আন্তর্জাতিক

জন্ম দিয়েই করোনায় মৃত্যু মায়ের, শেষ বারের মতো সদ্যোজাতকে দেখলেন ভিডিও কলে

মহানগরবার্তা ওয়েবডেস্ক: প্রায় বছর খানেক আগে চিনের উহান প্রদেশে প্রথম দেখা মিলেছিল করোনা ভাইরাসের। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্ব জুড়ে এই মারণ ভাইরাসের দাপট প্রাণ কেড়েছে বহু মানুষের। শুধু তাই নয়, মানুষের দৈনন্দিন জীবনের স্বাভাবিক ছন্দকেই এলোমেলো করে দিয়েছে করোনা ভাইরাস। এহেন পরিস্থিতিতে ফের এক মর্মান্তিক দৃশ্যের সাক্ষী থাকল আমেরিকা।

সন্তানের জন্ম দেওয়া যে কোনো মায়ের কাছেই অত্যন্ত আনন্দের, কিন্তু সেই আনন্দের মুহূর্ত এক নিমেষে বিষাদে পরিণত হল মারণ ভাইরাসের থাবায়। জন্ম দেওয়ার পরেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন করোনা আক্রান্ত মা। সদ্যোজাতকে একবারের জন্যেও ছুঁয়ে দেখতে পারেননি তিনি।

সূত্রের খবরে জানা গেছে, গত মাসে একটি সুস্থ মেয়ে সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন আমেরিকার ভানেসা গনজালেজ। কিন্তু সন্তানকে কখনো ছুঁয়ে দেখা তো দূরের কথা, কখনো চোখের সামনেও দেখতে পাননি তিনি। ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় সদ্যোজাতকে মায়ের কাছ থেকে দূরে রেখেছিলেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এমনকি বাড়ি ফিরেও তাঁকে শিশু কন্যার কাছ থেকে আলাদা রাখা হয়। ভিডিও কলের মাধ্যমেই মেয়েকে দেখতেন গনজালেজ।

শুধু মনে আশা ছিল সুস্থ হয়ে একদিন ঠিক মেয়ের কাছে পৌঁছোতে পারবেন তিনি। কিন্তু তাঁর সে আশা পূরণ হয় নি। এক মাসের মধ্যেই মারা যান তিনি। মর্মান্তিক এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমেছে ওই পরিবারে। জানা গেছে, গনজালেজ যখন সন্তানসম্ভবা ছিলেন, তখনই তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রিপোর্ট পজিটিভ আসার ৫ দিনের মাথাতেই শিশু কন্যার জন্ম দিয়েছিলেন তিনি।

চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন গনজালেজ সুস্থ হয়ে উঠছেন। কিন্তু আচমকাই পরিস্থিতি চলে যায় হাতের বাইরে। হার্ট অ্যাটাকে মারা যান গনজালেজ। কোভিডের জটিলতার কারণেই হার্ট অ্যাটাক হয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসের টিকা আবিষ্কারের চেষ্টায় নেমেছেন বিশ্বের তাবড় বিজ্ঞানী এবং চিকিৎসক মহল। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি ছাড়াও আমেরিকার মডার্না, ফাইজার প্রভৃতি সংস্থাও প্রস্তুত করেছে ভ্যাকুয়াম। কিন্তু এখনও পর্যন্ত সমস্ত ভ্যাকসিনই রয়েছে ট্রায়ালের পর্যায়ে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close