাওয়ার চরম পরিণতি যে মৃত্যু রাশিয়ার ঘটনাই চোখে আঙুল দিয়ে তা দেখিয়ে দিল।

জানা গেছে, রাশিয়ার ওই পার্টিতে একটি লেবেল ছাড়া বোতলে রাখা হয়েছিল হ্যান্ড স্যানিটাইজার। পার্টি চলাকালীন সেটিকে মদ হিসেবে পান করে ওই ন’জন। বিষক্রিয়ায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় একজনের। বাকিদের দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলেও শেষরক্ষা হয় না। হাসপাতালে মৃত্যু হয় আরও ছ’জনের। বাকি দুজন আশঙ্কাজনক অবস্থায় কোমায় ভর্তি রয়েছেন।

তদন্ত সূত্রে উঠে আসা তথ্য অনুযায়ী, ওই স্যানিটাইজারের অ্যালকোহল পরীক্ষা করে দেখা যায়, তাতে ৬৯ শতাংশ মিথানল রয়েছে। যা খেলে মৃত্যু অনিবার্য। মূলত রাশিয়ার গ্রামে গরিব মানুষদের মধ্যে কম দামে নেশা করতে গিয়ে স্যানিটাইজার খাওয়ার প্রবণতা নতুন নয়। বর্তমানে মিথানল যুক্ত স্যানিটাইজার বিক্রি নিষিদ্ধ হয়েছে এলাকায়।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close