অফবিট

স্বামীহীন সংসার! অভাবের তাড়নায় সংসার চালাতে ফুচকা বিক্রি নদীয়ার গৃহবধূর

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্কঃ আমার আপনার কাছে ফুচকা নেহাত মুখরোচক। কিন্তু অতিমারীর সংকটে এই ফুচকাই জীবনযুদ্ধের ভরসা নদিয়ার গৃহবধূর। স্বামীহীন সংসারে মা- ছেলের অন্নসংস্থান চলছে ফুচকা বিক্রি করে। মা-ছেলে শান্তিপুরের বিশ্বাসপাড়ার ২ নম্বর কলোনীর বাসিন্দা। অভাবের তাড়নায় সামাজিক ট্যাবু ভেঙে আজ পাড়ার ফুচকা কাকিমা কলোনির এই গৃহবধূ। কালী মন্দিরের পাশে টিমটিমে আলোয় ফুচকার দোকানের (পড়ুন দোকানের মতন) মালকীন তিনি।

পাড়ায় ইতিমধ্যেই জনপ্রিয়তা পেয়েছে তাঁর নিজের হাতে তৈরি ফুচকা। স্বাদে মন ছুঁয়েছে এলাকাবাসীর। সেই সঙ্গে ১০ টাকায় ১০ টা ফুচকার লোভে ফুচকা কাকিমার কাছে ছুটে আসছে খদ্দের। তাদের আবার বেশি টাকার ফুচকা খেলে মিলছে বেশি পরিমাণ ফাও।

বিকেল পাঁচটার সময় ফুচকার পসরা নিয়ে বসেন কাকিমা। রাত ৮টা পর্যন্ত চলে বিক্রি। দোকান সেড়ে রাতে বাড়ি ফিরে ফের তিনি ফুচকা তৈরীতে মন দেন। অভাব ঘোচাতে তাঁত বোনার কাজও করতে হয় তাঁকে। সংসার খরচ ছাড়াও স্বামীর অবর্তমানে দশম শ্ৰেণীর ছাত্র ছেলের পড়াশোনার দায়িত্বও নিতে হয়েছে তাঁকে। সব কিছুর অর্থ জোগান এই ফুচকা বিক্রি করেই।

প্রসঙ্গত, দিন কয়েক আগেই উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ের ইঞ্জিনিয়ারিং এর পড়ুয়া জ্যোতির্ময়ী সাহার ফুচকা বিক্রির গল্পে তাজ্জব হয়েছিল গোটা রাজ্যবাসী। জ্যোতির্ময়ীর পর এবার নদিয়ার ফুচকা কাকিমা। সামাজিক ট্যাবু ভেঙে পেশাকে সম্বল করতে দেখা গেল আরও এক মহিলাকে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close