fff
বিনোদন

পুরুষ নির্যাতনে উস্কানি দেওয়া হয়েছে ছবিতে,এবার Alia Bhatt কে বয়কটের ডাক নেটিজেনদের

মহানগর বার্তা ওয়েবডেস্ক: আমির খানের লাল সিং চাড্ডা (Lal Singh Chaddha) ও অক্ষয় কুমারের (Akhsay Kumar) রক্ষা বন্ধনের পর নেটিজেনদের ট্রোলের মুখে আলিয়া ভাটের (Alia Bhatt) আগামী সিনেমা ডার্লিং। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়া (Social Media) জুড়ে ‘বয়কট (Boycott) আলিয়া ভাট’ হাসট্যাগ ট্রেন্ডিং হয়েছে।

আলিয়া ভাটের (Alia Bhatt) আগামী সিনেমা ডার্লিং কোন‌ও সিনেমা হলে নয়, ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্সে মুক্তি পাবে। মা হতে চলা আলিয়া এই নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে খুবই ব্যস্ত। ডার্লিংয়ের প্রচারে বিভিন্ন জায়গায় যাচ্ছেন। কিন্তু এই সিনেমায় পুরুষদের উপর নির্জাতনে উৎসাহ দেওয়া হয়েছে বলে নেটিজেনদের একাংশের অভিযোগ। তাঁদের দাবি, বর্তমান ফরমালিনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আলিয়া ভাট (Alia Bhatt) পুরুষ নির্জাতনে উৎসাহমূলক সিনেমা বানিয়েছেন। এই সিনেমা কেউ না দেখলে তবেই উচিৎ শাস্তি পাবেন তিনি।

তবে আলিয়ার সমালোচনা করতে গিয়ে নেটিজেনদের অনেকেই কুৎসায় মেতেছেন। একজন বলেছেন, “বর্তমানে পুরুষ নির্যাতনে উৎসাহ দেওয়াটা ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। সে আদালত হোক বা সিনেমা, সর্বত্র এক অবস্থা”।

নেটফ্লিক্সে রিলিজ হতে চলা ডার্লিংয়ে আলিয়া ভাট (Alia Bhatt) বদরুন্নিসা শেখ নামে এক মহিলার চরিত্রে অভিনয় করেছেন, যিনি একজন ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স সারভাইভার। মানে গৃহহিংসার শিকার। তাঁর স্বামী হামজা শেখের ভূমিকায় অভিনয় করছেন অভিনেতা বিজয় ভার্মা।

শুক্রবার ডার্লিং নেটফ্লিক্সে রিলিজ হবে। তার আগে বয়কট আলিয়া ভাট (Alia Bhatt) মাইক্রোব্লগিং সাইট ট্যুইটারে রীতিমতো ট্রেন্ডিং। এর আগে হিন্দু ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে আমির খানের আগামী সিনেমা লাল সিং চাড্ডা বয়কটের‌ও ডাক দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, আগামী ১১ আগস্ট লাল সিং চাড্ডা সিনেমা হলে মুক্তি পাবে।

নেটিজেনরা আলিয়া ভাটের (Alia Bhatt) ডার্লিং নিয়ে বেশ আক্রমনাত্মক। একজন বলেছেন, “ডার্লিংয়ে আলিয়া ভাট শুধু একজন অভিনেত্রী নন, তিনি এই সিনেমার প্রযোজক‌ও। উনি সচেতনভাবেই পুরুষ নির্যাতনে উৎসাহ দানকারী সিনেমা বানিয়েছেন। এই সিনেমা বয়কট করাই উচিৎ”।

এক নেটিজেন আবার আলিয়ার (Alia Bhatt) সমর্থকদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁয়েছেন, “একজন স্বামী যদি তাঁর স্ত্রীকে চেয়ারের সঙ্গে বেঁধে গরম তাওয়ায় মুখ ঠুকে দেন, আলিয়া ভাটের অনুগামীরা কী সেটা সমর্থন করবেন?” এই প্রশ্ন করে তিনি বোঝাতে চেয়েছেন, মহিলাদের সঙ্গে যদি এই আচরণ সমর্থনযোগ্য না হয় তবে পুরুষের ক্ষেত্রেও এক‌ই বিষয় হ‌ওয়া উচিৎ। কিন্তু সিনেমায় দেখিয়েছে আলিয়া তাঁর স্বামীর সঙ্গে এইভাবে অত্যাচার করছেন। আর সেটা নিয়েই প্রশ্ন তুলছে নেটিজেনদের একটা বড় অংশ।

এই দেশে দর্শকদের একটা অংশ সিনেমার সঙ্গে অভিনেতার ব্যক্তিগত স্বত্ত্বাকে আলাদা করে দেখতে চান না। অনেকয়সময় অত্যাচারের বীভৎসতা বোঝাতে বা মানুষের মননের গতিবিধি স্ক্রিনে ফুটিয়ে তুলতে এমন কিছু দৃশ্যায়নের দরকার পড়ে যা মানুষকে শিউরে দেবে। মনে হবে এমন কারোর সঙ্গে হতে পারে নাকি! বা ধর্মের নামে ভণ্ডদের স্বরূপ ফাঁস করতেও এমন কিছু দৃশ্যের দরকার পড়ে, যেখানে আপাতভাবে মনে হবে ধর্মের নামে ব্যবসা চলছে। কিন্তু এসব ক্ষেত্রে হিংসাকে প্রশ্রয় দেওয়া বা ধর্মকে খারাপ বলা অভিনেতার উদ্দেশ্য নয়। তিনি সিনেমার বিষয়ের স্বার্থে অমন একটা চরিত্রে অভিনয় করেন মাত্র।

কিন্তু দর্শকদের অনেকেই তা মানতে রাজি নন। স্ক্রিনে ফুটে ওঠা দৃশ্য দেখে তাঁরা সংশ্লিষ্ট অভিনেতাকে ব্যক্তিগতভাবে বিচার করার চেষ্টা করেন। ক্রুদ্ধ হয়ে ওঠেন তাঁর উপর। আলিয়া ভাটের ক্ষেত্রেও তেমনই হয়েছে। নেটিজেনরা কোন‌ও কথাই যেন শুনতে রাজি নন।

উল্লেখ্য, স্বামী রণবীর কাপুরের সঙ্গে আলিয়ার (Alia Bhatt) বহু প্রতীক্ষিত সিনেমা ব্রহ্মাস্ত্র রিলিজ হ‌ওয়ার মুখে। এছাড়াও সামনেই রিলিজ হবে আলিয়া ভাট অভিনীত ফারহান আখতারের জি লে জারা। সুপার স্টারকাস্টের এই সিনেমায় আলিয়া ভাটের পাশাপাশি আছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও ক্যাটরিনা কাইফ। তার আগে ডার্লিংকে কেন্দ্র করে আলিয়াকে বয়কটের ডাক দেওয়ায় চিন্তা বাড়ছে ব্রহ্মাস্ত্রের পরিচালক অয়ন মুখার্জি ও জি লে জারার পরিচালক ফারহান আখতারের। তাঁদের সিনেমাও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বলে আশঙ্কা ফিল্ম ক্রিটিকদের একাংশের।

এদিকে লাল সিং চাড্ডা বয়কটের ডাক‌ও দেওয়া হয়েছে। মুক্তির এক সপ্তাহ আগে একের পর এক বিতর্কে বিদ্ধ আমির খানের লাল সিং চাড্ডা (Lal Singh Chaddha)। ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে ‘বয়কট লাল সিং চাড্ডা’ হ্যাজট্যাগ। মূলত আমির খান ও তাঁর মায়ের চরিত্র করা মোনা সিংকে নিশানা করে নেটিজেনদের একটা বড় অংশ শুধু বয়কটের (Boycott) ডাক দিয়েই ক্ষান্ত হচ্ছেন না, যাতে লাল সিং চাড্ডা (Lal Singh Chaddha) বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে তার জন্যে রীতিমতো সক্রিয় তাঁরা।

ঘটনা হল, লাল সিং চাড্ডায় (Lal Singh Chaddha) অভিনেত্রী মোনা সিং নায়ক লাল সিং অর্থাৎ আমির খানের ৫৭ বছর বয়সী মায়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন। তাঁর নিজের প্রকৃত বয়স ৪০। এই বিষয়টি তুলে ধরে ট্রোল করা হচ্ছে। ট্রোলারদের বক্তব্য, একজন ৪০ বছর বয়সী মহিলাকে দিয়ে কেন ৫৭ বছরের বৃদ্ধার চরিত্রে অভিনয় করানো হবে। যদিও যুক্তির নিরিখে এটা যে দাঁড়ায় না তা সব সিনেমাপ্রেমী‌ই জানেন।

তবে লাল সিং চাড্ডা (Lal Singh Chaddha) বয়কটের ডাক দেওয়ার পিছনে আমির খানের ৭ বছর পুরানো একটি মন্তব্যই মূল হাতিয়ার হয়ে উঠেছে। ২০১৫ সালে দেশের অসহিষ্ণু পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য করেছিলেন আমির খান। বলেছিলেন, “আমাদের দেশ প্রকৃতিগতভাবে সহিষ্ণু। কিন্তু অসুস্থ মানসিকতার একদল মানুষ ঘৃণা ছড়াচ্ছে”। এই মন্তব্য সেই সময় বিজেপি ও হিন্দুত্ববাদীদের কাছে আমির খানকে চক্ষুশূল করে তোলে। লাল সিং চাড্ডা (Lal Singh Chaddha) রিলিজের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পর থেকে মূলত হিন্দুত্ববাদীরাই সিনেমাটি বয়কটের ডাক দিয়ে আমির খানের সেই পুরানো মন্তব্যকে সামনে তুলে আনছে। তাঁদের দাবি দেশের মানুষকে অপমান করেছেন আমির। অভিনেত্রী Kangna Ranaut কেও আমির খানের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায়।

চাপে পড়ে বিবৃতি দিয়ে আমির খান জানিয়েছেন, তিনি দেশকে ভালোবাসেন, দেশের মানুষকে ভালোবাসেন। তাঁকে যেন ভুল বোঝা না হয়। যদিও তাতে ক্ষুব্ধ নেটিজেনদের (Social Media) একাংশের মন এখনও গলেনি। পাশাপাশি এই সিনেমায় আমির খানকে ভারতীয়দের মতো দেখতে লাগছে না বলেও অনেকে অভিযোগ করেন। আবার কেউ কেউ বলছেন, লাল সিং চাড্ডায় হিন্দুদের অপমান করা হয়েছে।

সব মিলিয়ে, সিনেমা রিলিজের আগে বয়কটের ডাক ওঠায় আলিয়ার মতোই ব্যাপক চাপে আমির খান।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close
Close

Adblock Detected

Please Disable your ADBlocker!